এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ডিএ মারা সরকার, আর নেই দরকার – ধ্বনিতে সরকারি কর্মচারীদের অভিনব মহামিছিল

ডিএ মারা সরকার, আর নেই দরকার – ধ্বনিতে সরকারি কর্মচারীদের অভিনব মহামিছিল

গতকাল রাজ্য সরকারের বঞ্চনার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে অভিনব মিছিল করল রাজ্য সরকারি কর্মচারীরা। বিজেপি প্রভাবিত সরকারী কর্মচারী পরিষদ, বিজেপি টিচার্স সেল, বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী পরিষদ,পশ্চিমবঙ্গ পরিবহন শ্রমিক পরিষদ সহ অন্যান্য সরকারি কর্মচারীরা এই আন্দোলন মিছিলে অংশগ্রহণ করেন। বিজেপি রাজ্য সদর দপ্তর থেকে মিছিল শুরু হয়, শেষ হয় যোগাযোগ ভবনের সামনে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল মূর্তির পাদদেশে। গোটা মিছিল জুড়েই সরকারি কর্মীদের মুখে মুখে তখন স্লোগান –

ভোটের ঢাকে পড়ল কাঠি
বকেয়া ডিএ ধূপকাঠি
ডিএ মারা সরকার
আর নেই দরকার

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

অভিনব মিছিলে সরকারি কর্মীদের হাতে ছিল থালা ও বাটি। এই প্রসঙ্গে এই আন্দোলন কর্মসূচির অন্যতম আয়োজক বিজেপি প্রভাবিত সরকারি কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিস শীল বলেন, ইতিমধ্যেই আমরা রাজ্য সরকারের বঞ্চনার বিরুদ্ধে অভিনব ঘেউ ঘেউ প্রতিবাদ জানিয়েছি। বেতন কমিশনের চেয়ারম্যান অভিরূপ সরকারের সঙ্গে দেখা করে আমাদের দাবির কথা জানিয়ে এসেছি। কিন্তু তা সত্ত্বেও রাজ্য সরকারি কর্মীদের ক্রমাগত বঞ্চনা করেই যাচ্ছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। একজন মধ্যবিত্ত বা নিম্নবিত্ত পরিবারের সাধারণ সরকারি কর্মচারী ও তাঁর পরিবার যে কি অসীম কষ্টে দিন কাটাচ্ছে তা মাননীয়া মুখ্যমন্ত্রীর নজর এড়িয়ে যাচ্ছে দিনের পর দিন, অথচ তিনি খেলা-মেলা-পুরস্কার নিয়ে ব্যস্ত। কিন্তু তাঁর এই বঞ্চনায় রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের যে দৈন্যদশা দিনদিন প্রকট হয়ে উঠছে তার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে বিক্ষোভকারী কর্মচারীবন্ধুরা থালা হাতে অভিনব মিছিল ও প্রতিবাদ করতে বাধ্য হলেন।

মিছিলের শেষে সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল মূর্তির পাদদেশে এক সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিজেপির রাজ্যনেতা জয় ব্যানার্জি, বিজেপি প্রভাবিত সরকারি কর্মচারী পরিষদের আহ্বায়ক দেবাশিস শীল, ট্রেড ইউনিয়ন নেতা কালিদাস দত্ত ও মৃনাল মুখার্জী, বিশ্ববিদ্যালয় কর্মচারী পরিষদের মন্মথ বিশ্বাস, বিজেপি টিচার্স সেলের বিশ্বনাথ সাহা প্রমুখ। গতকালের আন্দোলন কর্মসূচিতে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের মূলত পাঁচ দফা দাবি ছিল –
১. অবিলম্বে ষষ্ঠ বেতন কমিশনের সুপারিশ ও কেন্দ্রীয়হারে সংশোধিত বেতনক্রম চালু করতে হবে
২. বকেয়া ডিএ মিটিয়ে দিতে হবে
৩. চুক্তিভিত্তিক অস্থায়ী কর্মীদের স্থায়ীকরণ করতে হবে
৪. বেসরকারি পরিবহন শ্রমিকদের পিএফ, ইএসআই এর ও চাকরির স্থায়ীকরণের ব্যবস্থা করতে হবে
৫. আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে সরকারী কর্মচারী সহ অন্যান্য ভোট কর্মচারীদের অবাধ ও নিরপেক্ষ ভোট পরিচালনা করতে দিতে হবে ও তাঁদের নিরাপত্তার যথাযথ ব্যবস্থা করতে হবে

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!