এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > রাজ্য সরকারের কারণেই সারদা সহ অন্যান্য চিট ফান্ড মামলার তদন্ত গতি পাচ্ছে না বড়সড় অভিযোগ সিবিআই কর্তার

রাজ্য সরকারের কারণেই সারদা সহ অন্যান্য চিট ফান্ড মামলার তদন্ত গতি পাচ্ছে না বড়সড় অভিযোগ সিবিআই কর্তার

বহু বছর কেটে গেলেও এখনো সারদা সহ অন্যান্য চিটফান্ড মামলার নিষ্পত্তি হল না। কবে এই চিটফান্ড কেলেঙ্কারির রহস্যোদ্ধার হবে তা নিয়ে আগাম কিছু বলতে পারলেন না সিবিআই কর্তারা। আর এজন্যে তৃণমূল কংগ্রেস বা দলের নেতা-মন্ত্রী নয়,সরাসরি রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকারের বিরুদ্ধেই অভিযোগের আঙুল তুলল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা সিবিআই।

পশ্চিমবঙ্গ সরকারের গা ঢিলেমির জন্যে সারদা-নারদা-রোজভ্যালির মতো চিটফান্ড কান্ডের তদন্তের গতি শ্লথ হয়ে রয়েছে বলেই দাবী করলেন বর্ষীয়ান এক সিবিআই কর্তা। এমনটাই খবর সংবাদ সংস্থা পিটিআইয়ের।

চিটফান্ডের জট কাটাতে সাহায্য করা তো দূরের কথা যাতে এই কেলেঙ্কারির কোনোদিন রহস্যভেদই না হয় তার জন্যে সমস্তরকম চেষ্টা করছে পশ্চিমবঙ্গ সরকার। আর সেজন্যেই বহুদিন অতিবাহিত হয়ে গেলেও এখনো পর্যন্ত চিটফান্ড মামলার চার্জশিট দিতে পারেনি সিবিআই,এমনটাই বক্তব্য ওই প্রবীণ সিবিআই আধিকারিকের।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রথম থেকেই চেয়েছিলেন সারদা মামলার দায়িত্ব সামলাক রাজ্যপুলিশ। আর সেজন্যেই এ ব্যাপারে সিবিআইয়ের হস্তক্ষেপের বিরোধীতা করতে সুপ্রিম কোর্ট পর্যন্ত ছুটেছিলেন নেত্রী। এই প্রক্রিয়ায় গোটা একবছর সময় নষ্ট হয়ে যায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

সেইসময়ই নাকি চিটফান্ড কান্ডের প্রামাণ্য তথ্যগুলো গোপন করে ফেলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার,এমন অভিযোগ ওঠে বিরোধীশিবিরের তরফ থেকে। ওই সিবিআই কর্তাই বলেছিলেন,পশ্চিমবঙ্গ সরকারই সারদা কেলেঙ্কারির তদন্তের পথে বাধা সৃষ্টি করছে। এই মামলার নিষ্পত্তি তৃণমূল কংগ্রেস চায় না।

আর সেজন্যেই প্রশাসনের সাহায্য নিয়ে সমস্ত প্রমাণগুলো লোপাট করেছে। মুখ্যমন্ত্রী জেনারেল কনসেন্ট তুলে নেওয়ার পর শুধুমাত্র অর্থনৈতিক তদন্তকারী সংস্থাগুলি কাজ করতে পারছে পশ্চিমবঙ্গে। এর জেরে সিবিআই তদন্তে নেতিবাচক প্রভাব পড়েছে বলে অভিযোগ করেছেন ওই সিবিআই কর্তা।

এ প্রসঙ্গে শ্রীকান্ত মোহতার সদ্য গ্রেফতারের প্রসঙ্গ টেনে ওই সিবিআই কর্তা বললেন,তদন্তের খাতিরে শ্রীকান্তের অফিসে সিবিআই গেলে,তাঁদের অহেতুক রাজ্যপুলিশ বাধা দিতে এসেই প্রমাণ করে দিয়েছে এই সমস্ত কেলেঙ্কারির নেপথ্যে রাজ্যসরকারের মদত রয়েছে।

উল্লেখ্য,লোকসভা ভোটের বাদ্যে কাঠি পড়তেই ফের সারদা সহ অন্যান্য চিটফান্ড কান্ড নিয়ে নড়েচড়ে বসল সিবিআই। ইতিমধ্যেই তৃণমূল ঘনিষ্ঠ সিনেমার প্রযোজক শ্রীকান্ত মোহতাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। একই ব্যাপারে তলব করা হয়েছে তৃণমূল সাংসদ সুব্রত বক্সিকেও। আর এরপর চিটফান্ড কেলেঙ্কারি মামলায় জটিলতা বাড়ানোর দায়ের সরাসরি রাজ্যসরকারকেই কাঠগড়ায় দাঁড় করালো এক সিবিআই আধিকারিক।

এর জেরে স্বাভাবিকভাবেই লোকসভা ভোটের মুখে রাজ্যের শাসকদলের ভাবমূর্তি নষ্ট নচ্ছে। এর আগে ২০১৪ লোকসভা ও ২০১৬ বিধানসভা নির্বাচনের আগে সারদা চিটফাণ্ডের তদন্ত নিয়ে সক্রিয় হয়ে উঠেছিল সিবিআই ও ইডি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!