এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ই-মনোনয়ন আটকাতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল রাজ্য নির্বাচন কমিশন

ই-মনোনয়ন আটকাতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হল রাজ্য নির্বাচন কমিশন

রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনের আইনি লড়াই এবার রাজ্যের গন্ডি ছাড়িয়ে দিল্লিতে গিয়ে উপস্থিত হল। সিপিএমের করা মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল কলকাতা হাইকোর্ট এক ঐতিহাসিক রায়ে জানিয়ে দেয় মনোনয়নের শেষ সময়, অর্থাৎ গত ২৩ শে এপ্রিল বিকেল ৩ টে পর্যন্ত রাজ্য সিপিএমের তরফে যতগুলি মনোনয়ন জমা পড়েছে সবগুলিকে গ্রহণ করতে হবে এবং তার মধ্যে যেগুলি বৈধ মনোনয়ন সেগুলিকে স্বীকৃতি দিয়ে নতুন করে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করতে হবে। আর কলকাতা হাইকোর্টের এই ঐতিহাসিক রায়ের ফলে আগামী ১৪ মে একদফাতে পঞ্চায়েত নির্বাচন করা কার্যত অসম্ভব হয়ে পরে।

গতকাল রায় বেরোনোর পরেই, গুঞ্জন ছিল এই রায়ের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যেতে পারে রাজ্য নির্বাচন কমিশন। কেননা এই ই-মনোনয়ন বৈধতা পেলে, পঞ্চায়েত নির্বাচন প্রক্রিয়া আরো জটিল হয়ে পড়বে। ইতিমধ্যেই বহু জায়গাতে ‘বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায়’ জয়ী প্রার্থীদের জয়ের শংসাপত্র দিয়ে দেওয়া হয়েছে। তাছাড়াও মনোনয়ন পর্ব শেষ হয়ে গেছে ধরে নিয়ে শাসকদলের বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় যেটা ৩৪% আসনে অর্থাৎ রাজ্যের ১১ হাজারেরও বেশি বুথে ভোট হবে না ধরে নিয়ে নিরাপত্তা ব্যবস্থার পরিকল্পনা করা হয়েছে। এই পরিস্থিতিতে ই-মনোনয়ন মেনে নিলে এই সমীকরণ সম্পূর্ণ বদলে যাবে। তাছাড়া গেরুয়া শিবিরের তরফেও দাবি করা হয়েছে তাদের দলীয় প্রার্থীরা প্রায় ২ হাজার মনোনয়ন ইমেলে পাঠিয়েছে। ফলে সিপিএমের দাবি মান্যতা পাওয়ায় তারাও আদালতের কাছে নিজেদের প্রার্থীদের জন্য আবেদন জানাবে। আর তাই এই জটিল পরিস্থিতি থেকে পঞ্চায়েত নির্বাচনকে বের করে আনতে দেশের শীর্ষ আদালতের কাছে হাইকোর্টের নির্দেশকে চ্যালেঞ্জ করে মামলা করল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। ফলে পঞ্চায়েত ভোটের ভাগ্য আপাতত সুপ্রিম কোর্টের হাতে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!