এখন পড়ছেন
হোম > চাকরি > রাজ্যে চাকরির হাহাকার অব্যাহত! ৯৫৭ গ্রূপ-সি পদের জন্য সাড়ে ১১ লক্ষের আবেদন!

রাজ্যে চাকরির হাহাকার অব্যাহত! ৯৫৭ গ্রূপ-সি পদের জন্য সাড়ে ১১ লক্ষের আবেদন!

রাজ্যে এবার ফুড ইন্সপেক্টেরের  ৯৫৭ শূন্যপদে 11 লক্ষ আবেদনকারীর সংখ্যা দেখে মাথায় হাত খাদ্য দপ্তরের। এই পরীক্ষারই আয়োজক সংস্থা পাবলিক সার্ভিস কমিশন সূত্রের খবর,, মাধ্যমিক পাশ যোগ্যতার এই পরীক্ষায় বসতে চেয়ে অন-লাইনে আবেদন প্রক্রিয়া গত ২২ আগস্ট থেকে শুরু হয়েছিল এবং তা শেষ হয় গত ১৮ সেপ্টেম্বর। আর এরপরই কার্যকর্তারা সেই আবেদনপত্র ঘেটে দেখতে পান যে, শূন্যপদের চেয়ে প্রায় ১২০০ গুণ বেশি আবেদনপত্র জমা পড়েছে। জানা গেছে, 957 টি শূন্যপদে সাধারনের জন্য 454, এসটি 207,এসসি 58, ওবিসি এ 98 এবং ওবিসি বি এর জন্য 69 টি শূন্যপদ রয়েছে। পাশাপাশি এক্স সার্ভিসম্যানদের জন্য 50 টি এবং মেরিটোরিয়াস স্পোর্টসম্যানদের জন্য 20 টি শূন্য পদ আছে। আর  সেখানে সাড়ে 11 লক্ষের বেশি আবেদন করায় হতবাক অনেকেই। কিন্তু এক্ষেত্রে বয়স বা যোগ্যতার কি কোনো সীমারেখা রয়েছে?

সূত্রের খবর, 2018 এর 1 জানুয়ারী অনুপাতে 18 থেকে 40 বছর বয়সীয়াই এই পদে আবেদন করতে পারবেন। তবে মাধ্যমিক উত্তীর্নদের আবেদন করতে বলা হলেও বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই দেখা গেছে যে যাঁরা আবেদন চরেছেন তাঁরা অনেকাংশেই উচ্চশিক্ষিত। কিন্তু আবেদনপত্র পূরনের কাজ তো হল! এখন কবে হবে এই পরীক্ষা? কমিশন সূত্রের খবর, ২০১৯ সালের ভ প্রসঙ্গে পিএসসি’র চেয়ারম্যান দীপঙ্কর দাশগুপ্ত বলেন, পুজোর ছুটির পর পিএসসির একাধিক পরীক্ষা রয়েছে।তাই এই বছরে সেই ফুড ইন্সপেক্টর পদে পরীক্ষা হওয়ার সম্ভাবনা খুবই কম। তাই 2019 এর প্রথমদিকে এই পরীক্ষা করার পরিকল্পনার কথা ভাবছে কমিশন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

জানা গেছে, বহু দিন পর রাজ্যে এই ফুড ইন্সপেক্টর পদ নিয়োগের পরীক্ষা হতে চলেছে। আবেদনকারীরা প্রথমে লিখিত পরীক্ষায় সফল হলে তারপর তাদের ইন্টারভিউয়ে ডেকে দুই পর্বের প্রাপ্ত নম্বরের মাধ্যমেই মেধাতালিকা তৈরি হবে বলে জানিয়েছেন কমিশন কর্তারা। কিন্তু 957 পদের জন্য সাড়ে 11 লক্ষ আবেদনকারী! কিভাবে সামাল দেবেন কমিশন?  এদিন এই প্রসঙ্গে পিএসসি কমিশনের চেয়ারম্যান দীপঙ্কর দাশগুপ্ত বলেন, “কমিশনের ঐতিহ্য মেনে ফুড ইন্সপেক্টর পদে মসৃণভাবে পরীক্ষার আয়োজন সুনিশ্চিত করতে আমরা বদ্ধপরিকর। লক্ষ লক্ষ ছাত্র-ছাত্রী এই পরীক্ষা দেবে। জেলায় জেলায় তার জন্য প্রয়োজনীয় পরিকাঠামোর ব্যাবস্থা গ্রহন করবে।” সব মিলিয়ে 957 ফুড ইন্সপেক্টরে সাড়ে 11 লক্ষ আবেদন পড়ায় রাজ্যে চাকরির হাহাকার দশাই ফের স্পস্ট হয়ে ফুটে উঠল বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!