এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > নেত্রীর নির্দেশে পাল্টা এসএসকেএম এর সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তৃণমূল নেতারা

নেত্রীর নির্দেশে পাল্টা এসএসকেএম এর সামনে বিক্ষোভ দেখাচ্ছে তৃণমূল নেতারা

Priyo Bandhu Media

আজ এসএসকেএম হাসপাতালে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আন্দোলনরত ডক্টরদের কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দেন। তিনি এদিন বলেন যে, এরা জুনিয়র ডাক্তার নয়, এর আউটসাইডার। এদের আমি ধিক্কার জানাই। আউটসাইডার থেকে এসে এখানে হামলা করছে , হসপিটালে গন্ডগোল করছে। আমি পুলিশকে বলব যারা এখানে এসে গন্ডগোল করছে, ডিস্টার্ব করছে , তাদের বিরুদ্ধে স্ট্রং অ্যাকশন নেবেন।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

হসপিটাল ,হোস্টেল টোটাল খালি করে দেবেন, ডাক্তার আর পেশেন্ট ছাড়া আর কেউ থাকবে না। আজ বিকেলের মধ্যে কাজে ফিরতে হবে। যারা কাজ করবে না তারা হোস্টেলে থাকবে না। আর ইন্ট্রান্সরা যারা আছে তাদেরকে আমরা রিভিউ করে দেখবো। যারা কাজে যোগদান করবে তারা থাকবে যারা কাজে যোগদান করবে না রোগী পরিষেবা ব্যাহত হবে তাদের আমরা কোন রকম ভাবে গভর্মেন্ট সাহায্য করব না। আপনাদের যত নেতা আছে ধরে নিয়ে আসুন। হবেনা। পাবলিককে পরিষেবা দিতে হবে। রোগীকে পরিষেবা না দিলে ডাক্তার হওয়া যায় না। পুলিশ কখনো বলতে পারে না যে আমরা ডিউটি করব না অনেক পুলিশ মারা যায় তাদের ডিউটি করতে হয়। পুলিশ মারা যায় ডিউটি রত অবস্থায় কিন্তু তারা বলতে পারেন না আমরা স্ট্রাইক করব।

সাথেই তাদেরকে তৃণমূল ও বিজেপির গুন্ডা বলেও দাবি করেন যে নিয়েই অপমানকর বলে দাবি করেন। মুখ্যমন্ত্রীকে অবিলম্বে নিঃশর্ত ক্ষমা চাইতে হবে বলেও জুনিয়র ডাক্তারদের দাবি।

আর এর পরেই জুনিয়র ডাক্তাররা এই নিয়ে ফের আন্দোলনের জোর বাড়ায়। এদিকে তাদের সাথে যোগ দেন সিনিয়র ডাক্তার ও নার্সরাও।

এদিকে নেত্রীর নির্দেশ মতো কাজ শুরু না করায় ক্ষুব্ধ হন তৃণমূল নেত্রী তিনি দলের নেতাদের নির্দেশ দিয়েছেন পাল্টা বিক্ষোভ দেখানোর। আর এই নিয়েই এসএসকেএম এর সামনে তৃণমূল নেতারা নিজেদের দলের পতাকা নিয়ে স্লোগান দিতে শুরু করে। তাদের দাবি নেত্রীর নির্দেশ মতো অবিলম্বে কাজ শুরু করতে হবে। ফলে তোলপাড় রাজ্য। কিন্তু রাজ্যের শাসক হয়ে রাজ্যের অশান্তি সামলাতে কিভাবে নিজের দলের লোককে পাল্টা বিক্ষোভ দেখাতে নির্দেশ দিতে পারেন তা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!