এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ৭৩ হাজার শিক্ষকের ন্যূনতম বেতন ১৮ হাজারের দাবিতে সমর্থন হেভিওয়েট নেতার, চিঠি মুখ্যমন্ত্রীকে

৭৩ হাজার শিক্ষকের ন্যূনতম বেতন ১৮ হাজারের দাবিতে সমর্থন হেভিওয়েট নেতার, চিঠি মুখ্যমন্ত্রীকে

রাজ্যের শিশু শিক্ষাকেন্দ্র বা এসএসকে ও মাধ্যমিক শিক্ষাকেন্দ্র বা এমএসকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের বেতন বৃদ্ধির দাবিকে এবার পূর্ন সমর্থন জানালেন রাজ্য-রাজনীতির অন্যতম হেভিওয়েট নেতা তথা বাম-পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী। আর শুধু সমর্থন জানানোই নয় – সমগ্র বিষয়টিকে বিবেচনা করে দেখার জন্য তিনি সরাসরি চিঠি লিখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

প্রসঙ্গত, বর্তমানে রাজ্যের পঞ্চায়েত দপ্তরের অধীনে থাকা ১৮ হাজার এসএসকে শিক্ষক-শিক্ষিকা মাসে মাইনে পান মাত্র ৫,৯৫৪ টাকা এবং ৫৫ হাজার এমএসকে শিক্ষক-শিক্ষিকা মাসে মাইনে পান মাত্র ৮,৯৩০ টাকা। অন্যান্য অনেক রাজ্যেই সেই টাকা বেশ কয়েকগুন বেশি। তার থেকেও বড় কথা, বাংলার এই সকল শিক্ষক-শিক্ষিকাদের জন্য প্রভিডেন্ট ফান্ড বা পিএফ-এর সুবিধা পর্যন্ত নেই। তাই কর্মজীবনের শেষে তাঁরা কিভাবে চালাবেন সেই নিয়েও গভীর দুশ্চিন্তা।

এই প্রসঙ্গে, রাজ্য সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করার জন্য দীর্ঘদিন ধরেই চেষ্টা চালাচ্ছেন সংশ্লিষ্ট শিক্ষক-শিক্ষিকারা। আর এবার তাঁরা তাদের পাশে পেলেন সুজনবাবুকে। সূত্রের খবর, সুজনবাবু গতকাল এই বিষয়ে সবিস্তার তথ্য সহ একটি চিঠি পাঠিয়েছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। সেইসঙ্গে তিনি বেশ কয়েকটি বিষয়ে বিবেচনা করে দেখতেও অনুরোধ করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীকে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সুজনবাবুর চিঠির মূল প্রতিপাদ্য হল, শিক্ষার অধিকার আইন চালু হওয়ার পর দেশের প্রায় সব রাজ্যেই সমতুল শিক্ষাকেন্দ্রগুলি শিক্ষাদপ্তরের অধীনে নিয়ে আসা হয়েছে। শিক্ষাক্ষেত্রের পরিকাঠামো, শিক্ষাদানের ব্যবস্থা, শিক্ষকদের বেতন প্রভৃতি সব ক্ষেত্রেই শিক্ষাদপ্তরের অধীনস্থ স্কুলগুলির সঙ্গে সামঞ্জস্য বিধান করা হয়েছে। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গ সে ব্যাপারে ব্যতিক্রম হয়ে রয়েছে।

সুজনবাবু আরো জানিয়েছেন, রাজ্যের এসএসকে এবং এমএসকেগুলিকে শিক্ষাদপ্তরের অধীনে আনার ব্যাপারে আলোচনা হয়েছে একাধিকবার। এমনকী, শিক্ষকদের মানোন্নয়ন এবং প্রশিক্ষণের ব্যবস্থাও করা হয়েছে। তবে ভিন রাজ্যের তুলনায় এরাজ্যের এসএসকে-এমএসকে শিক্ষকদের বেতনের ক্ষেত্রে নিদারুণ বৈষম্য রয়েছে।

আর তাই বাম পরিষদীয় দলনেতার মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি আবেদন, সামগ্রিক অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে এসএসকে ও এমএসকে শিক্ষক-শিক্ষিকাদের ন্যূনতম বেতন ১৮ হাজার টাকা করার দাবি দ্রুত বিবেচনা করা দরকার। এর পাশাপাশি নবম ও দশম শ্রেণী চালু করে এই শিক্ষাকেন্দ্রগুলিকে শিক্ষাদপ্তরে অধীনে আনার বিষয়টিকেও গুরুত্ব দিয়ে বিবেচনা করা উচিত।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!