এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > চাপে পড়ে এসএসসির তালিকা বের করেও অস্বস্তিতে স্কুল সার্ভিস কমিশন – সামনে আসছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগ

চাপে পড়ে এসএসসির তালিকা বের করেও অস্বস্তিতে স্কুল সার্ভিস কমিশন – সামনে আসছে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ অভিযোগ

বাংলায় পুজোর আমেজ এখনও কাটেনি। পুজোর সময় যখন সকলে আনন্দে ব্যস্ত ছিল, ঠিক তখনই স্কুল সার্ভিস কমিশন উচ্চ প্রাথমিকে নিয়োগের যে পূর্ণাঙ্গ মেধাতালিকা প্রকাশ করেছিল, তা নিয়ে উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা গিয়েছিল সেই চাকরি প্রার্থীদের মধ্যে। কিন্তু এবার এসএসসি তালিকা বের হলেও তাতে বিপুল পরিমাণে ভুল থাকায় ব্যাপক অভিযোগ কমিশনের কাছে জমা পড়তে শুরু করেছে। যা নিয়ে কিছুটা হলেও চাপে পড়েছে স্কুল সার্ভিস কমিশন।

সূত্রের খবর, গত 5 থেকে 9 অক্টোবর সকাল পর্যন্ত এই ব্যাপারে মোট 69 টি অভিযোগ জমা পড়েছে কমিশনের কাছে। কিন্তু আগামী 25 অক্টোবর পর্যন্ত সেই অভিযোগ জমা নেওয়ার দিন থাকায় অভিযোগের জানানোর প্রবণতা আরও অনেকটাই বৃদ্ধি পাবে বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

এদিন এই প্রসঙ্গে এসএসসি চেয়ারম্যান সৌমিত্র সরকার বলেন, “এত হাজার প্রার্থীর মধ্যে 69 টির মত অভিযোগ এমন বড় কিছু নয়। তবে এই অভিযোগগুলোর মধ্যে কতগুলোর সারবত্তা রয়েছে, তা দেখতে হবে। ছুটি শেষে অফিস খুললেই আমরা তা পরে দেখা শুরু করব। আপাতত একটি খাতা বানিয়ে অভিযোগকারীর বিভিন্ন তথ্য সেখানে লিখে রাখা হচ্ছে। এমনকি লিখিত অভিযোগের প্রমাণ হিসেবে তাদের একটি রশিদও দেওয়া হচ্ছে। সব কিছুই স্বচ্ছভাবে করা হচ্ছে।”

তবে এসএসসির চেয়ারম্যান স্বচ্ছভাবে গোটা প্রক্রিয়া পরিচালনা হচ্ছে বলে জানিয়ে দিল তা মানতে নারাজ কলেজিয়াম অফ অ্যাসিস্ট্যান্ট হেডমাস্টার্স এবং অ্যাসিস্ট্যান্ট হেডমিস্ট্রেসের সম্পাদক সৌদীপ্ত দাস। তিনি বলেন, “বিভিন্ন প্রান্ত থেকে যেসব অভিযোগ আমাদের কাছে আসছে, তাতে দেখা যাচ্ছে অ্যাক্যাডেমিক কোয়ালিফিকেশনের জন্য যত নম্বর দেওয়ার কথা, তা দেওয়া হয়নি। টেটের ওয়েটেজ দিতে ভুল হয়েছে। যার শিক্ষাগত যোগ্যতা খাতে বা টেটে নম্বর কম, তাকে পার্সোনালিটি টেস্টে বেশি নম্বর দেওয়া হয়েছে। কোথাও একটা ভারসাম্য রক্ষার চেষ্টা হয়েছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

জানা গেছে, এক প্রার্থী ইংরেজিতে 40-40 স্কোর করলেও তাকে সেখানে দেওয়া হয়েছে মোটে 36 নম্বর। আবার কারও এই ব্যাপারে কোনো প্রশিক্ষণ না থাকলেও তাকে তার বরাদ্দকৃত 10 নম্বরই দিয়ে দেওয়া হয়েছে। আর এই গোটা ঘটনা নিয়েই তৈরি হয়েছে সমস্যা। অনেকেই প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন, মোট প্রাপ্ত নম্বরের 40% ওয়েটেজ দেওয়ার কথা থাকলেও আলাদা আলাদা বিষয়ে প্রাপ্ত নম্বরের পার্সেন্টেজ বের করে কেন তা হিসাব করা হবে!

এদিন এই প্রসঙ্গে সৌদীপ্ত দাস বলেন, “এসএসসি নিয়ে বারবার অভিযোগ উঠছে। যদি সবটাই স্বচ্ছ হয়, মেরিট লিস্ট কেন তাহলে পিডিএফ আকারে থাকবে না! আমরা এই ব্যাপারে নিরপেক্ষ তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।” অন্যদিকে এই ব্যাপারে পশ্চিমবঙ্গ শিক্ষক ও শিক্ষা বিষয়ক কর্মচারী সমিতির সভাপতি সংঘমিত্রা ভট্টাচার্য বলেন, “এসএসসি নিয়ে বারবার এত অভিযোগ উঠবে কেন! মেধাতালিকা নিয়ে অনেক অভিযোগের কথা শুনছি।”

তবে এই ব্যাপারে শিক্ষকদের অনেকে এসএসসি কর্তৃপক্ষের পাশে দাঁড়িয়ে দ্রুত মেধাতালিকা প্রকাশ করার জন্য তাতে কিছু ভুলভ্রান্তি থাকতেই পারে বলে জানিয়ে দিয়েছেন। সব মিলিয়ে তড়িঘড়ি চাপের কাছে নতিস্বীকার করে এসএসসি কর্তৃপক্ষ তাদের তালিকা বের করলেও তাতে যেভাবে ভুল রয়েছে, এই অভিযোগ তোলা হচ্ছে, তাতে এসএসসি কর্তৃপক্ষ এখন সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখে ঠিক কী পদক্ষেপ নেয়! সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!