এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > নির্বাচন শেষ – তৃণমূল-বামফ্রন্ট-বিজেপি-হিন্দু-মুসলিম মিলে মহাভোজের অন্যান্য পরিবেশ পুরুলিয়ায়

নির্বাচন শেষ – তৃণমূল-বামফ্রন্ট-বিজেপি-হিন্দু-মুসলিম মিলে মহাভোজের অন্যান্য পরিবেশ পুরুলিয়ায়

পুরুলিয়া মানেই লালমাটির দেশ, পুরুলিয়া মানেই ছৌ-নাচের মন ভালো করে দেওয়া অনবদ্য সাংস্কৃতিক পরিমন্ডল। আর সেই পুরুলিয়া জেলাই নির্বাচনকে দেখে উৎসব হিসাবে, আখ্যা দেয় ‘ভোট-পুজোর’। সেই ভোট পুজোর শেষে নতুন-পুরোনো একাধিক রেকর্ড করে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস ৫ হাজার গ্রামবাসীকে নিয়ে মাতল অভিনব পিকনিকে। কি জন্য অভিনব ভুরিভোজ? কি ছিল মেনু? কারা কারা আমন্ত্রিত? পুরুলিয়ার নপাড়া ঘুরে সব তথ্য পুঙ্খানুপুঙ্খ রূপে তুলে আনলেন আমাদের বিশেষ প্রতিনিধি।

কি কি রেকর্ড করল শাসকদল?
১. নপাড়া ২ নম্বর বুথে সেই ১৯৯৮ সাল থেকে টানা ৫ বার জয়ী হল তৃণমূল কংগ্রেস
২. পুঞ্চা ব্লকের পঞ্চায়েত গুলির মধ্যে সবথেকে বড় ব্যবধানে ৪৫৮ ভোটে জয়ী হল তৃণমূল কংগ্রেস (তৃণমূল – ৫৩৪, বিজেপি – ৭৬, বামফ্রন্ট – ৬৩)
৩. তৃণমূল প্রার্থী বীনাপানি সেন সেই ১৯৯৮ সাল থেকে এইবার নিয়ে ৪ বার জয়ী হলেন, মাঝে শুধু ২০১৩ সালে ওই আসন থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি বীণাপানি দেবী, গতবারে তাঁর ছেলে বিমান সেন ওই আসন থেকে জয়লাভ করেন
৪. নপাড়া গ্রামের ৩ টি আসনে প্রথমবার জয়ের মুখ দেখল তৃণমূল কংগ্রেস, যার মধ্যে উল্লেখযোগ্য ১ নম্বর আসন থেকে অসিত মাহাতো ও ৩ নম্বর আসন থেকে বিমল গড়াই
৫. হেভিওয়েট বামপ্রার্থী তথা প্রাক্তন সিপিআইএম জেলা সম্পাদক নকুল মাহাতোর নাতি অলিম্পিক মাহাতো ১ নম্বর আসন থেকে হেরে গেছেন ১২৭ ভোটে
৬. বামফ্রন্ট ও বিজেপির প্রবল প্রতিদ্বন্দ্বিতা সত্ত্বেও ১১ আসনের নপাড়া পঞ্চায়েতের দখল শেষপর্যন্ত রাখতে সফল তৃণমূল (শেষ ফলাফল – তৃণমূল – ৬, বামফ্রন্ট – ৩, বিজেপি – ২)

আর এতো কিছু ঘটে যাওয়ার পর এবার আনন্দের বাঁধ ভাঙল পুরুলিয়ার নপাড়া পঞ্চায়েতে। নির্বাচন মিটে গেছে, ফলে রাজনৈতিক মতপার্থক্য দূরে সরিয়ে রেখে এখন আনন্দের সময়। আর তাই এবার গ্রামের মানুষের উদ্যোগে গ্রামের ৪ হাজার অধিবাসী ও এলাকার অন্যান্য আরো হাজার মানুষকে নিয়ে রীতিমত উৎসবের পরিবেশে ভুরিভোজের আয়োজন। গ্রামের ছেলেরাই হাতে হাত লাগিয়ে প্যান্ডেল, রান্না, পরিবেশনের কাজ সব করছেন। আর এই ভুড়িভোজে নেই কোনো আমরা-ওরা, গ্রামের প্রতিটা বাড়ি বাড়ি গিয়ে সাদরে নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। গ্রামবাসীরাও রাজনৈতিক লড়াই ভুলে, তৃণমূল-বিজেপি-বামফ্রন্ট সব দলের সমর্থকেরাই পাশাপাশি বসে – ভাত, ডাল, তরকারি, মাংস, চাটনি সহকারে মহাভোজ সারলেন। তবে রোজা চলায় গ্রামের প্রায় ৩০০ মুসলিম অধিবাসী এই ভুড়িভোজে অংশ নিতে পারেননি। তবে তাঁদের জন্য রাত্রে বিশেষ ব্যবস্থা। সবমিলিয়ে পুরুলিয়ার নপাড়া পথ দেখাচ্ছে কি হতে পারে রাজ্যের আদর্শ সাম্প্রদায়িক বা রাজনৈতিক পরিবেশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!