এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > স্পিকারের বারবার অনুরোধ অগ্রাহ্য করে সংসদে অসংসদীয় আচরণ করে নজিরবিহীনভাবে বড় শাস্তির মুখে 45 সাংসদ

স্পিকারের বারবার অনুরোধ অগ্রাহ্য করে সংসদে অসংসদীয় আচরণ করে নজিরবিহীনভাবে বড় শাস্তির মুখে 45 সাংসদ

এ যেন এক নজিরবিহীন ঘটনা ঘটল লোকসভায়। আজ ও গতকাল মিলিয়ে মোট দুইদিনে সাসপেন্ড হতে হল লোকসভার প্রায় 45 জন সাংসদকে। জানা গেছে, গতকাল লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মহজন সভা বানচাল করার দায়ে এআইএডিএমকের 24 জন সাংসদকে সাসপেন্ড করেছিলেন।

আর এদিন সেই একই অভিযোগে এই এআইডিএমকের সাতজন সহ মোট 21 জন সাংসদকে সাসপেন্ড করলেন তিনি। কিন্তু ঠিক কি কারনে এদিন সাসপেন্ড হতে হল এই সাংসদের? সূত্রের খবর, কাবেরী নদীর উপর বাঁধ তৈরি বন্ধ করার দাবি নিয়ে এদিন সংসদের ওয়েলে নেমে তীব্র বিক্ষোভ দেখান এআইডিএমকের সাংসদেরা।

 

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অভিযোগ, সেইখানেই সভার কার্যবিবরণীর কাগজ ছিঁড়ে তা স্পিকারের দিকে ছুড়ে দেন কয়েকজন সাংসদ। আর এতেই প্রচণ্ড ক্ষুব্ধ হন স্পিকার সুমিত্রা মহজন। আর এর ফলেই অধ্যক্ষ বিভিন্ন দলের 21 জন সাংসদকে সাসপেন্ড করে দুপুর দুটো পর্যন্ত মুলতবি করে দেন সংসদের অধিবেশন। জানা যায়, এদিন দিয়ে এআইডিএমকের 7, তেলেগু দশম পার্টির 11 এবং ওয়াইএসআর কংগ্রেসের রেনুকা বুটাকে সাসপেন্ড করেন সুমিত্রা মহজন। অন্য দিকে অন্ধ্রপ্রদেশের জন্য বিশেষ প্যাকেজের দাবি তুললে এবং স্পিকার তাদেরকে শান্ত করার চেষ্টা করলেও তা না শোনায় টিডিপির রবীন্দ্র বাবু এবং কেসিনানি শ্রীনিবাসনকেও চলতি শীতকালীন অধিবেশনের পুরো সময়ের জন্য সাসপেন্ড করা হয়।

এদিকে গত দু’দিনে তামিলনাডুর এআইডিএমকের মোট 37 জন সাংসদের মধ্যে 31 জনকেই সাসপেন্ড করা হয়েছে। যা নিয়ে এআইমডিএমকের সাংসদ তথা লোকসভার চেয়ারম্যান এম থাম্বিদুরাই তৃণমূলের সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছেও তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।

তবে এইভাবে তাঁদের সাসপেন্ড করলেও কেন্দ্রের বিরুদ্ধে তাদের বিরোধিতার সুর যে কোনো অংশেই কম হবে না এদিন তা স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন সেই সাসপেন্ড হওয়া সাংসদেরা। তাছাড়াও আগামী মঙ্গলবারই লোকসভার চলতি শীতকালীন অধিবেশন শেষ হচ্ছে।

তাই সেই দিক থেকে সেই অধিবেশনে উপস্থিত না থাকলেও তেমন কোনো ক্ষতি হবে না বলেই মনে করছেন এই সাসপেন্ডেড সাংসদরা। তবে যে যাই বলুন না কেন সংসদে অসংসদীয় আচরণের জন্য 45 জন সাংসদকে এইভাবে সাসপেন্ড লোকসভার ইতিহাসে অত্যন্ত নজিরবিহীন বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!