এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শোভনকে বিজেপিতে সক্রিয় করতে তৃতীয় ব্যক্তির আবির্ভাব, জল্পনা শুরু!

শোভনকে বিজেপিতে সক্রিয় করতে তৃতীয় ব্যক্তির আবির্ভাব, জল্পনা শুরু!

গত বছরের 14 আগস্ট বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে সাথে নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টিতে যোগদান করেছিলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায়। তবে বিজেপিতে যোগদানের পর দাপটের সঙ্গে তিনি রাজনীতি করবেন বলে ধরে নেওয়া হলেও, সেভাবে তাকে খবরের শিরোনামে উঠে আসতে দেখা যায়নি।

শিরোনামে তিনি উঠে এসেছেন ঠিকই, তবে তা নিষ্ক্রিয়তার কারণে। বিভিন্ন সময়ে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ সেই শোভন চট্টোপাধ্যায় ও বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে “ডাল ভাত” বলে খোঁচা দিয়েছেন। যা নিঃসন্দেহে কিছুটা হলেও ব্যথিত করেছে সেই শোভনবাবুকে। আর তারপর থেকেই দলের সঙ্গে ক্রমশ দূরত্ব বাড়তে শুরু করেছে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়ের। তবে দীর্ঘদিন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বিজেপিতে নিষ্ক্রিয় থাকলেও, দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য সভাপতির দায়িত্ব পেয়েই তাকে দলে সক্রিয় করার কথা শোনা গেছে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের গলায়।

যার প্রথম এবং প্রধান কারণ, সামনের পৌরসভা নির্বাচন। কেননা এককালে কলকাতা পৌরসভার মেয়র থাকা শোভন চট্টোপাধ্যায়কে দিয়েই এবার পৌরসভা নির্বাচনে সাফল্য পেতে চাইছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর তাইতো বিন্দুমাত্র সময় নষ্ট না করে সেই শোভন চট্টোপাধ্যায়ের মানভঞ্জনের চেষ্টা চালাচ্ছে তারা। এক্ষেত্রে তৃতীয় এক ব্যক্তিকে কাজে লাগাচ্ছে গেরুয়া শিবির।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

যার মাধ্যমে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে যোগাযোগ করে নিজেদের কাজ সফল করতে চাইছে পদ্ম শিবির। কিন্তু সরাসরি বিজেপির তরফ থেকে যোগাযোগ না করে, কেন তৃতীয় এক ব্যক্তিকে দিয়ে বিজেপি শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে যোগাযোগ চালাচ্ছে! এতে কি জটিলতা বাড়ছে না! একাংশের প্রশ্ন, এখন শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে বিজেপি যোগাযোগ করতে চাইলেও আদৌ কি শোভন চট্টোপাধ্যায় বিজেপির ডাকে সাড়া দেবেন!

জানা গেছে, শোভন চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে সামনাসামনি বসে এই গোটা ব্যাপারটি মিটিয়ে নিতে চাইছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর তারপরেই শোভনবাবুকে দলে সক্রিয় করে আগামী পৌরসভা নির্বাচনে ভালো ফল করতে চাইছে গেরুয়া শিবির। তবে শেষ পর্যন্ত কোন দিকে এগোয় গোটা পরিস্থিতি! আদৌ শোভনবাবুর মানভঞ্জন করতে পারে কিনা ভারতীয় জনতা পার্টির নেতৃত্বরা! এখন সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!