এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ ও মন্ত্রীর, জনপ্রিয় হিন্দি নায়িকার সঙ্গে খোলা মঞ্চে নাচ – ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়

হেভিওয়েট তৃণমূল সাংসদ ও মন্ত্রীর, জনপ্রিয় হিন্দি নায়িকার সঙ্গে খোলা মঞ্চে নাচ – ঝড় সোশ্যাল মিডিয়ায়

Priyo Bandhu Media

রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বারেবারেই বিভিন্ন জনসভায় দাবি করে থাকেন তিনি বাংলার কৃষ্টি-সংস্কৃতি-ঐতিহ্যের নিজে যেমন গুণমুগ্ধ – তেমনই তা ভারতের গন্ডি ছাড়িয়ে বিশ্বের দরবারে পৌঁছে দিতে আন্তরিক। আর তাই – তাঁর হাত ধরে উঠে এসেছে ‘বিশ্ববাংলা’, যা বাংলার ঐতিহ্যপূর্ণ সংস্কৃতিকে বিশ্বের দরবারে তুলে ধরবে।

স্বাভাবিকভাবেই দলনেত্রী তথা বা মুখ্যমন্ত্রীর এই ঐকান্তিক প্রয়াস অনুপ্রাণিত করে দলের অগণিত কর্মী-সমর্থকদের। অত্যন্ত গর্বের সঙ্গে দলের সর্বোচ্চ নেত্রীর পাশাপাশি তাঁরা নাম নেন দলের শীর্ষনেতৃত্বের। বারেবারেই তাঁরা জানান, সমাজের অধ্যাপক থেকে শুরু করে অভিনয় জগৎ, সংগীতজ্ঞ থেকে শুরু করে খেলোয়াড় – সর্বক্ষেত্রের গুণীজনদের জনপ্রতিনিধি করে তৃণমূল নেত্রী কিভাবে বিধানসভায় বা লোকসভায় সমাজের প্রতিটি ক্ষেত্রের কন্ঠ পৌঁছে দিচ্ছেন আইনসভায়।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

আর মুখ্যমন্ত্রীর এই জনপ্রতিনিধিদের মধ্যে বিদ্বজনের তালিকায় খুব উপরের দিকেই নাম থাকে রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী ব্রাত্য বসু ও অধ্যাপক-সাংসদ সৌগত রায়ের নাম। আর এবার এই দুই মন্ত্রী ও সাংসদ খোলা মঞ্চে জনপ্রিয় হিন্দি গান ‘তু চিজ বড়ি হ্যায় মস্ত মস্ত’-এর সঙ্গে রীতিমত চমকে দেওয়ার মত কোমড় দুলিয়ে নেচে দেখিয়ে দিলেন। জনপ্রিয় হিন্দি অভিনেত্রী রবিনা ট্যান্ডনকে পাশে পেয়ে জনপ্রতিনিধিত্বের পাশাপাশি তাঁদের এই ‘সাংস্কৃতিক’ দিকটিও তুলে ধরলেন পুরো মাত্রায় – ঘটনাটি দমদমের খাদ্যমেলার।

আর এই দুই হেভিওয়েট তৃণমূল কংগ্রেস নেতার এই নাচ এখন রীতিমত ভাইরাল সোশ্যাল মিডিয়ায়। অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, সৌগতবাবু বা ব্রাত্যবাবুর মত ব্যক্তিত্বের সঙ্গে ঠিক খাপ খায় না এই ধরনের নাচ। অনেকেই পুরো ব্যাপারটিকে ‘চটুল’ বলেও আখ্যা দিচ্ছেন। তবে, বিজেপির বক্তব্য, সৌগতবাবু এক সময় আশুতোষ কলেজের অধ্যাপক ছিলেন – কিন্তু সেই তিনিই যখন তোয়ালেতে মুড়ে নারদায় টাকা নিতে পারেন (যদিও সেই ভিডিওর সত্যতা এখনও পরীক্ষিত নয়), তাহলে তিনি খোলা মঞ্চে ‘চটুল’ গানে ‘চটুল’ নৃত্য পরিবেশন করবেন এতে অবাক হওয়ার কি আছে?

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!