এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ‘সোশ্যাল মিডিয়া হাব’ গঠন নিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতেই বড়সড় ধাক্কা খেলেন প্রধানমন্ত্রী

‘সোশ্যাল মিডিয়া হাব’ গঠন নিয়ে দেশের শীর্ষ আদালতেই বড়সড় ধাক্কা খেলেন প্রধানমন্ত্রী

দেশের প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্তের বিপক্ষে গেল দেশেরই সর্বোচ্চ আদালত। কেন্দ্রীয় সরকারের ‘সোশ্যাল মিডিয়া হাব’ গঠনের পদক্ষেপ নিয়ে বিরূপ প্রতিক্রিয়া জানালো সুপ্রীম কোর্ট। শুক্রবার এই সংক্রান্ত এক মামলার শুনানিতে প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্র এবং বিচারপতি এ এম খানউইলকারকে গঠিত ডিভিশন বেঞ্চ জানালেন বিষয়টি অনেকটা ‘নজরদারি রাষ্ট্র তৈরির মতো’ হয়ে দাঁড়াচ্ছে। অর্থাৎ সরকার চাইছে এখন থেকে নাগরিকদের হোয়াটস অ্যাপ মেসেজে ও নজরদারি করতে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এদিন আদালত জানিয়েছে আগামী দু’সপ্তাহের মধ্যে এ ব্যাপারে কেন্দ্রের স্পষ্ট অবস্থান সম্পর্কে আদালতকে অবগত করতে করতে হবে। এমনকি এই বেঞ্চ অ্যাটর্নি জেনারেল কে কে বেণুগোপালকে মামলা সংক্রান্ত সবরকম সহযোগিতার পরামর্শও দিয়েছে । এই মামলার পরবর্তী শুনানির দিন আগামী ৩ রা অগষ্ট স্থির হয়েছে। প্রসঙ্গতঃ কেন্দ্রের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক অন লাইন ভিত্তিক ডেটা পর্যবেক্ষণ কিংবা নিয়ন্ত্রণের উদ্দেশে একটি ‘সোশ্যাল মিডিয়া কমিউনিকেশন হাব’ গঠনের উদ্যোগ নেয়। জানা যাচ্ছে প্রকল্পটির দরপত্র আহ্বানেরও দিনক্ষণ স্থির হয়ে গিয়েছে।

সেই অনুসারে আগামী ২০ শে আগস্ট দরপত্র খোলার ব্যাপারে প্রস্তুতি নিয়ে ফেলেছে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা ব্রডকাস্ট ইঞ্জিনিয়ারিং কনসালটেন্ট ইন্ডিয়া লিমিটেড। মনে করা হচ্ছে এদিন তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক মহুয়া মৈত্রের আবেদনের প্রেক্ষিতে সুপ্রিম কোর্টের অবস্থান স্বাভাবিক ভাবেই বিজেপি সরকারের হাব গঠনের পরিকল্পনা কে বানচাল করে দেবে। উল্লেখ্য সুপ্রিম কোর্ট গত ১৮ ই জুন হাব গঠনের স্থগিতাদেশ সংক্রান্ত এক আবেদনের দ্রুত শুনানি চেয়ে সরকারের আর্জি খারিজ করে দিয়েছিল। এইসময়ে মহুয়া মৈত্রের আইনজীবী এ এম সিংভি বলেছিলেন, “হাব গঠনের মাধ্যমে সোশ্যাল মিডিয়ায় ব্যক্তিবিশেষের তথ্যে নাক গলানোর চেষ্টা করছে সরকার।

নাগরিকদের ট্যুইটার, ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম কিংবা ই-মেলে নজরদারি চালানোর এটি একটি বিশেষ ব্যবস্থা। ” প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ‘সোশ্যাল মিডিয়া কমিউনিকেশন হাব’ গঠনের যে দরপত্র আহ্বান করতে চলেছে সরকার, তাতে বলা হয়েছে, এটি একটি প্রযুক্তিনির্ভর কেন্দ্র সরকারের পরিচালনাধীন প্রকল্প। যার কাজ হবে প্রতিটি সোশ্যাল মিডিয়ার প্ল্যাটফর্ম থেকে শুরু করে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্ম নির্ভর সংবাদ এবং ব্লগের গুরুত্বপূর্ণ তথ্য সংগ্রহ করা। এবং সেইসব তথ্যকে খুঁটিয়ে পর্যবেক্ষণ করা। প্রতিটি জেলাস্তরে এই হাব গঠিত হবে। চুক্তিভিত্তিতে নিয়োগ করা হতে পারে সাংবাদিকদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!