এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > দলীয় পর্যবেক্ষককে নিয়ে দলের নেতার সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট ঘিরে বাড়ছে জল্পনা, অনুব্রতকে নিয়ে প্রশ্ন উঠছে

দলীয় পর্যবেক্ষককে নিয়ে দলের নেতার সোশ্যাল মিডিয়ার পোস্ট ঘিরে বাড়ছে জল্পনা, অনুব্রতকে নিয়ে প্রশ্ন উঠছে



বীরভূমের দাপুটে নেতা হিসেবে পরিচিত অনুব্রত মণ্ডল। বরাবরই বিতর্কিত মন্তব্য করে খবরের শিরোনামে উঠে আসেন তিনি। এমনকি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত স্নেহভাজন বলে পরিচিত অনুব্রত মণ্ডলের দক্ষ সংগঠনের ছোঁয়া পেতে চান রাজ্যের প্রায় প্রতিটি জেলার তৃণমূল কর্মী সমর্থকরাই। আর এবার সেই অনুব্রত মণ্ডলকে কাটোয়ার পর্যবেক্ষক করার কথা শুনে রীতিমতো সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হলেন তৃণমূলেরই একাংশ। আর এই ঘটনাতেই এখন শুরু হয়েছে জল্পনা।

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি বীরভূমে তৃণমূলের সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ অনুব্রত মণ্ডলকে কাটোয়ার পর্যবেক্ষক হিসেবে সম্বোধন করেন। আর এরপরই কাটোয়ার তৃণমূলের টোটো ইউনিয়নের নেতা বলে পরিচিত রনজিৎ চট্টোপাধ্যায় সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ কিছু পোস্ট করেন। যেখানে নাম না করে “হেরো নেতা” শব্দটি উল্লেখ করেন তিনি। আর তারপরই একাংশ প্রশ্ন তোলেন, তাহলে কি এবার অনুব্রত মণ্ডলকেই রনজিৎবাবু হেরো নেতা বলে সম্বোধন করলেন!

বিশেষজ্ঞদের মতে, এবারে বীরভূম জেলায় তৃণমূল দুটি আসনে জিতলেও বেশ কিছু জায়গায় তারা পিছিয়ে থেকেছে। এমনকি এই বীরভূমে প্রবল উত্থান ঘটেছে বিজেপির। আর এতেই অনুব্রত মন্ডলকে কাটোয়ার পর্যবেক্ষক করার কথা শুনে তার বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন কাটোয়ার রনজিৎ চট্টোপাধ্যায় নামে তৃণমূল নেতা বলে মনে করছে সমালোচক মহলের একাংশ।

এদিন এই প্রসঙ্গে সেই রনজিৎ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়কে কাটোয়ার মানুষ নেতা বানিয়েছেন। তাই এখানে অন্যজেলার লোকের খবরদারি মানা মুশকিল।” অন্যদিকে দল কাকে কোন পদে রাখবে, তা দলই ঠিক করবে বলে জানিয়ে দিয়েছেন রবীন্দ্র নাথ চট্টোপাধ্যায়।

তবে এই ব্যাপারে অনুব্রত মণ্ডল বলেন, “পূর্ব বর্ধমানের পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিমের সঙ্গে কথা বলেই যাবতীয় সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।” সব মিলিয়ে এবার নিজের গড়ে ভোটে হেরে যাওয়ার পর কাটোয়ার পর্যবেক্ষক তিনি হবেন শুনে তৃণমূলের দাপুটে নেতা হিসেবে পরিচিত অনুব্রত মণ্ডলকে পর্যবেক্ষক হিসেবে মানতে নারাজ তৃণমূলেরই একাংশ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!