এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > স্বপ্নের স্কাইওয়াকের উদ্বোধনেও জাতপাতের রাজনীতি নিয়ে বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর

স্বপ্নের স্কাইওয়াকের উদ্বোধনেও জাতপাতের রাজনীতি নিয়ে বিজেপিকে তীব্র আক্রমণ মুখ্যমন্ত্রীর

অবশেষে রাজ্যবাসীর দীর্ঘদিনের স্বপ্ন পূরণ করে গতকাল দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের স্কাইওয়াকের উদ্বোধন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু স্কাইওয়াক প্রকল্পের এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেও এসেও এদিন মুখ্যমন্ত্রীর গলায় ছিল বিজেপি বিরোধিতার চওড়া সুর। ধর্মের নামে মানুষের মধ্যে ভেদাভেদ যে তিনি বরদাস্ত করবেন না তা বারে বারে স্পষ্ট করেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী।

এদিন দক্ষিণেশ্বর মন্দিরের এই অত্যাধুনিক প্রকল্পের উদ্বোধন করে মঞ্চে বক্তৃতা দেওয়ার সময় নিজের সেই ভাবনার কথাই তুলে ধরলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই স্কাইওয়াক প্রকল্পটিকে তৈরি করতে প্রথমদিকে প্রবল সমস্যার মুখোমুখি হতে হয়েছিল রাজ্য সরকারকে। আইনি জটিলতায় বারবার এই প্রকল্পের কাজে ঢিলেমি হয়েছে।

এদিন সেই কথা উল্লেখ করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “স্কাইওয়াক প্রকল্প তৈরীর জন্য আমাদেরকে হাইকোর্ট পর্যন্ত লড়তে হয়েছে। তিনটে পার্টি জগাই, মাধাই আর গদাই হকারদের বারবার ভুল বুঝিয়েছে।” কিন্তু হাইকোর্টের রায় যে সরকারের পক্ষেই গেছে তা এদিন উল্লেখ করে রাজ্যের তিন বিরোধী দলকে প্রবল খোঁচা দেন তিনি। আর এরপরই গেরুয়া শিবিরের উদ্দেশ্যে কটাক্ষ ছুড়ে দেন বাংলার প্রশাসনিক প্রধান। সম্প্রীতির পিঠস্থল এই বাংলায় রাজ্যের পুরমন্ত্রী তথা সংখ্যালঘু মুখ বলে পরিচিত ফিরহাদ হাকিমকে তারকেশ্বর মন্দিরের উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান করলে তার বিরোধিতা করেন গেরুয়া শিবিরের অনেকেই।

এদিন সেই প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “অনেকে বলেছিল ফিরহাদ হাকিমকে কেন তারকেশ্বর মন্দিরের উন্নয়ন কমিটির চেয়ারম্যান করা হবে? আরে বাবা উন্নয়নের কি কখনো হিন্দু মুসলমান হয়?” আর এরপরই সরাসরি বিজেপির দিকে তোপ দেগে মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য, “ওরা নকল গেরুয়া। শুধু হিন্দু হিন্দু করছে। মাথায় রাখবেন, গেরুয়া বসন পড়লেই সাধু হয় না। মনটাও সাধু হওয়া দরকার।” পাশাপাশি আসল গেরুয়াধারী সন্ন্যাসী হিসেবে মঞ্চে উপস্থিত বেলুড় মঠের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুবীরানন্দ মহারাজকে এদিন দেখিয়ে দেন তিনি।

রাজনৈতিক মহলের মতে, সামনেই লোকসভা ভোট। আর সেখানে কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে সরাতে ব্রতী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন দক্ষিণেশ্বরের মন্দিরে এসেও বিভাজনের রাজনীতিতে সেই বিজেপিকেই কটাক্ষ করে বাংলার মানুষের সমর্থন ফের নিজের দিকে নিয়ে আসার চেষ্টা করলেন। তবে শুধু বিজেপির উদ্দেশ্যে তোপ দাগাই নয়, এদিনের অনুষ্ঠান থেটকে একগুচ্ছ উন্নয়ন প্রকল্পেরও ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী। দক্ষিণেশ্বরের আদলে আগামী দিনে কালীঘাটেও এই স্কাইওয়াক তৈরি হবে বলে দক্ষিণেশ্বরের এই নবনির্মিত স্কাইওয়াককে পরিষ্কার রাখতে কামারহাটি পৌরসভাকে নির্দেশ দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

পাশাপাশি স্কাইওয়াক তৈরি হলেও তাতে যাতে ব্যবসায়ীদের স্টল পেতে কোনরূপ অসুবিধে না হয় সে জন্য আগামী সাত দিনের মধ্যে সমস্ত ব্যবসায়ীদের স্টল দিয়ে দেওয়ারও ঘোষণা করেন তিনি। সব মিলিয়ে একদিকে বিভাজনের রাজনীতিতে বিজেপিকে কটাক্ষ আর অন্যদিকে বাংলার তীর্থক্ষেত্রগুলির উন্নয়নে সরকারের পদক্ষেপের কথা বলে এদিন দক্ষিণেশ্বরের স্কাইওয়াক প্রকল্পের উদ্বোধনে এসে সকলের মন জয় করে নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!