এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শিক্ষাবন্ধুদের আন্দোলনের জেরে একলপ্তে 40 শতাংশ বেতন বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

শিক্ষাবন্ধুদের আন্দোলনের জেরে একলপ্তে 40 শতাংশ বেতন বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার

দীর্ঘদিন ধরেই সর্বশিক্ষা মিশনের আওতাধীন কর্মীদের বেতন বাড়ানো নিয়ে সরকারের কাছে নানা দাবি দাওয়া আসছিল। আর এবার সেই আবেদনে সাড়া দিয়ে সেই সর্বশিক্ষা মিশনের কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করল রাজ্য সরকার।

সূত্রের খবর, গতকাল এক সাংবাদিক বৈঠক করে শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় এই সর্বশিক্ষার অধীনে কর্মরত শিক্ষাবন্ধু এবং ম্যানেজমেন্ট স্টাফদের 40 শতাংশ বেতন বৃদ্ধি করার কথা জানিয়েছেন। আর শিক্ষামন্ত্রীর এই ঘোষণার পরই এদিন সন্ধ্যায় সরকারের পক্ষ থেকে এই ব্যাপারে একটি নির্দেশিকাও জারি করা হয়।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, সারা রাজ্যে প্রায় 3 হাজার 932 জন শিক্ষাবন্ধু এবং প্রায় 2 হাজার 462 জন ম্যানেজমেন্ট স্টাফ রয়েছে। ফলে সরকারের এহেন ঘোষণায় রাজ্যের সর্বশিক্ষা মিশনের আওতাধীন প্রায় সাড়ে 6 হাজার কর্মী উপকৃত হবেন বলেই মনে করছেন সকলে। এতদিন এই সমস্ত বিভাগের কর্মীরা ন্যূনতম 8190 টাকা এবং সর্বোচ্চ 30 হাজার 841 টাকা করে বেতন পেতেন। কিন্তু এবার সরকারের পক্ষ থেকে এই সমস্ত কর্মীদের 40 শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধি করায় এই শিক্ষা বন্ধুদের বেতন 5 হাজার 994 টাকা থেকে বেড়ে 8392 টাকা হয়েছে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে ম্যানেজমেন্ট কর্মীদের বেতনের ব্যাপারে যার যেরকম বেতন সেই বেতনের ওপরই 40 শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়েছে। যা নিয়ে কিছুটা ক্ষুব্ধ অনেকেই। একাংশের মতে, 40 শতাংশ বৃদ্ধি হলেও এটা একপ্রকার বঞ্চনা ছাড়া আর কিছুই নয়। শিক্ষা বন্ধুদের বেতন দেওয়া হলেও ম্যানেজমেন্ট কর্মীদের সবার বেতন তো এক নয়! ফলে কি করে এই সাদৃশ্য পূরণ হবে! তবে শিক্ষামন্ত্রীর তরফে অবশ্য এই সমস্ত দাবিকে উড়িয়ে দিয়ে সমহারেই বেতন বৃদ্ধি হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। অন্যদিকে এদিনের এই সাংবাদিক বৈঠকে কর্মরত শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের পরীক্ষা নিয়ে এনআইওএসের বিরুদ্ধেও প্রবল তোপ দেগেছেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

এদিন এই ব্যাপারে তিনি বলেন, “এনআইএসএর পরীক্ষার প্রশ্ন রাজ্যের একটি সেন্টারে ফাঁস হয়ে গিয়েছিল বলে কেন্দ্রীয় সংস্থা সেখানকার পরীক্ষাই বাতিল করে দিয়েছে। কিন্তু অন্যান্য রাজ্যে তা করা হয়নি। আমরা এই ব্যাপারে প্রাথমিক শিক্ষা সংসদের সঙ্গে কথা বলেছি। শিক্ষা দপ্তরের সচিব এনআইওএসএর কাছে চিঠি দিয়ে এই পরীক্ষার সময় পরিবর্তন করার আর্জি জানাবেন।”

সব মিলিয়ে এবার লোকসভা ভোটের আগে প্রথমে কৃষক বন্ধু, পরবর্তীতে কলেজের অধ্যাপক, বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের অবসরের বয়স বৃদ্ধি এবং তারপর অবশেষে দীর্ঘদিনের দাবি মেনে সর্বশিক্ষা মিশনের কর্মীদের বেতন বৃদ্ধি করে এ যেন সাধারণের মন জয়ের চেষ্টা করলেন রাজ্যের মা-মাটি- মানুষের সরকার।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!