এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > রহস্য বাড়িয়ে এবার পারিবারিক ব্যবসা থেকেও নিজের অংশীদারিত্ত্ব ছাড়লেন মেয়র

রহস্য বাড়িয়ে এবার পারিবারিক ব্যবসা থেকেও নিজের অংশীদারিত্ত্ব ছাড়লেন মেয়র



একটার পর একটা গুগলি দিয়েই যাচ্ছেন কলকাতার মহানাগরিক তথা রাজ্যের গুরুত্ত্বপূর্ন মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়। তাঁর স্ত্রী রত্না চট্টোপাধ্যায় টাকা নয়ছয় করেন এবং তাঁর স্ত্রীর করা খরচের বহর তাঁর পক্ষে সামাল দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না এই অভিযোগ তুলে আদালতে গিয়ে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা রুজু করেছিলেন কলকাতার মেয়র। আর এবার তিনি আইনত পারিবারিক ব্যবসার শেয়ার ছাড়লেন, আর যা হস্তান্তর হয়ে এল তাঁর পুত্রের নামে।
সূত্রের খবর, মহেশতলা-রামপুর এলাকায় প্রায় দুলক্ষ বর্গফুটের গুদামঘর রয়েছে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের শশুর বাড়ির এবং এতদিন সেখানে তিনিও শেয়ারহোল্ডার ছিলেন। আলিপুর জেলা আদালতে স্ত্রীর সঙ্গে বিবাহ বিচ্ছেদের মামলা রুজু করার বেশ কিছুদিন আগেই নাকি শোভন বাবু তাঁর শ্বশুর দুলাল দাস ও তাঁদের যৌথ ব্যবসার অংশীদারি থেকে নিজের নাম প্রত্যাহারের ইচ্ছা প্রকাশ করেন এবং দুলাল বাবুও নাকি তৎক্ষণাৎ তাতে সম্মতি দেন। পরবর্তীকালে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের শশুর দুলাল দাস জানান, শোভনের নামে যে শেয়ার ছিল, তা সপ্তর্ষির (দুলাল বাবুর নাতি এবং শোভনবাবু-রত্নাদেবীর পুত্র) নামে করা হয়েছে, আইনি পদ্ধতিও সম্পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। আর এই ঘটনা সামনে আসার পরে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মত, শোভন বাবু রত্নাদেবীর নামে টাকা নয়ছয় ও লাগামহীন খরচের অভিযোগ করেছেন, অথচ এই গুদামঘরের ব্যবসায় রত্নাদেবীর যা শেয়ার আছে তাতেই তিনি সাবলম্বী, তাহলে পুরো ব্যাপারটির মধ্যে কি কোনো অন্য রহস্য আছে?

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!