এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > রায়গঞ্জে এখনও প্রচারে নামেননি “তুরুপের তাস”, দীপার সঙ্গে লড়াইয়ে চাপ বাড়ছে সেলিমের

রায়গঞ্জে এখনও প্রচারে নামেননি “তুরুপের তাস”, দীপার সঙ্গে লড়াইয়ে চাপ বাড়ছে সেলিমের

বহু চেষ্টা করেও শেষ পর্যন্ত আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাম এবং কংগ্রেস জোট করতে পারেনি। ফলে পৃথক পৃথকভাবেই রাজ্যে লড়াই করছে তারা। আর রাজ্যের এই চতুর্মুখী লড়াইয়ে এখন জমে উঠেছে রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের রাজনৈতিক লড়াই।

একদিকে এখানে তৃণমূলের তরফে প্রার্থী হচ্ছেন কানাইয়ালাল আগরওয়াল, অন্যদিকে বিজেপির তরফে দেবশ্রী চৌধুরী, আর অপরদিকে কংগ্রেসের তরফে দীপা দাশমুন্সি এবং বামেদের তরফে গতবারের বিদায়ী সাংসদ মহম্মদ সেলিম। কিন্তু গতবার জয়ের সময় উত্তরদিনাজপুর জেলার চাকুলিয়া বিধানসভার ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক আলি ইমরান রমজ ওরফে ভিক্টরকে সব সময় মহম্মদ সেলিমের পাশে দেখা গেলেও এবারে সেইভাবে সেই ভিক্টর প্রচারে না নামায় রাজনৈতিক মহলে তৈরি হয়েছে ধন্দ।

অনেকে বলছেন, এই ভিক্টরের হাত ধরেই চাকুলিয়া বিধানসভা দখল করা সম্ভব হয়েছে। এমনকি বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনে জেলা পরিষদের একটি আসন এই চাকুলিয়া থেকেই এসেছে। ফলে সেই ভিক্টর যদি আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে দলীয় প্রার্থী মহম্মদ সেলিমের হাতকে শক্ত না করেন তাহলে জয়লাভ অনেকটাই এখানে শক্ত হয়ে দাড়াবে বামেদের পক্ষে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, সম্প্রতি চাকুলিয়ায় ফরওয়ার্ড ব্লক বিধায়ক ভিক্টরের সঙ্গে এখানকার রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সির নাকি কথা হয়েছে। আর দুজনের এই কথোপকথনেই একাংশের মনে জল্পনা তৈরি হয়েছে যে, তাহলে কি ভিক্টরবাবু এবার ভোটে নিরব থেকে আদতে কংগ্রেসকেই সমর্থন করছেন? তবে এই সমস্ত জল্পনাকে উড়িয়ে দিয়েছেন উত্তর দিনাজপুর জেলা সিপিএমের সম্পাদক অপূর্ব পাল।

তিনি বলেন, “ভিক্টর চাকুলিয়া ও গোয়ালপুকুরে এলাকায় কাজ করছে। গোটা রাজ্য পরিবর্তনের হাওয়াতেও চাকুলিয়াতে ফরওয়ার্ড ব্লকের দুর্গ ভাঙ্গা যায়নি। ওর নেতৃত্বে এবারও আমরা ভালো ফল করব।” কিন্তু কেন তাঁকে এখনও সেইভাবে দলীয় প্রার্থী মহম্মদ সেলিমের সমর্থনে প্রচারে দেখা যাচ্ছে না? এদিন এই প্রসঙ্গে সেই চাকুলিয়া বিধানসভা কেন্দ্রের বাম বিধায়ক ভিক্টর বলেন, “নির্বাচনের আগে নানা রকম গুজব ছড়ায়। বিরোধী নেতারা হালে পানি পাওয়ার জন্য ভোটের হাওয়ায় নানা রকম কথা ছড়িয়ে দেয়। ব্যক্তিগত কিছু সমস্যার কারণে এখন বাড়িতে আছি। দল চাকুলিয়াতে যেসব কর্মসূচি করছে, আমি সেখানে উপস্থিত থাকছি। পরবর্তীতে প্রার্থীর পক্ষেও প্রচারে যাব।”

কিন্তু দীপাদেবীর সাথে কি তার কোনো যোগাযোগ হয়েছে? এদিন এই প্রশ্নের উত্তরে সেই বাম বিধায়ক বলেন, “শুধু দীপাদেবী কেন, একসময় তৃণমূলের তাবড় নেতারা আমার সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন। নেতাদের মধ্যে তো আলোচনা হতেই পারে। এনিয়ে অযথা জলঘোলা হচ্ছে।” তবে ভিক্টরের সঙ্গে তাঁর কোনো যোগাযোগ হয়নি বলে গোটা ব্যাপারটি এড়িয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন রায়গঞ্জ লোকসভা কেন্দ্রের কংগ্রেস প্রার্থী দীপা দাশমুন্সি। সব মিলিয়ে এবার পাকাপাকিভাবে দলীয় প্রার্থী মহম্মদ সেলিমের সমর্থনে ঠিক কবে প্রচারে দেখা যায় চাকুলিয়া বিধানসভা কেন্দ্রের বাম বিধায়ক আলি ইমরান রমজ ওরফে ভিক্টরকে! এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!