এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা থেকে গোপন তথ্য পাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার দুর্গাপুরের বাঙালি বিজ্ঞানী

কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা থেকে গোপন তথ্য পাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার দুর্গাপুরের বাঙালি বিজ্ঞানী


এবার কেন্দ্রীয় সরকারের সংস্থা থেকে গোপন তথ্য বাইরে ফাঁস হয়ে যাওয়ায় গ্রেপ্তার করা হল সেই সংস্থায় কর্মরত দুর্গাপুরের বাঙালি বিজ্ঞানী রুদ্র চট্টোপাধ্যায়কে। কিন্তু হঠাৎ কী অভিযোগে এই বাঙালি বিজ্ঞানীকে গ্রেপ্তার করা হল? জানা গেছে, দুর্গাপুরের কেন্দ্রীয় সরকারের সংস্থা সেন্ট্রাল মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং রিসার্চ ইন্সটিটিউটে কাজ করতেন এই রুদ্র চট্টোপাধ্যায়।

অভিযোগ, দুর্গাপুরে কাজ করার সময় তিনি এই সংস্থার বেশ কিছু গোপন তথ্য সংবাদমাধ্যমের হাতে তুলে দিয়েছিলেন। আর এই ঘটনাটি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের নজরে আসার সাথে সাথেই তা মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রকে জানানো হয়।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে দুর্গাপুরে কাজ করবার পর বিগত দু মাস আগেই একটি প্রোজেক্ট নিয়ে পাঞ্জাবের লুধিয়ানায় বদলি করে দেওয়া হয় সেই রুদ্র চট্টোপাধ্যায়কে। এদিকে সংস্থার গোপন তথ্য বাইরে পাচারের অভিযোগে দুর্গাপুর থানায় নির্দিষ্টভাবে কারও নাম নিয়ে অভিযোগ করা না হলেও অজ্ঞাতপরিচয় ব্যক্তির বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ সেখানে দায়ের করা হয়।

আর এই অভিযোগের ভিত্তিতেই অবশেষে রবিবার সন্ধ্যায় দমদম বিমানবন্দর থেকে সেই বাঙালি বিজ্ঞানী রুদ্র চট্টোপাধ্যায়কে গ্রেপ্তার করে দুর্গাপুর থানার পুলিশ। তবে কেন তাকে গ্রেফতার করা হলো তা জানতে সেই কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থার ডিরেক্টরের বিরুদ্ধে ভিজিল্যান্স কমিশন এবং সিবিআইয়ের কাছে এদিন তিনি একটি অভিযোগ জানিয়েছেন বলে জানান সেই রুদ্রবাবু।

পাশাপাশি তিনি এই ঘটনার চরম বিরোধিতাও করেন।সব মিলিয়ে এবার কেন্দ্রীয় সরকারি সংস্থা থেকে গোপন তথ্য পাচারের অভিযোগে গ্রেপ্তার হলেন দুর্গাপুরের বাঙালি বিজ্ঞানী রুদ্র চট্টোপাধ্যায়।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!