এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > স্কুল ছাড়ার হিড়িক বাড়ছে ছাত্রীদের, কন্যাশ্রী দিবসের আগে প্রবল অস্বস্তিতে রাজ্য

স্কুল ছাড়ার হিড়িক বাড়ছে ছাত্রীদের, কন্যাশ্রী দিবসের আগে প্রবল অস্বস্তিতে রাজ্য

ছাত্রীদের আরও বেশি করে বিদ্যালয়মুখী করতে ক্ষমতায় আসার পর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় মেয়েদের জন্য চালু করেছিলেন কন্যাশ্রী প্রকল্প। যে প্রকল্পে রাজ্য আন্তর্জাতিক খেতাব অর্জন করেছিল। আর বিভিন্ন সময়ে তাদের গড়া এই কন্যাশ্রী প্রকল্প নিয়ে গর্ববোধ করতে দেখা যেত রাজ্যের শাসকদলের নেতা, মন্ত্রীদের। কিন্তু এবার এই সম্পর্কে একটি রিপোর্ট যেন বড়সড় অস্বস্তিতে ফেলে দিল রাজ্য প্রশাসনকে।

বস্তুত, সম্প্রতি ছাত্রীদের মধ্যে স্কুল ছাড়ার প্রবণতা রুখতে “গো টু ভিলেজ” প্রকল্পে কন্যাশ্রীদের সঙ্গে আলাদাভাবে কথা বলতে দেখা যাচ্ছে প্রশাসনকে। আর সেই কথোপকথনেই উঠে এসেছে এক চাঞ্চল্যকর তথ্য। যেখানে কন্যাশ্রীরা স্কুল না যাওয়ার কারণ হিসেবে বিদ্যালয় শৌচাগার না থাকার সমস্যাকেই বেছে নিয়েছেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

তাদের বক্তব্য, বিদ্যালয়ে শৌচাগার না থাকার জন্য দিনে 6 ঘণ্টার বেশি তাদের পক্ষে স্কুলে কাটানো কঠিন হয়ে পড়ে। ঋতুর দিনগুলোতে আরও সমস্যা বাড়ে। আর এর ফলে প্রতিনিয়ত তাঁরা স্কুলে উপস্থিত না থাকতে পেরে ক্রমাগত পড়াশোনায় পিছিয়ে যাচ্ছে। যার জেরে পুরুলিয়া জেলায় কন্যাশ্রীদের মধ্যে স্কুল ছুটের সংখ্যা দিনকে দিন বেড়েই চলেছে।

কিন্তু হাতে আর কদিন বাকি। তারপরই আগামী 14 আগস্ট কন্যাশ্রী দিবস। সেই কন্যাশ্রী দিবসের আগে এই রিপোর্ট রীতিমতো চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে পুরুলিয়া জেলা প্রশাসনের অন্দরে। দেখা গেছে, 13 থেকে 18 বছরের ছাত্রীদের মধ্যেই এই স্কুল ছাড়ার প্রবণতা সব থেকে বেশি। যার প্রধান এবং প্রথম কারণ হিসেবে শৌচাগার না থাকাকেই দায়ী করছেন একাংশ।

এদিন এই প্রসঙ্গে মানবাজার রাধামাধব শিক্ষায়তনের ছাত্রী থেকে শুরু করে ঝালদা দু’নম্বর ব্লকের বেগুনকোদরের কন্যাশ্রীরাও স্কুল না যাওয়ার কারণ হিসেবে শৌচাগার না থাকাকে দায়ী করেছেন। এদিকে ইতিমধ্যেই শৌচাগার না থাকা স্কুলের তালিকা তৈরির নির্দেশ দিয়েছেন পুরুলিয়ার জেলাশাসক রাহুল মজুমদার। এদিন তিনি বলেন, “স্কুলে শৌচাগার না থাকার বিষয়ে কন্যাশ্রীরা যে তথ্য দিয়েছে, তা সত্যিই উদ্বেগের। এই সমস্যার দ্রুত সমাধান করতে হবে।”

Top
error: Content is protected !!