এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > সবংয়ে ‘ধান্দাবাজদের’ নিয়ে বিস্ফোরোক মন্তব্যে তৃনমূলের অস্বস্তি বাড়ালেন হেভিওয়েট নেতা

সবংয়ে ‘ধান্দাবাজদের’ নিয়ে বিস্ফোরোক মন্তব্যে তৃনমূলের অস্বস্তি বাড়ালেন হেভিওয়েট নেতা

রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় বিরোধীদের সাথে শাসকদলের লড়াই অপেক্ষা শাসক বনাম শাসকের লড়াইয়ে উত্তপ্ত হয়েছে এলাকা। 2011 সালে রাজ্যের রাজনৈতিক পালাবদলের পর থেকেই একের পর এক বিরোধী দলের দাপুটে কর্মীরা নাম লেখ্তে শুরু করেছেন ঘাসফুল শিবিরে। আর এরফলে পুরোনো বনাম নতুনের দ্বন্দ্বে বিভিন্ন জায়গায় তৃনমূলের গোষ্টীদ্বন্দ্বে উত্তপ্ত হচ্ছে। বেশ কিছুদিন আগে দলের কোর কমিটির বৈঠকে প্রতিটি জেলার নেতাদের কড়া হাতে গোষ্টীদ্বন্দ্ব বন্ধ করবার নির্দেশ দিয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু তারপরও একের পর এক এলাকায় ছড়িয়েছে উত্তেজনা। এবার 21 শে জুলাইয়ের সমর্থনে মেদিনীপুরের দশগ্রাম ও তেমাথানিতে তৃনমূলের জেলাপরিষদের বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষ অমূল্য মাইতির কথায় ফের অস্বস্তিতে পড়ল শাসকদল। এদিন তিনি বলেন, “সবংয়ের কিছু ধান্দাবাজ দলে ঢুকে দলের পতাকা ব্যাবহার করে চাকরি দেওয়ার নামে টাকা তুলছে।” এজন্য কর্মীদের সজাগ থাকারও আহ্বৃন জানান জেলাপরিষদের এই বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষ। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, অনেকদিন হয়ে গেল সবংয়ের কংগ্রেস বিধায়ক মানস ভুঁইয়া তৃনমূলে যোগদান করেছেন। এরপর বিধায়ক পদ ছেড়ে এখন তৃনমূলের টিকিটে তিনি রাজ্যসভার সাংসদ। কিন্তু 21 শে জুলাইয়ের প্রচারে সেই মানস ভুঁইয়ার সাথে না থেকে নিজের অনুগামীদের নিয়ে পৃথকভাবে সভা করে আদতে কার দিকে অভিযোগের আঙুল তুললেন অমূল্য মাইতি?

যদিও বা এই প্রসঙ্গে তৃনমূলের এই বিদায়ী কর্মাধ্যক্ষ বলেন, “আমি তো কারও নাম করে বলিনি। তাই এতে কারও ক্ষোভ হওয়ারও কথা নেই। যারা দলের পতাকা ব্যাবহার করে এসব করবে তাঁদের চিহ্নিত করে পুলিশে ধরিয়ে দেব আমরা।” সব মিলিয়ে কারও নাম না তুললেও এভাবে দলেরই লোকদের কাউকে আক্রমন করায় 21 শে জুলাইয়ের শহীদ দিবসের অনুষ্টানের আগে বড়সড় অস্বস্তিতে তৃনমূল কংগ্রেস।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!