এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > খুন হওয়ার ঠিক 10 মিনিট আগে 1 বছরের পুত্রকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন সত্যজিৎ বিশ্বাস – কাকতালীয়? খুঁজে দেখছে পুলিশ

খুন হওয়ার ঠিক 10 মিনিট আগে 1 বছরের পুত্রকে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন সত্যজিৎ বিশ্বাস – কাকতালীয়? খুঁজে দেখছে পুলিশ

বাগদেবীর আরাধনায় যখন গোটা রাজ্য মত্ত হয়ে উঠেছে, ঠিক তখনই নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের শরীরে গুলি লেগে তাঁর মৃত্যুর ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়েছে সর্বত্র।

জানা যায়, খুন হওয়ার মাত্র 10 মিনিট আগে তৃণমূলের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস তাঁর ছোট্ট ছেলে জিৎকে পরিচিত একজনের সাথে বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। তাহলে কি সত্যিই মৃত্যু তাঁর দুয়ারে কড়া নাড়ছিল তা বুঝেই কোনো এক অজান্তে নিজের ছেলেকে বাড়ি পাঠিয়ে দিয়েছিলেন নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের এই তৃণমূল বিধায়ক! এই প্রশ্ন মনে করেই এখন শোকস্তব্ধ গোটা কৃষ্ণগঞ্জ।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত রবিবার হাঁসখালি থানার ফুলবাড়ি ময়দানে নিজের পাড়ার সরস্বতী পুজো থাকার কারণে আর কোনো কর্মসূচি রাখেননি নদীয়ার কৃষ্ণগঞ্জের বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস। সারাদিন এলাকাতেই ছিলেন তিনি। আর এরপর বিকেলে বাড়ি থেকে দুই মিনিট হেঁটে স্থানীয় ক্লাবের উদ্যোগে আয়োজিত সরস্বতী পূজার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে দেখা যায় তাঁকে।

হাতের মুঠোয় আরও সহজে প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে যোগ দিন –

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

আর এরপরই সেখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের নিয়ে এসে মঞ্চ পর্যন্ত সমস্ত কিছু তদারকিও করেছিলেন সেই সত্যজিৎ বিশ্বাস। আর এরপর দর্শক আসনে বসে নিজের ছেলেকে নিয়ে মঞ্চের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান দেখছিলেন নদীয়ার নিহত তৃনমূল বিধায়ক।

কিন্তু হঠাৎই রাত 8 টা 20 নাগাদ পরিচিত একজনকে দিয়ে নিজের ছোট্ট ছেলে জিৎকে বাড়ি পাঠিয়ে দেন সত্যজিৎ বিশ্বাস। আর ছেলেকে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়ার 10 মিনিটের মধ্যেই হঠাৎই গুলি লেগে মাটিতে লুটিয়ে পড়েন সেই সত্যজিৎ বিশ্বাস। আর এই ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে গোটা এলাকায়।

এদিকে ঘটনার 30 মিনিট পরে এলাকায় আসে পুলিশ। মোতায়েন করা হয় বিশাল পুলিশ বাহিনী। এদিকে এলাকায় প্রিয় মানুষ হিসাবে পরিচিত তৃনমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাসের নিথর দেহ তাঁর বাড়িতে আসার সাথে সাথেই শোকার্ত পরিবেশের আকার নেয় গোটা এলাকা।

নিজের বাবার মৃতদেহ দেখে এবং সকলের চোখের জল দেখে হতবাক হয়ে তাকিয়ে ছিল নিহত তৃনমূল বিধায়কের দেড় বছরের ছেলে জিৎ। গতকাল সেই নিহত সত্যজিৎ বিশ্বাসের প্রতি শেষ শ্রদ্ধা জানান শাসকদলের নেতা মন্ত্রীরা। সব মিলিয়ে সরস্বতী পূজার দিন নদীয়ার কৃষ্নগঞ্জের তৃনমূল বিধায়ক সত্যজিৎ বিশ্বাস খুনে শোকসন্তপ্ত গোটা পরিবেশ।

Top
error: Content is protected !!