এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > সাঁতরাগাছিতে রেলব্রিজে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু, বিস্ফোরক মুখ্যমন্ত্রী, ঘোষণা ক্ষতিপূরণের

সাঁতরাগাছিতে রেলব্রিজে পদপিষ্ট হয়ে মৃত্যু, বিস্ফোরক মুখ্যমন্ত্রী, ঘোষণা ক্ষতিপূরণের

কর্তব্যে গাফিলতির নিয়ে গেলেই প্রতি অভিযোগ তুললেন প্রাক্তন রেলমন্ত্রী তথা পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রেল মন্ত্রকে কাজ করার দরুন তিনি রেলের প্রতি সহানুভূতিশীল কিন্তু তা সত্বেও বলেন সম্প্রতি ঘটা দুর্ঘটনাগুলোর দায় কিছুতেই এড়াতে পারেনা রেল তাদের আরও দায়িত্ববান হতে হবে।
মঙ্গলবার সন্ধ্যায় একদিকে রেডরোডে যখন চলছে আলোই মোড়া পুজো কার্নিভাল।

অন্যদিকে তখন সাঁতরাগাছি স্টেশন এ ঘটে যায় এক ভয়াবহ দুর্ঘটনা। মঙ্গলবার ৬ টা নাগাদ হাঁটাতে একসঙ্গে ঢুকে পড়ে দুটি দূরপাল্লার ট্রেন । সেইমত একইসঙ্গে ঘোষণা হয় দুটি ট্রেন আসার কথাও। এই ঘোষণায় যাত্রীরা হুড়োহুড়ি করে প্লাটফর্মে পৌঁছানোর চেষ্টা করেন। আর তখনই দুই ও তিন নম্বর প্ল্যাটফর্মের সংযোগকারী ফুটবে যে ঘটে যায় দুর্ঘটনা। তাড়াহুড়ো করতে গিয়ে অনেকেই পড়ে যান ফুটব্রিজ থেকে। এমনকি শিশুরা পর্যন্ত রেহাই পায়নি। ঘটনার জেরে ২ জন শিশুসহ মোট ১৪ জন আহত।এই ঘটনার জন্য অনেকেই রেলের দায়িত্বজ্ঞানহীনতা এবং একসঙ্গে দুটি রেলের ঘোষণা কে দায়ী করছেন। সেই প্রসঙ্গে সুর চড়ালেন মুখ্যমন্ত্রীও।

দুর্ঘটনার সময় রেডরোডে পুজো কার্নিভাল ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান তিনি। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বলেন”দীর্ঘদিন রেলমন্ত্রকে কাজ করার সুবাদে রেলকে আমি নিজের পরিবারের মতোই মনে করি। আমি জানি রেলে অনেক সূক্ষ্ম কারিগরি সমস্যা আছে। কিন্তু তা সত্ত্বেও বলতেই হয় কোথাও একটা গাফিলতি ছিলই। রেলের আরো দায়িত্ববান হওয়া উচিত ছিল।” মুখ্যমন্ত্রী ক্ষোভ প্রকাশ করে আরও বলেন”সম্প্রতি রেলে একাধিক দুর্ঘটনা ঘটছে। অমৃতসরের ঘটনার দায় কেউ নিতে চাইছে না। এরাজ্যে চারজন বিজেপি কর্মী রেল অবরোধ করলেও রেল দাঁড়িয়ে যায় অথচ অত মানুষ দেখেও রেল দাঁড়ালো না কেন? কোথাও একটা নিজেদের মধ্যে সমন্বয়ের অভাব রয়েছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো  করুন এই লিঙ্কেখবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক

এদিন ঘটনাস্থল পরিদর্শনের পর মৃত ব্যক্তির পরিবার পিছু ৫ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেন মুখ্যমন্ত্রী পাশাপাশি গুরুতর আহতদের জন্য ১ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ ঘোষণা করেন তিনি। তার সাথে এও জানান আহত ব্যক্তিদের চিকিৎসায় সর্বতোভাবে সাহায্য করবে রাজ্য সরকার। ঘটনা তদন্ত করা হবে বলে আশ্বাস দেন তিনি। এর পরে আহতদের হাসপাতালে দেখতে যান। উৎসবের মরশুম এমন একটি দুর্ঘটনায় সভাপতির শোকের ছায়া পড়েছে শহর তথা রাজ্যে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!