এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের জন্য এবার বিশেষ ব্যবস্থার পথে রাজ্য সরকার – জানুন বিস্তারিত

সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের জন্য এবার বিশেষ ব্যবস্থার পথে রাজ্য সরকার – জানুন বিস্তারিত

লোকসভা ভোটের মুখে সংখ্যালঘু ছাত্রছাত্রীদের বিভিন্ন জনস্বার্থমুখী প্রকল্পের সুবিধা পাইয়ে দিতে এবার অভিনব উদ্যোগ নিল রাজ্য সরকার। সরকারি টাকা নয়ছয়ের অভিযোগ বহুদিনের। এবার সেই অভিযোগ থেকে মুক্তি পেতে রাজ্য সরকারের সহায়তার অর্থ সরাসরি সংশ্লিষ্টদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে জমা করার সিদ্ধান্ত নিল রাজ্যসরকার।

রাজ্যের অর্থ দপ্তরের এই অত্যাধুনিক ব্যবস্থার জন্যে সংখ্যালঘু ছেলেমেয়েদের স্কলারশিপের টাকা এবার একলম্ফে পৌছে যাবে তাদের অ্যাকাউন্টে। সেই একই পদ্ধতিতে রাজ্য সরকারের সাহায্যপ্রাপ্ত মাধ্যমিক স্কুল,পঞ্চায়েত এবং লোকাল বডির অাওতাধীন স্কুলের কর্মীদের কাছেই আর্থিক সহায়তা এবং বেতন দ্রুত পৌছে যাবে।

এ প্রসঙ্গে অর্থ দপ্তরের এক শীর্ষ কর্তার বক্তব্য,তৃণমূল কংগ্রেস রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর অর্থ দপ্তরের নজরকাড়া পরিবর্তন হয়েছে৷ বিভিন্ন প্রযুক্তিগত ব্যবস্থা আমদানির করার জন্যে রাজকোষ থেকে টাকা বরাদ্দ এবং খরচ করার ক্ষেত্রেও স্বয়ংক্রিয় নজরদারি ব্যবস্থাপনা তৈরি করা হয়েছে। এর ফলে অতীতে হাতে কলমে ব্যবস্থায় টাকা উল্টোপাল্টা হওয়ার যে অভিযোগ উঠত,তা এখন আর হয় না বলেই জানালেন তিনি।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

আরো বললেন,আগে সরকারি লক্ষ লক্ষ টাকা অনুদান দেওয়ার ক্ষেত্রেও নানান সমস্যা হত। সেই সমস্যার কথা মাথায় রেখে আইএমএফএসের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের ইলেক্ট্রনিক সংযুক্তিকরণ করা হচ্ছে। যার মাধ্যমে স্বল্প সময়েই বিপুল পরিমান টাকা সুবিধাভোগীদের অ্যাকাউন্টে চলে যাবে। এ প্রসঙ্গে পশ্চিমবঙ্গ সংখ্যালঘু উন্নয়ন ও বিত্ত নিগমের (ডব্লুবিএমডিএফসি) ম্যানেজিং ডিরেক্টর মৃগাঙ্গ বিশ্বাসের তরফ থেকেও জানা গিয়েছে।

তাঁর বক্তব্য,রাজ্য সরকারের উদ্যোগে একাদশ শ্রেণী থেকে পিএইচডি পর্যন্ত ৫০ শতাংশের কম নম্বর পাওয়া প্রার্থীদের আর্থিক সাহায্য প্রদান করা হয় যাতে তারা পড়াশোনার ক্ষেত্রে বিশেষ সুবিধা এবং উৎসাহ পান। গত অর্থবর্ষে এই সুবিধাভোগীদের সংখ্যা ছিল প্রায় দু’লক্ষ। মৃগাঙ্গবাবুর দেওয়া তথ্য অনুসারে,বর্তমানে এই পোর্টাল সংযুক্তিকরণের কাজ শেষ করা হয়েছে। এর ফলে লক্ষ লক্ষ পড়ুয়া যেমন উপকার পাবেন তেমন চোখের পলকেই বিপুল পরিমান টাকা আবেদনকারীদের কাছে পৌছে দেওয়া যাবে।

উল্লেখ্য,বর্তমানে কন্যাশ্রী, যুবশ্রী (বেকার ভাতা) প্রকল্প, স্বামী বিবেকানন্দ মেরিট কাম মিনস স্কলারশিপ, জেলা পরিষদ-পঞ্চায়েত সমিতি, প্রাথমিক স্কুলে ক্ষেত্রে এই প্রযুক্তির মাধ্যমেই আর্থিক সাহায্য এবং বেতন পাচ্ছেন লক্ষাধিক সুবিধাভোগী। বুধবার অর্থ দপ্তরের তরফে জারি করা বিজ্ঞপ্তিতে [১৪৮৬-এফ(ওয়াই)]-এর তরফ থেকে জানানো হয়েছে যে অর্থ দপ্তরের ইন্টিগ্রেটেড ফিনান্সিয়াল ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (আইএমএফএস)-এর সঙ্গে নতুন করে কয়েকটি সরকারি প্রকল্প এবং সংস্থার কর্মীদের বেতনের বিষয়টি পোর্টালের মাধ্যমে সংযুক্ত করা হচ্ছে।

রাজ্যসরকারের এই ঘোষণার পর মুখে হাসি ফুটেছে রাজ্যসরকারের বিভিন্ন জনমুখী প্রকল্পের সুবিধাভোগীদের। এটাকে বিশেষজ্ঞরা লোকসভা ভোটে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভোটব্যাঙ্কে জোয়ার আনার কৌশল বলেই মনে করেছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!