এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সারদা কাণ্ডে নয়া মোর, ইডিকে চিঠি পাঠিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্তের কথা জানালেন শতাব্দী

সারদা কাণ্ডে নয়া মোর, ইডিকে চিঠি পাঠিয়ে বড়সড় সিদ্ধান্তের কথা জানালেন শতাব্দী

সারদা চিটফান্ড কান্ড নিয়ে ফের নড়েচড়ে বসেছে তদন্তকারী সংস্থা। আর সেই কারণের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব তদন্তের জাল গোটাতে চাইছেন। আর সেই কারণেই হেভিওয়েট নেতা নেত্রীদের সমেত প্রভাবশালীদের একে একে নোটিশ পাঠাচ্ছে তদন্তকারী সংস্থা।

এই নিয়ে কয়েকদিন আগেই তদন্তকারী সংস্থা তৃণমূল সাংসদকে নোটিশ পাঠিয়েছিল। কিন্তু তিনি সংসদের কাজে ব্যস্ত থাকায় যেতে পারবেন না বলে জানালে এদিন ফের তাঁকে নোটিশ পাঠায় তদন্তকারী সংস্থা। এই এর পরেই তৃণমূল সংসদ শতাব্দী রায় তদন্তকারী সংস্থা ইডিকে একটি চিঠি পাঠিয়েছেন বলে জানা গেছে।

তাতে বলা হয়েছে যে তিনি সারদা তরফে প্রভাবশালী হিসেবে তৃণমূলের যাঁদেরকে বেছে নেওয়া হয়েছিল তাঁদের মধ্যে ছিলেন শতাব্দী রায়। তাঁকে ব্র্যান্ড অ্যাম্বাসাডর করা হয়েছিল। তা নিয়েশতাব্দী রায়ের সঙ্গে চুক্তি হয়েছিল। সূত্রের খবর অনুযায়ী ইডিকে পাঠানো চিঠিতে শতাব্দী রায় জানিয়েছেন, তাঁর সঙ্গে ৪২ লক্ষ টাকার চুক্তি হয়েছিল। যার মধ্যে কর কেটে নিয়ে তিনি হাতে পেয়েছিলেন ২৯ লক্ষ টাকা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তাই সারদা থেকে তাঁর পাওয়া ২৯ লক্ষ টাকার পুরোটাই তিনি ফেরত দেবেন বলে চিঠিতে জানিয়েছেন। সাথেই জানিয়েছেন যে, ৭ই অগাষ্ট শেষ হচ্ছে সংসদের অধিবেশন। তারপরেই ইডির দফতরে নিজে এসে হাজিরা দেবেন তিনি। তখনই আধিকারিকদের হাতে তুলে দেবেন ওই টাকা। সঙ্গে জমা দেবেন প্রয়োজনীয় নথিপত্রও।

প্রসঙ্গত, সারদা কাণ্ডে নাম জড়িয়েছিল মিঠুন চক্রবর্তীরও। তবে ডাক পাওয়া মাত্রই তদন্তের একেবারে শুরু দিকে তিনি সারদা থেকে যে টাকা পেয়েছিলেন, তা ফিরিয়ে দেন। পরবর্তী সময়ে সংসদ পদ ছেড়ে দেওয়া এবং একটু একটু করে তৃণমূলের সঙ্গে নিজের সংযোগ ছিন্ন করেছিলেন মিঠুন। আর এবার সেই পথেই হাটতে চলেছেন শতাব্দী রায়। যা নিয়েই জোর জল্পনা শুরু রাজনৈতিকমহলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!