এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > শান্তনু ঠাকুরকে বিজেপি প্রার্থী করতেই উচ্ছ্বাস মতুয়াদের, প্রার্থীর সরাসরি চ্যালেঞ্জ জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে

শান্তনু ঠাকুরকে বিজেপি প্রার্থী করতেই উচ্ছ্বাস মতুয়াদের, প্রার্থীর সরাসরি চ্যালেঞ্জ জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে

অবশেষে জল্পনাই সত্যি হল। বিজেপির প্রার্থী তালিকায় বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী হিসেবে ঠাকুরবাড়ির অন্যতম সদস্য শান্তনু ঠাকুরকেই প্রার্থী করল গেরুয়া শিবির। বস্তুত, এবার এই বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রে তৃণমূলের তরফে প্রার্থী গত লোকসভার বিদায়ী সাংসদ মমতা বালা ঠাকুর সম্পর্কে সেই বিজেপি প্রার্থী শান্তনু ঠাকুরের জেঠিমা বলেই পরিচিত।

প্রসঙ্গত, গত 2015 সালে এই বনগাঁ লোকসভার উপ-নির্বাচনে ঠাকুর পরিবারের অন্যতম সদস্য প্রয়াত বীণাপাণি ঠাকুরের ছেলে মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুর তৃণমূলের মন্ত্রিত্ব ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিলে তার বড় ছেলে তথা শান্তনু ঠাকুরের দাদা সুব্রত ঠাকুর বিজেপির প্রার্থী হয়েছিলেন। তবে শেষ পর্যন্ত এখানে জয়লাভ করেছিলেন তৃনমূলের প্রয়াত কপিল কৃষ্ণ ঠাকুরের স্ত্রী মমতা বালা ঠাকুর।

আর এবার এই লোকসভা নির্বাচনে যখন মতুয়াদের ভোটব্যাংককে নিজেদের দখলে রাখতে টার্গেট নিচ্ছে বিজেপি, ঠিক তখনই সেই মঞ্জুলকৃষ্ণ ঠাকুরেরই ছোট ছেলে শান্তনু ঠাকুরকে দাঁড় করিয়ে এখানে তৃণমূলের মমতাবালা ঠাকুরের বিরুদ্ধে জোর লড়াই দিতে চাইছে গেরুয়া শিবির।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

কিন্তু বারে বারেই যখন ঠাকুর পরিবারকে রাজনীতি মুক্ত করার জন্য দাবী জানিয়েছেন শান্তনু বাবু, যখন তৃণমূলের সরকার ঠাকুর পরিবারে রাজনীতি ঢোকাচ্ছে বলে তারই জেঠিমা মমতা বালা ঠাকুর এবং মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিষোদগার করতে দেখা গেছে তাকে, সেই শান্তনু ঠাকুর কেন সরাসরি এইভাবে রাজনীতিতে যোগ দিলেন?

এদিন এই প্রশ্নের উত্তরে বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী তথা ঠাকুর পরিবারের অন্যতম সদস্য শান্তনু ঠাকুর বলেন, “আমি রাজনীতি মুক্ত করার কথা বলেছিলাম ঠিকই, কিন্তু প্রার্থী হওয়ার সিদ্ধান্ত আমার নয়। মতুয়া ভক্ত, সাধু, গোঁসাই, পাগল সকলেই আমাকে প্রার্থী হিসেবে চেয়েছিলেন। তাই তাদের দাবিকে মান্যতা দিয়েছি।”

অন্যদিকে মতুয়া পরিবার থেকে তৃণমূলের বিরুদ্ধে শান্তনু ঠাকুরকে বিজেপিকে প্রার্থী হলে এদিন তাকে কটাক্ষ করেছেন উত্তর 24 পরগনা জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা রাজ্যের খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক। এদিন তিনি বলেন, “ও আর লোভ সামলাতে পারল না। ভোটে হেরে যাওয়ার পর শান্তনু অস্ট্রেলিয়াতে পাড়ি দেবে।”

অন্যদিকে ভোটের পর আগামী দিনে জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে কেউ খুজে পাবে না বলে পাল্টা এদিন সরব হন শান্তনুবাবু। সব মিলিয়ে এবার আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বনগাঁ লোকসভা কেন্দ্রে ভাইপো বনাম জেঠিমার লড়াইয়ে শেষ পর্যন্ত কে শেষ হাসি হাসে এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

Top
error: Content is protected !!