এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > দেউচা-পাঁচামিতে রাজ্যের ঘুম ওড়াতে এবার বড়সড় পদক্ষেপ শঙ্কুদেব পাণ্ডার! জল্পনা সর্বস্তরে

দেউচা-পাঁচামিতে রাজ্যের ঘুম ওড়াতে এবার বড়সড় পদক্ষেপ শঙ্কুদেব পাণ্ডার! জল্পনা সর্বস্তরে



 

ডেউচা-পাচামি নিয়ে ফের রাজ্য সরকারের ঘুম রাতে ময়দানে নেমে পড়ল ভারতীয় জনতা পার্টি। এবার রাজ্যপালের কাছে গিয়ে এই ব্যাপারে ডেপুটেশন জমা দিলেন বিজেপির যুব নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা।

জানা গেছে, শারদ উৎসবের আগে দিল্লিতে গিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করে এই ডেউচা- পাচামিতে কয়লা ব্লক প্রকল্পের উদ্বোধনে আসার জন্য নরেন্দ্র মোদিকে অনুরোধ জানান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু এই ঘটনার পরের দিনই বিজেপির স্বপন দাশগুপ্ত এই ব্যাপারে চিঠি দেন প্রধানমন্ত্রীকে। যেখানে ওই প্রকল্পের জন্য যাদের উচ্ছেদ করা হবে, তাদের পুনর্বাসন নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ সরকার কোনো নীতি তৈরি করেনি বলে অভিযোগ জানানো হয়।

 

আর এই কারণে যেন প্রধানমন্ত্রী উদ্বোধনী সামিল না হন, তার জন্য চিঠিতে উল্লেখ করেন স্বপন দাশগুপ্ত। আর এরপর থেকেই গোটা বিষয়টি নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে স্থানীয় জনজাতির মানুষের ক্ষোভ উগরে দিতে ময়দানে নেমে পড়ে ভারতীয় জনতা পার্টি। সূত্রের খবর, এদিন সেই ব্যাপারে রাজ্যপালের সঙ্গে সেই ডেউচা-পাচামির প্রতিনিধিদের নিয়ে দেখা করেন বিজেপির শঙ্কুদেব পণ্ডা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, এদিন রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে এই জনজাতির মানুষদের নিয়ে সেই প্রতিনিধি দলে অন্তর্ভুক্ত করেন বিজেপির এই হেভিওয়েট যুব নেতা। যেখানে রাজ্যপালের কাছে অভিযোগ অনুরোধ জানানো হয় যে, কয়লা ব্লক প্রকল্পের কাজ শুরুর আগে স্থানীয় জনজাতী অধিবাসীদের স্বার্থ যাতে সুরক্ষিত থাকে, তা সরকারকে দেখতে হবে।

বিশেষ সূত্র মারফত খবর, শঙ্কুদেব পণ্ডাকে রাজ্যপাল জানিয়েছেন যে, যদি তাকে সেখানে আহ্বান নাও জানানো হয়, তা সত্ত্বেও তিনি প্রয়োজন পড়লে একবার সেই জায়গা পরিদর্শন করবেন। এদিন এই প্রসঙ্গে রাজ্যপালের সঙ্গে দেখা করার পর যুব বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা বলেন, “রাজ্যপাল সব সমস্যার কথা শুনেছেন। যদি তাকে আমন্ত্রণ জানানো হয়, তাহলে পরিস্থিতি দেখতে তিনি সেখানে যেতে পারেন রাজ্যপাল একথাও আমাদের বলেছেন।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এই ডেউচা-পাচামি নিয়ে যেভাবে বিজেপি উঠে পড়ে লেগেছে, তাতে সরকার ফের বিপাকে পড়তে পারে। কেননা রাজ্যপালের সঙ্গে রাজ্য সরকারের সম্পর্কের অবনতির কথা কারোরই অজানা নয়। তাই এই পরিস্থিতিতে বিজেপি নেতা শঙ্কুদেব পণ্ডা ডেউচা-পাচামি নিয়ে রাজ্যপালের কাছে সমস্যার কথা তুলে ধরায়, রাজ্যপালের পরবর্তী পদক্ষেপের ওপর অনেক কিছু নির্ভর করছে বলে মত রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!