এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রত্যন্ত স্থানে বদলি করলেও শাসক ঘনিষ্ঠ নেতাদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই থামবে না দাবি বাম নেতার

প্রত্যন্ত স্থানে বদলি করলেও শাসক ঘনিষ্ঠ নেতাদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াই থামবে না দাবি বাম নেতার

বর্তমান রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানালেই বা শাসক ঘনিষ্ঠ নেতাদের দুর্নীতির বিরুদ্ধে সরব হলেই চলছে ‘বদলি-সন্ত্রাস’ বলে দীর্ঘদিনের অভিযোগ বিরোধী মনোভাবাপন্ন সরকারি কর্মচারীদের। গত পাঁচ মাসে এই ধরনের তিন-তিনটি ঘটনা, যা রাজ্য-রাজনীতিতে ঝড় তুলেছে, ঘটার পর তা যেন সরকারি কর্মীদের ক্ষোভের আগুনে ঘি ঢেলেছে। লতিকা মন্ডল, বিপুল রায়ের পর এবার কলকাতা থেকে প্রত্যন্ত পাহাড়ি এলাকা কালিম্পংয়ে বদলি হয়ে নিজের ক্ষোভ রীতিমত সাংবাদিক বৈঠক করে উগরে দিলেন বামদল ফরোয়ার্ড ব্লক প্রভাবিত সরকারি কর্মচারী সংগঠন স্টিয়ারিং কমিটির রাজ্য আহ্বায়ক সংকেত চক্রবর্তী। রীতিমত তথ্য তুলে ধরে সংকেতবাবুর বিস্ফোরক অভিযোগ, আমার কাজের শর্তের মধ্যেই বদলি পড়ে, তাই একে অন্যায় বলছি না। কিন্তু, কয়েকজন শাসক-ঘনিষ্ট কর্মচারী নেতার দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়তে গিয়েই আমাকে এইভাবে বদলি হতে হল।

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সংকেতবাবুর অভিযোগ, বর্তমান রাজ্য সরকার ক্ষমতায় আসার পর মহাকরণে সরকারি কর্মীদের জমানো টাকায় চিটফান্ড চালানোর ঘটনায় নাম জড়ায় শাসকদলের ঘনিষ্ঠ বেশ কিছু সরকারি কর্মচারী ইউনিয়নের নেতার। পুলিশ অভিযুক্তদের ‘পলাতক’ বলে গ্রেপ্তার করতে পারে না বলে আদালতে জানায়। অভিযুক্তদের মধ্যে দুজন স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রীর অফিসে কর্মরত ছিলেন, তাই কিছুদিন আগেই আমি তথ্য জানার অধিকার আইনে তাঁদের উপস্থিতির তথ্য জানতে চাই। আর এরপরেই আমার নিজের দপ্তরেই আমার উপর শারীরিক হামলা হয়, যা নিয়ে আমি বিধাননগর থানায় অভিযোগও জানাই। আর এর মাঝেই হঠাৎ করে গত ২০ তারিখ আমাকে পরিকল্পনা ও সংখ্যাতত্ব দপ্তর থেকে সরিয়ে কালিম্পঙে শিশু ও নারীকল্যান দপ্তরে বদলি করে দেওয়া হয়। এরপরেই কার্যত ‘বোমা’ ফাটান সংকেতবাবু। তিনি বলেন, অভিযুক্তদের একজন কেরানি পদে কাজ করেও গত সাত বছরে বালি ও রাজারহাটে কোটি টাকার ফ্ল্যাট, চারচাকা গাড়ি, মন্দারমণিতে নিকটাত্মীয়ের নামে হোটেল ব্যবসা চালু করেছে – এসবের উপযুক্ত তদন্ত হোক। যদি তা না হয় তবে রাজ্যপাল থেকে শুরু করে কেন্দ্রীয় ভিজিলেন্স, আয়কর দপ্তর যেখানে প্রয়োজন নালিশ করব, প্রয়োজনে আদালতের দ্বারস্থ হব। প্রত্যন্ত জায়গায় বদলি করেও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমার এই লড়াই বন্ধ করা যাবে না।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!