এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > সব্যসাচীর বিরুদ্ধে নয়া সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল, জেনে নিন বিস্তারিত

সব্যসাচীর বিরুদ্ধে নয়া সিদ্ধান্ত নিল তৃণমূল, জেনে নিন বিস্তারিত

একের পর এক দলকে অস্বস্তিতে ফেলে দেওয়ার মত মন্তব্য করে বিতর্কে জড়িয়ে পড়েছিলেন বিধাননগর পৌরসভার মেয়র তথা তৃণমূল বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত। কিন্তু তবুও তৃণমূল তার বিরুদ্ধে সেইভাবে কোনও পদক্ষেপ নেওয়ার সাহস দেখায়নি। তবে সম্প্রতি দলের উদ্দেশ্যে তার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া ভালো চোখে নেয়নি ঘাসফুল শিবির।

তাকে সরিয়ে যাতে সেই বিধাননগর পৌরসভায় নতুন মেয়র বসানো যায়, তার ব্যাপারে ইঙ্গিতপূর্ণ মন্তব্য শোনা গিয়েছিল কলকাতা পৌরসভার মেয়র তথা রাজ্যের পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিমের গলায়। এমনকি সব্যসাচী দত্তকে বাদ দিয়ে বিধাননগর পৌরসভা সমস্ত দলীয় কাউন্সিলরদের ডেকে সেই মেয়র পদ দেখভালের জন্য ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায়কে নির্দেশ দেন তিনি। আর এহেন একটা পরিস্থিতিতে বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের সঙ্গে সব্যসাচী দত্তের বৈঠক অন্যমাত্রা নিয়েছিল।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এরপরই সেই সব্যসাচীর বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার কথা জানিয়ে দেন তৃণমূল নেতা ফিরহাদ হাকিম। শুধু তাই নয়, সব্যসাচী দত্ত যাতে মেয়র পদ ছেড়ে দেন, তার জন্য রাজ্যের পুরমন্ত্রী বিধাননগরের মেয়রকে ফোন করেছেন বলেও খবর পাওয়া যায়। এদিন এই প্রসঙ্গে ফিরহাদ হাকিম বলেন, “সব্যসাচীর দল ছেড়ে দেওয়া উচিত। দলে থেকে যা ইচ্ছা করা যায় না।”

একইভাবে দলের থেকে ব্যক্তি কখনই বড় হতে পারে না।দল সব্যসাচীর ব্যাপারে আর চুপ করে বসে থাকবে না বলে হুঙ্কার ছাড়তে দেখা যায় তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়কেও। কিন্তু বিভিন্ন মহলের তরফে যখন জানানো হচ্ছে যে, তৃণমূল শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে ফোন করে সব্যসাচী দত্তকে মেয়র পদ ছেড়ে দেওয়ার জন্য বলা হয়েছে, ঠিক তখনই এই ব্যাপারে মুখ খুললেন সেই বিধাননগর পৌরসভার মেয়র সব্যসাচী দত্ত।

সূত্রের খবর, এদিন এই প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “দলের তরফে আমি কোনো নির্দেশ পাইনি। ফোন করে আমাকে কেউ ইস্তফারও কোনো কথা বলেননি। যেদিন ভোটাভুটি হবে, সেদিনই দেখতে পাবেন ক’জন কাউন্সিলার আমার সঙ্গে রয়েছেন। আমি এখন মেয়র হিসেবে কাজ চালিয়ে যাব।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, এ যেন দলের উদ্দেশ্যেই কার্যত চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন সব্যসাচী দত্ত। কেননা দলের তরফে বারবার তাকে মেয়র পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার কথা বলা হলেও তিনি ভোটাভুটির রাস্তাতেই হাটবার ইচ্ছা প্রকাশ করলেন।

অনেকে বলছেন, তৃণমূল ভবনের বৈঠকে সকলেই মেয়র সব্যসাচী দত্তের বিরুদ্ধে রয়েছেন বলে শোনা গেলেও সব্যসাচী দত্ত ভোটাভুটির পথে হেটে তার পক্ষেই সমস্ত কাউন্সিলর থাকবেন এই ব্যাপারে আত্মবিশ্বাসী। আর তাইতো তিনি ভোটাভুটির রাস্তায় হাঁটার কথা বলে দলের বিরুদ্ধে কার্যত আরও একবার চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন বলেই মনে করছে বিশেষজ্ঞ মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!