এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নদীয়া-২৪ পরগনা > দায়িত্ব কমল সব্যসাচীর, দলীয় বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, জেনে নিন বিস্তারিত

দায়িত্ব কমল সব্যসাচীর, দলীয় বৈঠকে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত, জেনে নিন বিস্তারিত

শুক্রবার বিদ্যুৎ ভবনে বিক্ষোভ সমাবেশে উপস্থিত হয়ে বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে তার মন্তব্য এবং প্রকাশ্যে দলের উদ্দেশে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেওয়া খুব একটা ভালো চোখে নেয়নি তৃনমূল নেতৃত্ব। আর তাইতো এই ঘটনার পরই গতকাল সেই বিধাননগর পৌরসভার মেয়র তথা তৃণমূল বিধায়ক সব্যসাচী দত্ত বাদে বিধাননগর পৌরসভার সমস্ত কাউন্সিলরকে তৃণমূল ভবনে ডেকে একটি বৈঠক করেন কলকাতা পৌরসভার মেয়র তথা পুরমন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম।

যে বৈঠকের দিকে তাকিয়ে ছিলেন অনেকেই। জানা গেছে, তৃণমূলের এই বৈঠকে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে যে, সব্যসাচী দত্ত মেয়র পদে বহাল থাকলেও ডেপুটি মেয়র হিসেবে তাপস চট্টোপাধ্যায়ই সেই মেয়র পদ দেখভাল করবেন। বস্তুত, গত 2015 সালে বিধাননগর পুরনিগমের ডেপুটি মেয়র পদে তাপস চট্টোপাধ্যায় বসলে তারপর থেকেই মেয়র সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে তার প্রবল দ্বন্দ্ব শুরু হয়।

কেননা এই তাপস চট্টোপাধ্যায় বিধাননগরের বিধায়ক তথা মন্ত্রী সুজিত বসুর অনুগামী বলেই পরিচিত। অন্যদিকে সব্যসাচী দত্ত আবার সুজিত বসুর ঘোর বিরোধী। ফলে সেই তাপস চট্টোপাধ্যায়কেই বিধাননগর পৌরসভার বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে তাহলে কি সব্যসাচী দত্তকে বার্তা দিতে চাইল তৃণমূল!

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এখন সেই ব্যাপারেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে সর্বত্র। অনেকে বলছেন, সব্যসাচী দত্তের তৃণমূল থেকে বিদায় শুধুই সময়ের অপেক্ষা। এদিকে এদিন এই প্রসঙ্গে সেই বাড়তি দায়িত্ব পাওয়া বিধাননগর পৌরসভার ডেপুটি মেয়র তাপস চট্টোপাধ্যায় বলেন, “ফিরহাদ হাকিমের নির্দেশেই পুরনিগমের কাজ এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে।

সোমবার বিধান নগর পুরনিগমের মেয়র ইন কাউন্সিলরদের নিয়ে বৈঠক হবে। তারপরই পরবর্তী পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।” তাহলে কি তার ক্ষমতা খর্ব হল! এদিন এই প্রসঙ্গে সব্যসাচী দত্ত বলেন, “শোনা কথার উপর ভিত্তি করে আমি কিছু বলব না।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, তাপস চট্টোপাধ্যায় এবং সব্যসাচী দত্তের দ্বন্দ্ব তৃণমূলের সকলেরই জানা। ফলে সেদিক থেকে সেই বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তের পদ দেখভালের জন্য তার বিরোধী তাপস চট্টোপাধ্যায়কে বাড়তি দায়িত্ব দিয়ে তৃণমূল থেকে সব্যসাচী দত্তের বিদায়ের সুরই বাজিয়ে দিতে চাইল ঘাসফুল শিবির। তবে শেষ পর্যন্ত কবে সব্যসাচী দত্ত এবং তৃণমূলের মধুরেণ সমাপয়েৎ সম্পন্ন হয়, এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!