এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শবর মৃত্যুতেই কি নড়ে বসল প্রশাসন? আদিবাসীদের মানোন্নয়নে বড় অর্থ মঞ্জুর সরকারের

শবর মৃত্যুতেই কি নড়ে বসল প্রশাসন? আদিবাসীদের মানোন্নয়নে বড় অর্থ মঞ্জুর সরকারের

বিরোধী নেত্রী থাকার সময় জঙ্গলমহলের বিস্তীর্ণ এলাকায় জনসংযোগ যাত্রায় গিয়ে রাজ্যের বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চাক্ষুষ করেছিলেন যে সেখানকার মানুষ খিদের জ্বালায় পিঁপড়ের ডিম খেয়ে দিন যাপন করেন। কিন্তু রাজ্যে ক্ষমতায় এসেই সেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উদ্যোগেই জঙ্গলমহলের প্রত্যন্ত মানুষের ক্ষুধা নিবারণের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে দুই টাকা কেজি দরে চাল, রেশনিং ব্যবস্থা সহ একাধিক পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।

কিন্তু সম্প্রতি সেই জঙ্গলমহলে লালগড় এই 7 শবর ব্যক্তির মৃত্যুতে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজ্য রাজনীতি। সুযোগ পেয়ে এই ব্যাপারে সরকারের ওপর প্রবল চাপ সৃষ্টি করে বিরোধীরা। কিন্তু আসন্ন লোকসভা ভোটের আগে এই ইস্যুকে নিয়ে যাতে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের ওপর বেশি চাপ সৃষ্টি না করতে পারে বিরোধীরা, তার জন্য এবার মাঠে নেমে পড়ল রাজ্য সরকারও।

জানা গেছে, পশ্চিম মেদিনীপুরের বিস্তীর্ণ আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় উন্নয়নের জন্য জেলা থেকে পাঠানো প্রস্তাবে সবুজ সংকেত দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ তপশিলি জাতি উপজাতি আদিবাসী ও অন্যান্য অনগ্রসর শ্রেণী উন্নয়ন নিগমের কাজের জন্য দেড় কোটি টাকা বরাদ্দ করেছে রাজ্য। কিন্তু এই দেড় কোটি টাকা দিয়ে ঠিক কী কী কাজ করবে জেলা প্রশাসন?

সূত্রের খবর, গোয়ালতোড়ের জিরাপাড়ায় উদ্বাস্তু পুনর্বাসন কলোনিতে 100 একর জায়গায় কাজু চাষ, যার জেরে উপকৃত হবেন 160 টি পরিবার। অন্যদিকে চন্দ্রকোনা 1 ব্লকের আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকায় সাবমার্সিবল পাম্প বসানো, খড়গপুর 2 ব্লকের জকপুরে আদিবাসী যুবকদের বাড়িতে বাড়িতে গোলাপের চারা লাগানো ও রজনীগন্ধা ফুলের চাষ সহ আদিবাসীদের রোজগারের জন্য শুকনো কাঠ এবং জঙ্গলের শালপাতার চাষের দিকেও নজর দিচ্ছে প্রশাসন।

শুধু তাই নয়, শবর এবং লোধা অধ্যুষিত এলাকায় রাজ্যের পক্ষ থেকে স্থানীয় প্রশাসন এবং বিডিওকেও বাড়তি নজরদারি দিতেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে জেলাশাসক মোহন গান্ধী বলেন, “দেড় কোটি টাকায় আমরা আদিবাসীদের জীবনের মানোন্নয়নে একাধিক কাজ করব। আরও টাকা পাওয়ার জন্য প্রস্তাব পাঠানো হচ্ছে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে এই ব্যাপারে নিগমের জেলা আধিকারিক পার্থ ভৌমিক বলেন, “পরিকল্পনা তৈরি আছে। সেই মতই সব কাজ হবে।” বিশেষজ্ঞদের মতে, আসন্ন লোকসভা ভোটের আগে এই জঙ্গলমহলে আর কোনরকম বিচ্ছিন্ন ঘটনা চাইছে না রাজ্য। আর তাইতো এলাকার উন্নয়নে আরও বেশি করে অর্থ বরাদ্দ করে সেখানকার মানুষের মন পেতে চাইছে রাজ্যের শাসকদল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!