এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > তৃণমূলের ‘মেরুদণ্ড’ নেই, তাই এবার ‘চুপচাপ পদ্মফুলে ছাপ’, দাবি বিজেপি নেতার

তৃণমূলের ‘মেরুদণ্ড’ নেই, তাই এবার ‘চুপচাপ পদ্মফুলে ছাপ’, দাবি বিজেপি নেতার

Priyo Bandhu Media

যত এগিয়ে আসছে সবং উপনির্বাচনের দিন, ততই উত্তাপ ছড়াচ্ছে বঙ্গ রাজনীতিতে। আজ সবংয়ে শাসকদলের প্রার্থী গীতারানি ভূঁইয়ার হয়ে প্রচারে আসছেন শাসকদলের তরুণ তুর্কি তথা রাজ্যের পরিবহন মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। তার আগে গতকাল কনকনে ঠান্ডা আর বৃষ্টি মাথায় নিয়ে সবং হাইস্কুলের মাঠে সভা করে বিজেপি। যে সবংয়ে একসময় বিজেপির ঝান্ডা ধরার লোক পাওয়া জেট না, সেখানেই এত প্রতিকূলতার মধ্যেও বেশ ভিড় হয়েছিল। আর তা দেখে যথেষ্ট উৎসাহী বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ত্ব। সবংয়ে পদ্ম ফোটাতে বেশ উদ্দীপ্ত শোনাচ্ছে তাঁদের গলা।
বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয় বলেন, মেরুদণ্ড ছাড়া কি মানুষ দাঁড়াতে পারে? এখন তৃণমূলের মেরুদণ্ড কোথায়? বিজেপিতে (মুকুল রায়ের দিকে ইঙ্গিত করে)। তাহলে এখন কি তৃণমূল এই রাজ্যে আর দাঁড়িয়ে থাকতে পারবে? এরপর সাভার সময়ে হয়ে চলা বৃষ্টির দিকে ইঙ্গিত করে তিনি আরো বলেন, এই বৃষ্টিকে বলে ‘চুপচাপ বারিষ’। মনে রাখবেন এটা চুপচাপ পদ্মফুলে ছাপ দেওয়ার ইঙ্গিত।
অন্যদিকে নিজের বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিজেপি নেতা মুকুল রায় উস্কে দেন তৃণমূলী আবেগ। গত বিধানসভা নির্বাচনের আগে সবংয়ে খুন হয়ে যান তৃণমূল কর্মী জয়দেব জানা, আর তার জন্য দায়ী করা হয় তৎকালীন কংগ্রেস প্রার্থী মানস ভূঁইয়াকে, এমনকি গুঞ্জন ওঠে মানসবাবু সিআইডির হাতে ওই ঘটনায় গ্রেপ্তার হতে পারেন। এরপর মানস ভূঁইয়া দলবদলে তৃণমূলে যোগ দেন এবং জয়দেব জানা খুনের তদন্তেও আর সেরকম অগ্রগতি দেখা যায় না। মুকুলবাবু সেই প্রসঙ্গই নিজের বক্তব্যে টেনে আনেন। তিনি বলেন, তৃণমূলের অনেক কর্মী ভয়-ভীতি উপেক্ষা করে হয়তো প্রকাশ্যে আসতে পারছেন না। তাঁদের বলি, তৃণমূল কর্মী-সমর্থক সেজেই বুথে যান। কিন্তু মনে মনে শপথ নিন, তৃণমূল কর্মীর হত্যাকারীর স্ত্রীকে একটিও ভোট দেব না। সবংয়ে যে তৃণমূল কর্মী খুন হয়েছিলেন, তাতে মানস ভুঁইয়ার হাত রক্তাক্ত হয়ে রয়েছে। উনি বলেছিলেন মৃত্যুর সময়ও কংগ্রেসের পতাকা জড়িয়ে থাকবেন। কিন্তু দলত্যাগ করেছেন। আমিও দলত্যাগ করেছি। তবে সাংসদপদ ছেড়ে। আর মানসবাবু সাংসদ না হওয়া পর্যন্ত অনৈতিকভাবে বিধায়ক পদ আঁকড়ে থেকেছেন।
বিজেপি রাজ্য সভাপতি রাজ্যে পরিবর্তনের পরিবর্তন এর আবেগ উস্কে দিয়ে বলেন, পশ্চিমবঙ্গের পরিবর্তন সবং থেকে শুরু হোক, আপনারা দুর্যোগ উপেক্ষা করে এসেছেন, এই ভালবাসা দলকে এগিয়ে দেবে। অন্যদিকে বিজেপি প্রার্থী অন্তরা ভট্টাচার্য তীব্র ভাষায় আক্রমন করেন মানস ভূঁইয়াকে, এমনকি তাঁর বিরুদ্ধে মিথ্যাচারের অভিযোগও আনেন। তিনি বলেন, মানসবাবু প্রচারে বলছেন আমার বিরুদ্ধে ৪টি খুনের মামলা ঝুলছে। মনোনয়নে লিখেছি, একটিও আমার বিরুদ্ধে খুনের মামলা নেই। মানসবাবু তাঁর দাবি প্রমাণ করতে পারলে প্রার্থিপদ ছেড়ে দেবো।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!