এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > তিনসুকিয়া গণহত্যার জবাব খোদ তৃণমূল নেত্রীর কাছেই চাইলেন শাসকদলের কাউন্সিলার

তিনসুকিয়া গণহত্যার জবাব খোদ তৃণমূল নেত্রীর কাছেই চাইলেন শাসকদলের কাউন্সিলার

রাজনীতিতে এরকম উলটপুরান বাংলার মানুষ প্রায় কমই দেখেছে। অসমের গণহত্যা নিয়ে যখন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে প্রবল ক্ষোভ উগরে দিয়ে রাজপথে আন্দোলনে নেমেছে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস, ঠিক তখনই সেই আন্দোলন থেকে নিজের দলের প্রতিই বিড়ম্বনা বাড়ালেন খোদ তৃণমূল কাউন্সিলর। কিন্তু কি এমন হলো যার কারণে দলীয় কাউন্সিলরের জন্য বিপাকে পড়তে হলো ঘাসফুল শিবিরকে?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বৃহস্পতিবার অসমে তিনসুকিয়ার ব্রহ্মপুত্র নদীর চরে দাঁড় করিয়ে 5 জন বাঙালি যুবককে নৃশংসভাবে খুন করা হয়। আর শুক্রবার এই ঘটনার খবর পৌছতেই কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে প্রবল ক্ষোভ উগরে দেয় রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। জাতীয় নাগরিকপঞ্জীর কারণেই অসমে জঙ্গিউস্কানি বৃদ্ধি পেয়েছে বলে গেরুয়া শিবিরের বিরুদ্ধে তোপ দাগেন খোদ তৃণমূল মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

শুধু তাই নয়, অসমের এই নিহত বাঙ্গালী পরিবারের পাশে দাঁড়াতে আজই তিনসুকিয়া পৌঁছে গেছেন তৃণমূল কংগ্রেসের বিধায়ক এবং সাংসদদের একটি প্রতিনিধিদল। এমতাবস্থায় আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে কেন্দ্রের বিজেপি সরকারের বিরুদ্ধে অসম ইস্যুতে যখন সোচ্চার হচ্ছে তৃণমূল কংগ্রেস ঠিক তখনই নিজের দলকেই চরম অস্বস্তিতে ফেললেন আসানসোল পুরনিগমের তৃণমূল কাউন্সিলর অভিজিৎ আচার্য।

সূত্রের খবর, তিনসুকিয়ায় গনহত্যার প্রতিবাদে আসানসোলের কুলটির সাকতোড়িয়ায় একটি ধিক্কার মিছিলের আয়োজন করে তৃণমূল কংগ্রেস। আর সেখানেই যখন সকলে বিজেপির বিরুদ্ধে স্লোগান দিতে ব্যস্ত ঠিক তখনই সেই আসানসোল পুরনো গ্রামে তৃণমূল কাউন্সিলর অভিজিৎ আচার্য স্লোগান দেন, “অসমে 5 জন বাঙ্গালীকে হত্যা কেন করা হল? মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জবাব দাও।”

আরও আশ্চর্যজনক ভাবে নেতার সুরে সুর মিলিয়ে শ্লোগান দিতে থাকে কর্মীরা। আর এই হতবাক করা ঘটনাটি মুহূর্তের মধ্যে ভাইরাল হয়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। একাংশের প্রশ্ন, যে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগাগোড়া বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়ে আসছেন এদিন অসমের গণহত্যায় সেই নিজের দলের দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জবাব চাওয়ার কথা বলে ঠিক কোন বার্তা দিতে চাইলেন এই কাউন্সিলর? এদিন এ প্রসঙ্গে প্রবল বিড়ম্বনায় পড়া পশ্চিম বর্ধমান জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি বলেন, “অভিযুক্ত কাউন্সিলরের কাছে উত্তর চাওয়া হয়েছে। যদি উত্তর সন্তোষজনক না হয় তাহলে ওনাকে সাসপেন্ড করা হবে।” সব মিলিয়ে গোটা রাজ্যে বিজেপি বিরোধিতার সুরকে চওড়া করে তৃণমূল কংগ্রেস পথে নামলেও দলেরই এক কাউন্সিলর অসমের গণহত্যা নিয়ে খোদ দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে জবাব চাওয়ায় এখন তীব্র সরগরম রাজ্য রাজনীতি।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!