এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > শাসকদলের নেতারা কি মানুষের হয়ে আর কাজ করছেন না? বিতর্ক বাড়ালেন পার্থ চ্যাটার্জি

শাসকদলের নেতারা কি মানুষের হয়ে আর কাজ করছেন না? বিতর্ক বাড়ালেন পার্থ চ্যাটার্জি

সাম্প্রতিককালের পঞ্চায়েত নির্বাচনে কিছু জেলায় শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের ভোটব্যাংকে কিছুটা ধ্বস নেমেছে। যার মধ্যে অন্যতম নদিয়া জেলা। ফলাফল প্রকাশের পর দলের শীর্ষ নেতাদের চুলচেরা বিশ্লেষণে উঠে এসেছে সেই জেলার শাসকদলের নেতাদের কুকীর্তির কথা‌। নিজের স্বার্থসিদ্ধির করাই এখন শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের বিভিন্ন জেলা নেতাদের কাছে মুখ্য বিষয় হয়ে উঠেছে বলে বিভিন্ন কোর কমিটির বৈঠকে।

ইতিমধ্যেই দলীয় নেতাদের সতর্ক করে দিয়েছেন খোদ তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।এবার দলনেত্রীর পর সেই একই ভাষায় দলের নেতাদের সতর্ক করলেন তৃণমূল মহাসচিব তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়।

সূত্রের খবর, গত কাল নদীয়া জেলা তৃণমূলের উদ্যোগে আয়োজিত হয় একটি বিজয় সম্মেলনি। যেখানে উপস্থিত হন, দলের মহাসচিব, নদীয়া জেলা পর্যবেক্ষক তথা শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়, রাজ্যের কারামন্ত্রী উজ্জ্বল বিশ্বাস, জেলা তৃণমূলের সভাপতি গৌরীশংকর দত্ত, নদীয়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি রিক্তা কুন্ডু সহ শাসক দলের একাধিক নেতারা। আর এই সভাতেই বক্তব্য রাখতে উঠে রীতিমতো পঞ্চায়েত প্রধান ও দলীয় জনপ্রতিনিধিদের সতর্ক করে দেয় শিক্ষামন্ত্রী।

এদিন তিনি বলেন, “টুকটাক নিজের জন্য করুন। কিন্তু মানুষের জন্য কাজ করুন। মাথায় রাখবেন, পতাকাটাই কিন্তু আপনাদের শক্তিশালী করেছে। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের মুখকে মলিন করবার চেষ্টা করবেন না।”

অন্যদিকে দলে সুবিধেবাদী কিছু নেতা যে আছে সেই ব্যাপারেও সকলকে সতর্ক করে দেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়। দুর্বলতা কাটিয়ে আগামী লোকসভা নির্বাচনের জন্য এখন থেকেই সকলকে প্রস্তুত হওয়ারও নির্দেশ দেন তিনি। শিক্ষামন্ত্রী বলেন, “পঞ্চায়েতে জিতেছেন বলে বুক চাপড়ে লাভ নেই। সামনে আবার একটা নির্বাচন আসছে। আর তাই এখন থেকেই সেই নির্বাচনের জন্য কি কি কাজ পঞ্চায়েতে হয়েছে তার প্রচার করুন। পারলে নিজে হাতে পোস্টার লিখুন।”

কিন্তু হঠাৎ এই “টুকটাক নিজেদের জন্য করুন” এই মন্তব্য করে আদতে কি দলীয় নেতারা যে নিজেদের শ্রীবৃদ্ধি করছে সেই ব্যাপারে দলের কাছে অভিযোগ আসাতেই এদিন বিজয়া সন্মেলনী অনুষ্ঠানের মঞ্চ থেকে সেই সমস্ত অভিযুক্ত নেতাদেরই সতর্ক করলেন তৃনমূল মহাসচিব?

যদিওবা এই সমস্ত প্রশ্নের উত্তরে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন,” আমি বলতে চেয়েছি সাধারণ মানুষের জন্য করতে হবে। এই “টুকটাক” বলাতে কিছু ভুলভ্রান্তি হতে পারে।” অন্যদিকে সম্প্রতি বীরভূমের খয়রাশোল ব্লকের কার্যকরী সভাপতি কে গ্রেফতারের নির্দেশ দিয়েছেন সেই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। কেন একজন জেলা সভাপতি হয়ে দলের ব্লক সভাপতিকে গ্রেফতারের নির্দেশ দিলেন তিনি?

এদিন এই প্রশ্নের উত্তরে পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, উচ্চমহল থেকে অনুমোদন পেয়েই হয়ত জেলা সভাপতি এই নির্দেশ দিয়েছে। আর যদি কেউ ভুল কাজ করে থাকেন তাকে শোধরানোর জন্য দলের সভাপতি তো নির্দেশ দিতেই পারেন।” তবে এই সমস্ত ব্যাপারে সেই বীরভূমের জেলা পর্যবেক্ষক ফিরহাদ হাকিমের দিকেই পাল্টা বল ঠেলে দিয়েছেন তৃণমূল মহাসচিব।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

রাজনৈতিক মহলের মতে, সামনে লোকসভা ভোটের আগে দলীয় স্তরে সংগঠনকে চাঙ্গা করতে বেশ বুঝেশুনেই পা ফেলতে চাইছে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস। বিভিন্ন জেলা থেকে দলীয় নেতাদের সম্পর্কে একাধিক অভিযোগ আসায় এবার লোকসভা নির্বাচনের আগে সেই সমস্ত নেতাদেরকেই সতর্ক করে দেওয়ার দিকে মনোযোগী হচ্ছে তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!