এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > শাসক দল তৃণমূলের প্রশ্রয়ে বাংলায় উগ্রপন্থীদের রমরমা – কলকাতার বুকে বসেই বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট প্রাক্তন বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীর

শাসক দল তৃণমূলের প্রশ্রয়ে বাংলায় উগ্রপন্থীদের রমরমা – কলকাতার বুকে বসেই বিস্ফোরক অভিযোগ হেভিওয়েট প্রাক্তন বিজেপি মুখ্যমন্ত্রীর


লোকসভা নির্বাচনের দিন যত এগিয়ে আসছে ততই রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস বনাম কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির মধ্যে বিরোধ চরমে উঠতে শুরু করেছে। বিভিন্ন সময়ে রাজ্যে এসে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ থেকে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।

আর এবার সেই বাংলায় পা রেখেই পশ্চিমবঙ্গকে জঙ্গি সন্ত্রাসবাদীদের নিরাপদ আঁতুড়ঘর বলে রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে কটাক্ষ করলেন ছত্রিশগড়ের প্রাক্তন বিজেপি মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং। সূত্রের খবর, রবিবার কলকাতায় বিজেপি বুদ্ধিজীবী সেলের পক্ষ থেকে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এসে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস ও মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দেন বিজেপির রমন সিং।

তিনি বলেন, “এনআইএ তদন্তে উঠে এসেছে যে ইন্ডিয়ান মুজাহিদিনের অন্যতম বিচরণক্ষেত্র হল এই কলকাতা। বিগত ইউপিএ আমলে দেশের বিভিন্ন শহরে বিস্ফোরণ হলেও সেখান থেকে কলকাতা বাদ ছিল। কিন্তু পরে জানা গিয়েছে যে মহানগরীই এই সমস্ত কিছুর কারবার। আর এর সঙ্গে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের বিভিন্ন নেতা জড়িত রয়েছে।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

এদিকে বুদ্ধিজীবী সেলের অনুষ্ঠান শেষে চুঁচুড়ার পিপুলপাতিতে একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিয়ে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে কাশ্মীরের পুলওয়ামায় জঙ্গি হানার ঘটনা প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও বিজেপি সরকারের উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ নিয়েও প্রশংসার সুর শোনা যায় ছত্রিশগড়ের তিনবারের বিজেপির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিংয়ের গলায়। এদিন তিনি বলেন, “পুলওয়ামা বিস্ফোরণের পর প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ভারতীয় সেনাবাহিনীকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়ে দিয়েছেন। এর আগে এটা কখনও হয়নি। এবার এমন বদলা নেওয়া হবে যে পরবর্তী সময়ে এই ধরনের ঘটনা ঘটানোর আগে পাকিস্তান একশোবার ভাববে।”

এদিকে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের আমলে এই রাজ্য সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর হয়ে গেছে বলে সেই ঘাসফুল শিবিরকে ছত্রিশগড়ে বিজেপির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী রমন সিং কটাক্ষ করলে এদিন তা নিয়ে পাল্টা মুখ খুলতে দেখা যায় তৃণমূল কংগ্রেসকেও।

এদিন এই প্রসঙ্গে বিজেপিকে কটাক্ষ করে তৃণমূল মহাসচিব তথা রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, “জনতার রায়ে পরাজিত হয়ে যে রমন সিংকে নিজের চেয়ার ছাড়তে হয়েছে তিনি কিনা আমাদের নীতি শিক্ষার পাঠ দিচ্ছেন! দেশপ্রেম, ভারতের অখণ্ডতা নিয়ে জাতীয় স্তরে যদি সব থেকে বেশি কেউ সোচ্চার হয়ে থাকেন তাহলে তার নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।”

পাশাপাশি কাশ্মীরের ঘটনা নিয়েও এদিন কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে পার্থবাবু বলেন, “স্বরাষ্ট্র, প্রতিরক্ষা মন্ত্রক নিজেদের হাতে থাকা সত্ত্বেও কেন কাশ্মীর সহ দেশের বিভিন্ন জায়গায় জঙ্গি হামলা হচ্ছে!” সব মিলিয়ে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস বনাম কেন্দ্রের শাসক দল বিজেপির মধ্যে বিভিন্ন ইস্যু নিয়ে রাজনৈতিক বিরোধে সরগরম হয়ে উঠতে শুরু করেছে বঙ্গ রাজনীতি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!