এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ‘রবিনহুড’ সেলিমকে প্রার্থী করে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় মাস্টারস্ট্রোক শাসকদলের

‘রবিনহুড’ সেলিমকে প্রার্থী করে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় মাস্টারস্ট্রোক শাসকদলের

স্থান  দক্ষিণ ২৪ পরগনার মগরাহাট একদা সেখানেই খুন ডাকাতির মতন ঘটনায় বিখ্যাত ছিলো দ্যোরদ্বন্দ্বপ্রতাপ  সেলিম লস্কর। সহায় সম্বলহীন মানুষের কাছে তিনি ছিলেন পরিত্রাতা। অপরাধের পর পুলিশ তাঁকে খুঁজে বের করতে বহু ভাবে নাকাল হয়েছেন। এই প্রসঙ্গে এক পুলিশ কর্তা বললেন ওই সময়ে কারও মেয়ের বিয়ে থেকে চিকিত্‍সা- খরচ জোগাতেন সেলিম। বহু অপরাধের মামলায় গ্রেফতার হয়ে বেশ কিছুদিন কারাবাসের পর , বছর ২০ আগে আগে তিনি ছাড়া পান।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

মামুদপুরে নিজের বাড়িতে ফিরে এসে তিনি অপরাধ জগতের পুরোনো কাজকর্ম থেকে নিজেকে সরিয়ে এনে  ঠিকাদারি ও জমির ব্যবসা শুরু করেন। এইসময় রাজ্যের শাসকদল এবং বিরোধীদল সকলের সাথেই সুসম্পর্ক রেখে চললেও প্রত্যক্ষ রাজনীতিতে অংশ গ্রহণ করেনিনি তিনি। কিন্তু আসন্ন পঞ্চায়েত নির্বাচনে এই সেলিম লস্করকে দক্ষিণ ২৪ পরগনার মগরাহাট-২ পঞ্চায়েত সমিতির প্রার্থী মনোনীত করলো রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস। আর ঐ আসনে নির্বাচনের আগেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেছেন সেলিম। রাজনৈতিক মহল শাসকদলের এই পদক্ষেপে কার্যত স্তম্ভিত হয়ে দাবি করছে সেলিম লস্করকে প্রার্থী করে শাসক শিবির তাঁর জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগাতে উদ্যোগী হয়েছে। একই সাথে এলাকা জুড়ে থাকা তাঁর অনুগতদের ভোট ও নিশ্চিত করলো শাসক শিবির। এইভাবে সেলিম লস্করকে তাঁরা দক্ষ সংগঠক হিসেবে কাজে লাগাতে পারবে। এপ্রসঙ্গে দক্ষিণ ২৪ পরগনার জেলা তৃণমূলের এক নেতা সংবাদমাধ্যমকে  বললেন, ”ওখানকার দলীয় কর্মীরা সেলিমকে প্রার্থী করার জন্য দরবার করছিলেন। কারণ, এলাকার গরিব মানুষের মধ্যে তাঁর প্রভাব রয়েছে। শীর্ষ নেতাদের সঙ্গে আলোচনার পরই তাঁকে মনোনয়ন দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সেলিমের বিরুদ্ধে এখন আর তেমন মামলা নেই।”  সেলিম লস্কর জানালেন, ”স্থানীয় মানুষ এবং শাসকদলের নেতারা অনুরোধ করায় ভোটে দাঁড়ালাম। আমি গরিব মানুষদের উপকারেই কাজ করব।”

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!