এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিধানসভায় নিয়মই মানছে না শাসকদল, তীব্র ক্ষোভ বিরোধীদের, পরিস্থিতি উত্তপ্ত

বিধানসভায় নিয়মই মানছে না শাসকদল, তীব্র ক্ষোভ বিরোধীদের, পরিস্থিতি উত্তপ্ত

গণতন্ত্রের অন্যতম পীঠস্থান বিধানসভা। রাজ্যের শাসক, বিরোধী সমস্ত দলের বিধায়করাই এই বিধানসভায় উপস্থিত হয়ে নিজের এলাকার উন্নয়নের দাবি জানান। কিন্তু প্রায়শই শাসক-বিরোধী হইহট্টগোলের জেরে শিকেয় উঠছে সেই বিধানসভার অধিবেশন। আর এবার শাসক দল তৃণমূল এবং বিরোধীদল কংগ্রেসের বিধায়কদের মধ্যে প্রায় হাতাহাতির জেরে তীব্র উত্তেজনা ছড়াল পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভার অন্দরে। জানা যায়, এদিন বিধানসভার অধিবেশন শুরু হওয়ার সাথে সাথেই, একটি দৃষ্টি আকর্ষণী প্রস্তাব আনেন কংগ্রেসের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান।

যেখানে তিনি প্রশ্ন করেন, সুপ্রিম কোর্টের রায় ছটি ভাষায় দেওয়া হবে বলে জানালেও কেন সেখানে বাংলা ভাষা নেই! এদিকে আব্দুল মান্নানের এই প্রশ্ন শোনার পরই, বিধানসভার অধ্যক্ষ বিমান বন্দ্যোপাধ্যায় বিষয়টি পরে আলোচনা করা হবে – বলে সম্পূর্ণরূপে এড়িয়ে যান। আর এরপরই প্রবল বিপত্তি বাধে। হিসেব মতো বিধানসভার অধিবেশনে কমপক্ষে 6 জন মন্ত্রীর উপস্থিত থাকার কথা। কিন্তু এদিন সেখানে মোট চারজন মন্ত্রী উপস্থিত ছিলেন। আর এই ঘটনা তুলে ধরেই সরব হতে দেখা যায় কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তীকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “6 জন মন্ত্রী আসার পর অধিবেশন চালু করা হোক। তার আগে এই বিধানসভা মুলতুবি করে দেওয়া হোক।” এদিকে মনোজ চক্রবর্তী যখন এহেন দাবি জানাচ্ছেন, ঠিক তখনই শাসকদলের পক্ষ থেকে সেই কংগ্রেস বিধায়ককে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করেন তৃণমূল বিধায়ক শ্যামল মন্ডল। আর এরপরই শাসকদলের বিরুদ্ধে গিয়ে কংগ্রেস বিধায়ক মনোজ চক্রবর্তীর পাশে দাঁড়িয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রবল বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন বাম এবং কংগ্রেস বিধায়করা।

এদিকে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাওয়ায় ময়দানে নামতে হয় পরিষদীয় রাষ্ট্রমন্ত্রী তাপস রায়কে। যেখানে তিনি কার্যত স্বীকার করে নেন যে, ছয়জন মন্ত্রী থাকার বাধ্যতামূলক এবং পরবর্তী পর্যায়ে তিনি এই বিষয়টি দেখবেন। সব মিলিয়ে এবার রাজ্য বিধানসভায় মন্ত্রীদের অনুপস্থিতি নিয়ে শাসকদলের বিরুদ্ধে ব্যাপকভাবে সুর চড়াল বাম এবং কংগ্রেস বিধায়করা। কিন্তু, তার থেকেও বড় কথা, শপথ নেওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন বিরোধীদের যেন বেশি করে গুরুত্ব দেওয়া হয় – সেদিকটাও কার্যত ভুলে গেছেন স্পিকার। আর তাই, বিধানসভায় শাসকদল নিয়ম মানছে না অভিযোগে সুর চড়াচ্ছে বিরোধীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!