এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > স্বামীজী-নেতাজিকে সামনে রেখে বাংলায় সংগঠন বাড়ানোয় নজর সঙ্ঘের

স্বামীজী-নেতাজিকে সামনে রেখে বাংলায় সংগঠন বাড়ানোয় নজর সঙ্ঘের

সম্প্রতি রাজ্য সফরে এসে সঙ্ঘ কার্যকর্তাদের সঙ্গে বৈঠকে করেন রাষ্ট্রীয় স্বয়ং সেবক সঙ্ঘের সর সঙ্ঘচালক মোহন ভগবত। তাঁর মতে, সংখ্যালঘু তোষণ থেকে তিন তালাক বিতর্ক, সব প্রশ্নেই রাজ্যের হিন্দুরা ক্রমশ সরব হচ্ছে। তাদের মনোজগতের এই পরিবর্তনের ফলেই গেরুয়া শিবিরের প্রতি দুর্বলতা দিনকে দিন বাড়ছে। কিন্তু গেরুয়া শিবিরের প্রতি সমর্থনের হার বৃদ্ধি পেলেও সমাজের বিশিষ্টজনদের মধ্যে প্রভাব বিস্তারে দুর্বলতা রয়েছে। আর তাই আগামী ১২ জানুয়ারি স্বামী বিবেকানন্দের এবং ২৩ জানুয়ারি নেতাজি সুভাষচন্দ্র বসুর জন্মজয়ন্তী পালনে সমাজের বিশিষ্টদের নিয়ে জেলায় জেলায় সভা করার নির্দেশ গিয়েছে কেশব ভবন থেকে।
সঙ্ঘের মতে বাংলায় বিশেষত বঙ্গভাষীদের মধ্যে নেতাজি এবং স্বামী বিবেকানন্দের আবেদন অনেকখানি। আর ঘটনাচক্রে জানুয়ারির মাঝামাঝি প্রায় দুই সপ্তাহের মধ্যে এই দুই বাঙালি মনীষীর জন্মদিন। তাই সঙ্ঘ চায় এই সময়ের মধ্যেই রাজ্যের সমস্ত জেলায় একটি করে সভা করুক বিজেপির বুদ্ধিজীবী সেল। সেখানে সংশ্লিষ্ট জেলার শিক্ষক, চিকিৎসক, আইনজীবী, লেখক, শিল্পীর মতো পেশাজীবীদের এই সভায় নিয়ে আসার লক্ষ্যমাত্রা বেঁধে দিয়েছে সঙ্ঘ। দুই মনীষীর জন্মজয়ন্তী উপলক্ষে সভা হলেও মঞ্চে ভারতমাতার প্রতিকৃতি যেমন থাকবে, তেমনই শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়, দীনদয়াল উপাধ্যায়ের ছবিও রাখা হবে। এককথায় নেতাজি ও স্বমীজি স্মরণ উপলক্ষ করেই হিন্দুত্ব পাঠের অবতারণা হবে বলে সূত্রের খবর। তবে সঙ্ঘের শীর্ষ নেতৃত্বের পরিকল্পনা হলেও রাজ্যের প্রতিটি জেলায় এই সভাগুলির আয়োজক হিসেবে থাকবে বিজেপির বুদ্ধিজীবী সেল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!