এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > 34 বছরের বাম সরকারকে সরিয়ে ছিলেন ‘দিদি’ কেন্দ্র থেকে বিজেপিকেও সরাবেন ‘তিনিই’ – তীব্র প্রচার শুরু শাসকদলের

34 বছরের বাম সরকারকে সরিয়ে ছিলেন ‘দিদি’ কেন্দ্র থেকে বিজেপিকেও সরাবেন ‘তিনিই’ – তীব্র প্রচার শুরু শাসকদলের

কেন্দ্র থেকে বিজেপিকে সরাতে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে আগামী 19 জানুয়ারি রাজ্যে ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছেন তৃণমূল সুপ্রিমো তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর দলনেত্রীর এই ব্রিগেড সমাবেশকে চূড়ান্ত সাফল্যের রূপ দিতে রাজ্যের প্রায় সমস্ত জেলায় তৃণমূল নেতাকর্মীদের স্বতঃস্ফূর্ততা এবং উন্মাদনায় শুরু হয়েছে সেই ব্রিগেড সমাবেশের সমর্থনে প্রচার ও কর্মীসভা।

আর সেই মত গতকাল হুগলির রবীন্দ্রভবনে এই ব্রিগেড সমাবেশের সমর্থনে একটি সভা অনুষ্ঠিত করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের কৃষি বিপণন মন্ত্রী তথা হুগলি জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি তপন দাশগুপ্ত, উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল, চুঁচুড়ার বিধায়ক অসিত মজুমদার, পুরসভার চেয়ারম্যান গৌরীকান্ত মুখোপাধ্যায় সহ চুঁচুড়া বিধানসভার প্রতিটি পঞ্চায়েত, পঞ্চায়েত সমিতি ও জেলা পরিষদের সদস্যরা।

জানা গেছে, এদিনের এই সভা থেকে জেলার প্রায় প্রতিটি বুথ থেকেই কমপক্ষে 120 থেকে 150 জন কর্মী-সমর্থক নিয়ে যাওয়ার টার্গেট বেধে দেওয়া হয়েছে। আর এদিনের এই কর্মীসভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে কোর কমিটির মিটিং থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানান, “বিজেপি সাম্প্রদায়িক রাজনীতি চালিয়ে দেশের একতা ভাঙার কাজ করছে। একে রুখতেই হবে।একই সঙ্গে তৃণমূল সুপ্রিমো জানিয়ে দেন শুধু পশ্চিমবঙ্গ নয়,ঝাড়খান্ড ,বিহার আসাম, মহারাষ্ট্র, মনিপুর মিজোরাম, ত্রিপুরা ও ওড়িশাতেও প্রার্থী দেবে তৃণমূল কংগ্রেস।এই রাজ্যগুলিতে সাংগঠনিক দায়িত্ব তিনি ভাগ করে দেন দলের একাধিক শীর্ষ নেতার মধ্যে।”

উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল বলেন, “রথযাত্রা ও হিন্দুত্বের বীজ ছড়িয়ে বিজেপি বাংলাকে অশান্ত করতে চাইছে। তাই কেউ ওদের রথযাত্রায় পা না দিয়ে দলনেত্রীর নির্দেশমতো পরের দিন পবিত্র যাত্রা করবেন।” পাশাপাশি বিগত 34 বছরের বাম সরকারকে যে ভাবে সরাতে উদ্যোগী হয়েছিলেন বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক সেইভাবেই তিনি কেন্দ্রের বিজেপি সরকারকেও এবার সরাবেন বলে প্রত্যয়ের সুর শোনা গেছে উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়কের গলায়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে এই রাজ্যে বিজেপি ও সিপিএম গোপন সমঝোতা গড়ে তুলেছে বলে নিজের দলের কর্মীদের সেই সিপিএম এবং বিজেপির অশুভ আঁতাত থেকে দূরে থাকারও নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। এদিকে এদিনের সভায় বক্তব্য রাখতে গিয়ে হুগলি জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা রাজ্যের কৃষি বিপণন মন্ত্রী তপন দাশগুপ্ত বলেন, “আমাদের দলনেত্রী কলকাতায় যে ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছে সেখানে হুগলি জেলা যেন ভিড়ের রেকর্ড করে। তাই এখন থেকেই সকলে পাড়ায় পাড়ায় প্রচার শুরু করুন।”

রাজনৈতিক মহলের মতে, লোকসভা নির্বাচনের আগে এই ব্রিগেড থেকেই কেন্দ্রের মোদি সরকারকে হুশিয়ারি দিতে চান মুখ্যমন্ত্রী। আর তাইতো এখন সেই ব্রিগেডকে জনজোয়ারে পূর্ণ করতে জেলায় জেলায় তৃণমূল নেতারা দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে রেকর্ড ভিড়ের আহ্বান জানাচ্ছেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!