এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > ইভিএম হ্যাকিং! বিজেপির সাত প্রার্থী নাকি একই মার্জিনে জিতেছে! জানুন আসল সত্যিটা

ইভিএম হ্যাকিং! বিজেপির সাত প্রার্থী নাকি একই মার্জিনে জিতেছে! জানুন আসল সত্যিটা

প্রকাশিত হয়েছে দেশের সপ্তদশ লোকসভা নির্বাচনের ফলাফল। নির্বাচনের আগে কংগ্রেস ও সম্মিলিত বিরোধীরা দাবি করেছিলেন, দেশের মানুষ নাকি বিজেপির শাসনকালে অতিষ্ঠ হয়ে গেছে, আর তাই নরেন্দ্র মোদী-অমিত শাহদের দিল্লির কুর্শি থেকে ছুঁড়ে ফেলে দিয়ে সেখানে আঞ্চলিক দলগুলির বা কংগ্রেসের সরকার প্রতিষ্ঠা হবে। কিন্তু, ফল বেরোতেই দেখা গেল, বিরোধীদের সেই আশায় জল ঢেলে দিয়ে ২০১৪-এর থেকেও বেশি আসন নিয়ে ক্ষমতায় ফিরেছে বিজেপি।

এনডিএ জোট সাড়ে তিনশোর কাছাকাছি ও বিজেপি একই ৩০৩ টি আসন পেয়ে বাজিমাত করেছে। বিজেপির এই আকাশচুম্বী সাফল্যের পাশে রীতিমত টিমটিম করছে বিরোধীরা, রীতিমত দূরবীন দিয়ে খুঁজতে হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই, সম্মিলিত বিরোধীদের এইভাবে তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেওয়া হজম করতে পারছেন না বিরোধী নেতা থেকে কর্মীরা। আর তাই বিজেপির এই সাফল্যের পিছনে জনসমর্থন নয়, বরং ইভিএম হ্যাকিং দেখছেন তাঁরা। এতদিন এই ‘হ্যাকিংয়ের’ গল্প শোনালেও কোনো প্রমাণই দেখতে পারেননি বিরোধীরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তবে ২০১৯ এর পর নাকি বিরোধীদের হাতে এই প্রমান এসে গেছে। ইভিএম হ্যাকিংয়ের এই বড়সড় প্রমান দিয়ে তাঁরা এবার ভারতীয় জনতার চোখ খুলে দিতে চান। কি সেই প্রমান? বিরোধীদের দাবি বিজেপির সাত-সাতজন প্রার্থী একই মার্জিন ২,১১,৮২০ ভোটে পৃথক পৃথক কেন্দ্র থেকে জিতেছেন। বাস্তবে কি করে সম্ভব এটা – যদি না বিজেপি ইভিএম হ্যাক করিয়ে থাকে? আর বিজেপির এই সাতজন প্রার্থী হলেন – মানেকা গান্ধী, ভোলা সিং, উপেন্দ্র নারসিং, হরিশ দ্বিবেদী, সত্যপাল সিং, সংঘমিত্রা মৌর্য এবং ভারতেন্দ্র সিং কানোয়ার।

কিন্তু, বিরোধীদের এই প্রচার সর্বৈব মিথ্যা! প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার ফ্যাক্ট চেক দেখে নিন। এই সাত জন প্রার্থীর কেউই ওই মার্জিনে জেতেননি – তাঁদের বাস্তব ফলাফল, কেন্দ্র, বিরোধী দল ও নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বীর নাম হল যথাক্রমে –
১. মানেকা গান্ধী – সুলতানপুর থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির চন্দ্রভদ্র সিংকে ১,৭৮,৯০২ ভোটে পরাজিত করেছেন
২. ভোলা সিং – বুলন্দশহর থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির যোগেশ ভর্মাকে ৪,২১,৯২৩ ভোটে পরাজিত করেছেন
৩. উপেন্দ্র নারসিং – বারাবাঁকি থেকে সমাজবাদী পার্টির রামসাগর রাওয়াতকে ২,১১,৮৭৮ ভোটে পরাজিত করেছেন
৪. হরিশ দ্বিবেদী – বস্তি থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির রামপ্রসাদ চৌধুরীকে ৩৩,৫৬২ ভোটে পরাজিত করেছেন
৫. সত্যপাল সিং – আগ্রা থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির মনোজকুমার সোনিকে ৩,০০,২৬৩ ভোটে পরাজিত করেছেন
৬. সংঘমিত্রা মৌর্য – বাদাউন থেকে সমাজবাদী পার্টির ধর্মেন্দ্র যাদবকে ১,৬৬,৩৪৭ ভোটে পরাজিত করেছেন
৭. ভারতেন্দ্র সিং কানোয়ার – বিজনোর থেকে বহুজন সমাজবাদী পার্টির মালুক নাগরকে ২,০৫,৭৭৪ ভোটে পরাজিত করেছেন

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!