এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > রেশনের খাদ্যদ্রব্য নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ শাসক দলের বিরুদ্ধে,জেনে নিন

রেশনের খাদ্যদ্রব্য নিয়ে রাজনীতি করার অভিযোগ শাসক দলের বিরুদ্ধে,জেনে নিন


একেই চারিদিকে করোনা ত্রাসে আতঙ্কিত হয়ে রয়েছে সাধারণ মানুষ। তার মধ্যেই লকডাউন চলছে। যার জেরে দিন আনা দিন খাওয়া মানুষগুলো হয়ে পড়েছে আরও অসহায়। এই অবস্থায় রাজ্য সরকার বিনামূল্যে রেশন দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছেন। কিন্তু রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রীর এই ঘোষণাকে উড়িয়ে দিয়ে তৃণমূল নেতা নেত্রীরা নাম কেনার জন্য এবার রেশনের খাদ্যদ্রব্য ব্যবহার করে ত্রাণ দিতে উঠে-পড়ে লেগেছেন। এই গুরুতর অভিযোগ উঠেছে রেশন ডিলারদের পক্ষ থেকে।

উল্লেখ্য, এই অভিযোগ উঠেছে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের দিকে। বলা হচ্ছে, তাঁর মদতেই এই ধরনের ঘটনা ঘটছে নিত্য। অন্যদিকে, রেশন দোকানের খাদ্য সামগ্রী নিয়ে নেওয়ার ফলে পর্যাপ্ত পরিমাণে রেশন বিলিও করা যাচ্ছে না। এ ব্যাপারে রেশন ডিলারদের সংগঠন অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশনের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয়েছে, ত্রাণ সামগ্রী পৌঁছে দেওয়ার নাম করে তৃণমূল নেতারা জোর করে রেশন ডিলারদের কাছ থেকে খাবার নিয়ে বিলি করছেন।

এই অবস্থায় সাধারণ মানুষের কাছে নির্দিষ্ট পরিমাণ খাদ্যদ্রব্য পৌঁছাতে রীতিমত বেগ পেতে হচ্ছে রেশন ডিলারদের। অভিযোগ উঠেছিল অনেকদিন ধরেই। জেলায় জেলায় রেশন ডিলারদের কাছ থেকে তৃণমূল নেতারা জোর জবরদস্তি করে খাদ্যদ্রব্য নিয়ে যাচ্ছেন। আর তারপর তা ত্রাণের নাম করে বিলি করে বেড়াচ্ছেন। এ ব্যাপারে অল ইন্ডিয়া ফেয়ার প্রাইস শপ ডিলার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক বিশ্বম্ভর বসু সরাসরি অভিযোগ এনেছেন খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিকের বিরুদ্ধে।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

শুধু তাই নয়, এরকম পরিস্থিতি চললে অবস্থা যে আরও বেগতিক হয়ে উঠবে সেকথাও জানাতে তিনি ভোলেননি। অন্যদিকে, ঘটনা জানতে পেরে খাদ্যমন্ত্রী জ্যোতিপ্রিয় মল্লিক সরাসরি তাঁর নিজের দিকে ওঠা অভিযোগ অস্বীকার করে জানিয়েছেন, রেশন ডিলারদের ওপর জোর-জবরদস্তি করা হলে পুলিশ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে। এদিকে এই ঘটনায় রাজ্যের বিরোধীরা ক্ষেপে উঠেছেন। তাঁদের কথায়, নাম কেনার জন্য এভাবে ত্রাণের নাম করে রেশনের খাদ্যদ্রব্য বিলি করার ফলে আসল কাজই ভন্ডুল হতে বসেছে।

এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক মহলের একাংশের মতে, যেখানে তৃণমূল নেত্রী বারংবার রেশন ডিলারদের নির্দেশ দিচ্ছেন সাধারণ মানুষদের পর্যাপ্ত পরিমাণে রেশন দ্রব্য বিলি করার জন্য, সেখানে সেই কাজ যদি না হয় তাহলে খুব স্বাভাবিক ভাবেই সাধারণ মানুষ ক্ষেপে উঠবেন এবং তাঁদের সমস্ত রাগ গিয়ে পড়বে রেশন ডিলারদের ওপর। এমনিতেই করোনা পরিস্থিতি সামলাতে রাজ্যের পুলিশ জেরবার। তার ওপর যদি এ ধরনের ঘটনা ঘটতে শুরু করে, তাহলে পরিস্থিতি যে আরও ঘোরালো হয়ে উঠবে সে বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই। আপাতত নজর এখন এই অভিযোগের ভিত্তিতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কি পদক্ষেপ গ্রহণ করেন তার দিকে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!