এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাম মন্দিরের রায় নিয়ে উপনির্বাচন থেকে ২০২১ এর বৈতরণী নিয়ে আশাবাদী দিলীপ ঘোষ

রাম মন্দিরের রায় নিয়ে উপনির্বাচন থেকে ২০২১ এর বৈতরণী নিয়ে আশাবাদী দিলীপ ঘোষ

Priyo Bandhu Media

 

প্রায় প্রতিটি নির্বাচনেই নিজেদের ইশতেহারে রাম মন্দিরের কথা তুলে ধরেছিল বিজেপি। রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা এমনটাই দাবি করে থাকেন। এমনকি ভোটে জিততে বিজেপি রাম মন্দির ইস্যুকে তুলে ধরে হিন্দুত্বের তাস খেলে বলে মাঝেমধ্যেই অভিযোগ করতে দেখা যায় বিরোধীদের। অবশেষে আজ অযোধ্যায় রাম মন্দির সম্পর্কিত মামলায় বহু প্রতীক্ষিত রায়দান করল শীর্ষ আদালত। আর এই রায় কিছুটা হলেও তাদের পক্ষে যাওয়ায় এখন উজ্জীবিত গেরুয়া শিবির।

তবে বিরোধীদের পক্ষ থেকে রামমন্দির ইস্যুকে সামনে নিয়ে বিজেপি লড়াইয়ে সাফল্য পেয়েছে বলে দাবি করা হলেও বিজেপির তরফে সেই দাবি বারেবারেই নস্যাৎ করা হয়েছে। কিন্তু এবার এই রামমন্দিরকে কাজে লাগিয়ে বিজেপি সাফল্য পেয়েছে এবং তাদের উত্থান ঘটেছে বলে দাবি করতে দেখা গেল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে। সূত্রের খবর, এদিন রাম মন্দির নির্মাণের ব্যাপারে কিছুটা সবুজ সংকেত পাওয়ায় খুশি দীলিপবাবু।

তিনি বলেন, “রাম মন্দির নির্মাণের প্রতিশ্রুতি আমরা ইশতেহারে রেখেছিলাম। রাম মন্দির আন্দোলনকে বিজেপি নৈতিকভাবে সমর্থন দিয়েছে। 1986 সালে আমি এই আন্দোলনে অংশ নিয়েছিলাম। অযোধ্যায় যে রায় বেরিয়েছে, তা আমাদের আন্দোলনের সাফল্য এনে দিয়েছে। তাই আমরা গর্বিত।” এদিকে হিন্দুত্বের তাস খেলে বিজেপি রাজনীতি করছে বলে এতদিন বিরোধীরা যে অভিযোগ করেছে, এদিন কিছুটা হলেও তার জবাব দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

পাশাপাশি রাম মন্দিরের জন্যই তাদের উত্থান ঘটেছে বলেও দাবি করেন তিনি। মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ দিলীপ ঘোষ বলেন, “রামমন্দির ইস্যুতেই বিজেপির উত্থান হয়েছে। এই রামমন্দির ইস্যুতে উপনির্বাচনে বিজেপিকে ডিভিডেন্ড দেবে। উপনির্বাচন এর প্রভাব পড়বেই। তাই উপনির্বাচনে আমরা এবার বিপুল ব্যবধানে জিতব। রামমন্দির আমাদের জয়ের মার্জিন আরও বাড়িয়ে দেবে।”

এদিকে অযোধ্যায় রায় বেরোনোর পর তাদের নেক্সট টার্গেট কাশি এবং মথুরা বলেও জানিয়ে দেন দিলীপ ঘোষ। পাশাপাশি এদিন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে আক্রমণ শানাতে দেখা যায় বিজেপি রাজ্য সভাপতিকে। তিনি বলেন, “পুলওয়ামা কান্ডে ওনার বিবৃতি পাকিস্তানের পক্ষে ছিল। আজ কেন্দ্রে একটি দক্ষ সরকার রয়েছে। আমরা সেই ফল লাভ করছি। সবাই দেখছে উনি কার পক্ষে।”

বিশ্লেষকদের মতে, অযোধ্যা রায় বিজেপিকে ব্যাপক সাফল্য পাইয়ে দিয়েছে। যার ফলে তাদের হিন্দু ভোটব্যাংক বৃদ্ধি হবে বলে মনে করছেন একাংশ। আর তাইতো বাংলায় 3 বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনের আগে অযোধ্যার এই রায় বিজেপিকে অনেকটাই ভালো দিকে এগিয়ে নিয়ে যাবে বলে মনে করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি। ফলে দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্য উপনির্বাচনে সত্যি সত্যিই বিজেপির ভোটব্যাঙ্ক বাড়িয়ে দেয় কিনা, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!