এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > শেষমুহূর্তে ‘সর্বসম্মত’ প্রার্থীর না! রাজ্যসভার ভোটে ব্যাকফুটে বিজেপি বিরোধী বৃহত্তর জোট

শেষমুহূর্তে ‘সর্বসম্মত’ প্রার্থীর না! রাজ্যসভার ভোটে ব্যাকফুটে বিজেপি বিরোধী বৃহত্তর জোট

রাষ্ট্রপতি কিংবা উপরাষ্ট্রপতি নির্বাচনের মতোই রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচন নিয়েও হই চই কিছু কম নেই দিল্লির রাজনীতিতে। তার উপর গতকাল অব্দি জল্পনা ছিল রাজ্যসভার ডেপুটি চেয়ারম্যান পদের জন্য বিরোধী জোটের প্রার্থী হচ্ছেন এনসিপি সাংসদ বন্দনা চহ্বন। আসলে বিরোধীরা ছক কষেছিল শিবসেনার ভোটটা যে কোনো উপায়ে বিজেপির থেকে ছিনিয়ে নিজেদের দখলে আনা। বন্দনা দেবী যেহেতু মহারাষ্ট্রেরই বাসিন্দা তাই শিবসেনার বন্দনাদেবীকে সমর্থন করার একটি যুক্তিসংগত কারণও ছিল। সেই কারণটাই টার্গেট করে ফিল্ডে বাজিমাত করার প্ল্যান বানিয়েছিল বিরোধীরা। কিন্তু বিরোধীদের সে পরিকল্পনা মাঠেই মারা গেল এনসিপির চালে। আসলে বিরোধীদের পরিকল্পিত পদপ্রার্থীর খরব জানার পরই এনসিপির তরফ থেকে তড়িঘড়ি করে যোগাযোগ করা হয় ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পট্টনায়কেরর দল বিজিডির সঙ্গে। কিন্তু বিজিডি স্পষ্ট অাপত্তি জানালো এনসিপিকে সমর্থন করতে। এরপর জয় অনিশ্চিত বুঝতে পেরেই এনসিপি প্রার্থী না দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

পরিস্থিতির চাপে বাধ্য হয়ে কংগ্রেস কর্নাটকের সাংসদ বি কে হরিপ্রসাদকে প্রার্থী করল। দুই যুযুধান গোষ্ঠীর প্রার্থী ঘোষণার পরই দিল্লির রাজনীতির অন্দরে প্রস্তুতি চলছে যুদ্ধ জয়ের। এবার ডেপুটি চেয়ারম্যান নির্বাচনী যুদ্ধে জয়লাভ করতে বিজেপিকে বেশ বেগ পেতে হবে বলেই জল্পনা রয়েছে দলীয় অন্দরে। গতবারের মতো আগের থেকে জয় নিয়ে আত্মবিশ্বাসী নয় বিজেপি।কারণ হিসাবে উঠে এসেছে কিছু তথ্য। পরিসংখ্যান বলছে, ১২৩ জন সাংসদের সমর্থন প্রয়োজন,২৪৫ টি আসনের রাজ্যসভায় সংখ্যাগরিষ্ঠতার জন্য। এনডিএ-র হাতে আপাতত রয়েছে ৯২ জন সাংসদ। এর সঙ্গে এআইএডিএমকে-র ১৩ জন এবং টিআরএসের ৬ জন সাংসদ যুক্ত হবে। তবে এনডিএ চাপে পড়তে পারে শিবসেনা এবং অকালি দলের জন্য। শিবসেনা ইতিমধ্যেই ভোটদান থেকে বিরত থাকার কথা ঘোষণা করেছে আর অকালি দলও বিরোধীদের দিকে বেশি ঝুঁকছে।

অন্যদিকে,বিরোধীদের ঝুলিতে রয়েছে ১১৬ জন সাংসদের সমর্থন। বিরোধীদের দলে রয়েছে কংগ্রেস,তৃণমূল,সমাজবাদী পার্টি টিডিপি,আরজেডি,সিপিএম,সিপিআই,এনসিপি-র মতো তাবড় তাবড় ওজনদার দলগুলো। বিজেপি এবং ওয়াইএসআর কংগ্রেস কোন শিবিরে ভীড়বে তা নিয়ে এখনো কোনো খবর পাওয়া যায়নি। শিবসেনার মতো বিজু জনতা দল যদি বিজেপিকে ভোট না দেয় বা ভোট দান থেকে বিরত থাকে তাহলে বিরোধীদের জয়ের পথে আরেকটা কাঁটা সরবে,এমনটাই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞের একাংশ। আপাতত সকলের নজর রয়েছে ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীর উপর। তিনি কোন দিকে ঝুঁকবেন,তা এখনো বোঝা যাচ্ছে না। তবে নবীন পট্টনায়ক বিজেপির সমর্থনেই রয়েছে বলে বিজেডি সূত্রের খবর থেকে ইঙ্গিত পাওয়া গিয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!