এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > এবার নাম না করে দিলীপ ঘোষের সমালোচনা রাজ্যপালের , জোর জল্পনা

এবার নাম না করে দিলীপ ঘোষের সমালোচনা রাজ্যপালের , জোর জল্পনা


রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে জগদীপ ধনকার দায়িত্ব নেওয়ার পর থেকেই সরকার বনাম রাজ্যপালের সম্পর্কের তিক্ততা তৈরি হয়েছিল। যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিজেপি সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়র হেনস্তার ঘটনায় আচার্য হিসেবে সেই বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে রাজ্যপালের উপস্থিতি এবং তারপর গোটা ঘটনায় সরকারের সমালোচনা করায় রাজভবন বনাম নবান্নের মধ্যে তীব্র দ্বৈরথ লক্ষ করা যায়।

শাসকদলের তরফ থেকে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দাবি করতে থাকেন, এই রাজ্যপাল আসলে রাজ্যপাল নন, উনি পদ্মপাল। তবে রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের সম্পর্কে শাসক দলের বিভিন্ন নেতা, মন্ত্রী এই ধরনের মন্তব্য করলেও রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার তার অবস্থানে অনড় ছিলেন। বরাবরই তিনি দাবি করেছেন, রাজ্যের শান্তি-শৃঙ্খলা স্বার্থে তিনি সঠিক পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। কোনো ভয়ের কাছে তিনি মাথানত করতে রাজি নন।

কিন্তু যেভাবে একের পর এক ঘটনায় রাজ্যপালের বিরুদ্ধে মন্তব্য করে শাসকদলের পক্ষ থেকে রাজ্যের রাজ্যপালকে বিজেপি ঘনিষ্ঠ বলে দায়ী করা হয়েছিল, তাতে রাজনৈতিক মহলের একাংশ সেই রাজ্যপালের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছিলেন। কিন্তু এবার তিনি যে সত্যিই নিরপেক্ষ অবস্থানে অবস্থান করছেন, তা প্রমাণ করে দিলেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনকার।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন যাদবপুরের প্রাক্তনীদের একদল প্রতিনিধি রাজভবনের প্রধান ব্যক্তির সঙ্গে দেখা করেন। আর সেখানেই কিছুদিন আগে ঘটে যাওয়া যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ভেতরে বাবুল সুপ্রিয়কে ঘিরে যে অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেছে, তার যেমন নিন্দা করা হয়, ঠিক তেমনই বিজেপি রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষের মন্তব্য নিয়ে অভিযোগ জানানো হয় রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধানের কাছে।

বস্তুত, বাবুল সুপ্রিয়কে হেনস্থার পরই বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর সার্জিকাল স্ট্রাইক করা হবে” যে ঘটনা নিয়ে রাজ্য রাজনীতিতে তুমুল সমালোচনার ঝড় উঠতে শুরু করে। শাসক দলের একাংশ প্রশ্ন তুলতে শুরু করেন, এক্ষেত্রে কি রাজ্যপাল চোখ বন্ধ করে রয়েছেন! তিনি কি বিজেপির রাজ্য সভাপতি শিক্ষাঙ্গনকে নিয়ে এহেন উস্কানিমূলক মন্তব্য দেখতে পাচ্ছেন না!

সূত্রের খবর, এদিন যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য তথা রাজ্যপাল জগদীপ ধনকারের সঙ্গে দেখা করে গোটা বিষয়টি জানালে রাজ্যপাল দিলীপ ঘোষের এহেন মন্তব্যের নিন্দা করেন বলে জানান প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য তন্ময় ঘোষ। তবে দীলিপবাবুর এহেন মন্তব্যের নিন্দা রাজ্যপালের গলায় শোনা গেলেও তিনি তার নিন্দামূলক মন্তব্যের সময় দিলীপ ঘোষের নাম উচ্চারণ করেননি বলে জানা গেছে।

আর বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘটনায় একদিকে যেমন রাজ্য সরকারের সমালোচনা করেছেন রাজ্যপাল, ঠিক তেমনই এবার বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের সমালোচনা করে রাজ্যের সাংবিধানিক প্রধান হিসেবে জগদীপ ধনকার শাসকপক্ষের সমস্ত সমালোচনার ঊর্ধ্বে উঠে ফের আরও একবার নিরপেক্ষতার নজীর সৃষ্টি করলেন বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!