এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আগাম জামিন মিললেও আইনি ‘ফাঁড়া’ এখনই কাটছে না রাজীব কুমারের! জেনে নিন বিস্তারিত

আগাম জামিন মিললেও আইনি ‘ফাঁড়া’ এখনই কাটছে না রাজীব কুমারের! জেনে নিন বিস্তারিত

রাজ্যে ঘটে যাওয়া বিভিন্ন চিটফান্ড কাণ্ডে তদন্ত করে খতিয়ে দেখার জন্য, রাজ্য সরকারের তৈরী স্পেশ্যাল ইনভেস্টিগেশন টীম বা সিটের প্রধান ছিলেন রাজীব কুমার। ফলে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে সিবিআই যখন এই তদন্তভার নিজেদের হাতে তুলে নেয়, তখন স্বাভাবিকভাবেই সিবিআই ‘সাক্ষী’ হিসাবে রাজীব কুমারের সঙ্গে কথা বলতে চায়। কিন্তু, পরবর্তীকালে বদলে যায় সব সমীকরণ।

তদন্ত যত এগোতে থাকে সিবিআইয়ের দাবি অনুযায়ী, ধারণা স্পষ্ট হতে থাকে যে – তদন্তের নামে আসলে রাজীব কুমার নাকি চিটফান্ড কাণ্ডের প্রভাবশালীদের আড়াল করার চেষ্টা করে গেছেন! আর তারফলে, এই মামলার বহু নথি ও তথ্য রাজীব কুমার হয় গায়েব করেছেন বা নষ্ট করে দিয়েছেন। আর এরফলে তদন্ত প্রভাবিত বা ভুলপথে চালিত হওয়ার সমূহ সম্ভাবনা। আর তাই নাকি এবার রাজীব কুমারকে নিজেদের হেফাজতে নিয়ে ‘অভিযুক্ত’ হিসাবে জেরা করতে চায় সিবিআই।

ফলে, আদালতের দেওয়া ‘রক্ষাকবচ’ সরে যেতেই রাজীব কুমারকে নিজেদের হেফাজতে নিতে মরিয়া হয়ে ওঠে সিবিআই। কিন্তু, রাজীব কুমার হঠাৎ করে ‘লম্বা ছুটিতে’ চলে যান – যে ছুটির বিশদ কিছু প্রশাসনের কাছে ছিল না! এমনকি, ছুটির মেয়াদ শেষ হয়ে গেলেও ‘অজ্ঞাতবাসে’ থেকেই আইনি লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন রাজীব কুমার। আর সেই ‘অজ্ঞাতবাস’ নিয়েও রাজ্য সরকার কার্যত নীরব ছিল। এই অবস্থায়, সবাইকে চমকে দিয়ে আজ কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ রাজীব কুমারের আগাম জামিন মঞ্জুর করে দেয়।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

ফলে, রাজীব কুমারের সাময়িক স্বস্তি মিলল বলেই মনে করা হচ্ছে। কিন্তু, সিবিআইয়ের এক সূত্র জানাচ্ছে, এখনই রাজীব কুমারের আইনি ‘ফাঁড়া’ কাটছে না। কেননা, আগাম জামিনের শর্ত হিসাবে আদালত জানিয়েছে, রাজীব কুমার কলকাতার বাইরে যেতে পারবেন না। আর সিবিআই ৪৮ ঘন্টার নোটিশ দিলেই, সিবিআইয়ের সামনে তাঁকে হাজিরা দিতে হবে। এরফলে, রাজীব কুমারের ‘অজ্ঞাতবাস’ থেকে বেরিয়ে এসে সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়া ছাড়া উপায় নেই।

যদি তিনি না করেন, তাহলে তা আদালত অবমাননার শামিল হবে। ফলে, আইনি জাল আরও জোরালো হবে। এদিকে, আইনি পরামর্শ নিয়েই রাজীব কুমারের আগাম জামিনের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে যাওয়ার প্রস্তুতি শুরু করেছে সিবিআই। সবথেকে বড় কথা, রাজীব কুমার আগাম জামিন পেয়েছেন সারদা কাণ্ডে। কিন্তু, সিবিআই তাঁকে রোজভ্যালি কাণ্ডে আলাদা করে নোটিশ দিয়েছে। রোজভ্যালি তদন্তে কোনো আগাম জামিন বা ‘রক্ষাকবচ’ কিছুই কিন্তু পান নি রাজীব কুমার!

ফলে, সিবিআইয়ের ওই সূত্রটি জানাচ্ছে, আগাম জামিন নিয়েও কিন্তু খুব একটা স্বস্তিতে থাকতে পারবেন না মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অত্যন্ত ঘনিষ্ঠ বলে পরিচিত রাজীব কুমার। বরং, এই আগাম জামিন করে তাঁকে ‘অজ্ঞাতবাস’ থেকে টেনে বের করা যাবে। আর হাতে তো এখনও রোজভ্যালির ‘ব্রম্ভাস্ত্র’ আছেই! ফলে, রাজীব কুমার ইস্যুতে সিবিআই বনাম রাজীব কুমার শিবিরের ‘বুদ্ধির লড়াই’ ক্রমশ যে জমে উঠছে – তা মেনে নিচ্ছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!