এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজিব কুমারের “ছুটি বাড়লে” আইনি জটিলতার হাত থেকে বাঁচতে ছুটোছুটি শুরু পুলিশ কর্তাদের

রাজিব কুমারের “ছুটি বাড়লে” আইনি জটিলতার হাত থেকে বাঁচতে ছুটোছুটি শুরু পুলিশ কর্তাদের



আদালতের পক্ষ থেকে তার রক্ষাকবচ তুলে নেওয়ার পরই রাজীব কুমারকে নিজেদের বাগে পেতে তৎপরতা চালাচ্ছে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। কিন্তু কোনোমতেই ধরা দিচ্ছেন না কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল। 25 তারিখ পর্যন্ত তিনি ছুটি নিলেও সম্প্রতি সিবিআইকে একটি মেইল বার্তায় রাজীব কুমার জানিয়েছেন যে, তিনি 30 তারিখ পর্যন্ত ছুটিতে রয়েছেন।

তাই তার আগে তিনি সিবিআইয়ের সঙ্গে দেখা করতে পারবেন না। কিন্তু সত্যিই কি কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারের ছুটি বাড়ানো হয়েছে! নাকি সিবিআইয়ের মুখোমুখি হওয়ার এড়াতেই রাজীব কুমার এই ধরনের কথা বলছেন! সেটাই এখন বড় প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে সিবিআইয়ের কাছে।

সূত্রের খবর, ইতিমধ্যেই ছুটির মেয়াদ বাড়ানো হলে ঠিক কী ধরনের প্রশাসনিক জটিলতা আসতে পারে, তা নিয়ে লিগ্যাল ছেলের সঙ্গে কথাবার্তা শুরু করেছেন রাজ্য পুলিশের শীর্ষ কর্তারা। তবে যদি নবান্ন বা রাজ্য পুলিশ সিআইডি প্রধান রাজীব কুমারের ছুটি বৃদ্ধি করে, তাহলে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা তাকে হাতিয়ার করে নতুন কৌশল প্রয়োগ করতে পারে বলে মনে করছে একাংশ। সেক্ষেত্রে কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা বাড়তি কোনো সুবিধা পাক, তা চাইছেন না রাজ্যের প্রশাসনিক কর্তারা।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে ইতিমধ্যেই সিবিআই যাতে তাকে গ্রেফতার করতে না পারে, তার জন্য কলকাতা হাইকোর্টে আগাম জামিন চেয়ে আবেদন করেছেন রাজীব কুমার। কিন্তু আবেদনকারী কেন আত্মসমর্পণ করছে না! সেই ব্যাপারে আজ বেলা আড়াইটা নাগাদ এই আবেদনের শুনানি হবে বলে জানানো হয়েছে হাইকোর্টের বিচারপতি সইদুল্লা মুন্সি এবং শুভাশিস দাসগুপ্তর ডিভিশন বেঞ্চের তরফে।

তবে সকলের কাছে এখন একটাই প্রশ্ন, কেন মেঘনাথের মত আড়াল থেকে লড়াই করছেন রাজীব কুমার! সিবিআইয়ের নোটিশ পাওয়ার 11 দিনের পরও কেন আড়ালে রয়ে গেছেন তিনি! কিন্তু কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার যতই নিজেকে আড়াল করার চেষ্টা করুন না কেন, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাও কিন্তু তাকে ধরতে নাছোড়বান্দা পন করে রেখেছে। সূত্রের খবর, মঙ্গলবার সিবিআইয়ের একটি টিম মেচেদায় পৌঁছয়।

মূলত কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কাছে খবর ছিল, সেখানকার একটি হোটেলে বেনামে ঘর বুকিং করা হয়েছে এবং সেখানে রাজীব কুমার রয়েছেন। আর তার সত্যতা যাচাই করতেই এদিন সেই হোটেলে গিয়ে সেখানকার কর্মীদের সঙ্গে কথা বলার পাশাপাশি আশেপাশের বেশ কয়েকটি হোটেলে নজরদারি চালান তদন্তকারী অফিসারেরা। কিন্তু রাজীব কুমারের দেওয়ার সময়সীমা ঠিক কবে শেষ হবে! সত্যিই কি 30 তারিখ পর্যন্ত তার ছুটি বৃদ্ধি করেছে নবান্ন! নাকি ভুল তথ্য দিচ্ছেন কলকাতার প্রাক্তন নগরপাল! তা নিয়ে এখনও সিবিআইয়ের কাছে স্পষ্ট কোনো কথা বলতে পারেনি রাজ্য।

ফলে সেদিক থেকে রাজ্যের প্রশাসনিক কর্তা ব্যক্তিদের আচরণের দিকেও নজর রাখছে তদন্তকারীরা। সব মিলিয়ে কলকাতার প্রাক্তন নগরপালের পাশাপাশি আইনি জটিলতা হাত থেকে বাঁচতে রীতিমতো দৌড় শুরু করেছেন রাজ্যের পুলিশ কর্তারা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!