এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যের হয়ে মামলা লড়া বিচারপতির “সৌজন্যে” আপাতত সাময়িক স্বস্তিতে রাজীব কুমাররা – জানুন বিস্তারিত

রাজ্যের হয়ে মামলা লড়া বিচারপতির “সৌজন্যে” আপাতত সাময়িক স্বস্তিতে রাজীব কুমাররা – জানুন বিস্তারিত

এক সময়ে রাজ্যের হয়ে মামলা লড়া বিচারপতি নাগেশ্বর রাও সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে রাজ্যের বিরুদ্ধে করা আদালত অবমাননার মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নেওয়াই অবশেষে পিছিয়ে যাচ্ছে প্রাক্তন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার সহ 3 শীর্ষকর্তার বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলার শুনানি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত 3 রা ফেব্রুয়ারি চিটফান্ড তদন্ত সংক্রান্ত বিষয়ে তৎকালীন কলকাতার পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমারকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য তাঁর বাড়িতে হানা দেন সিবিআই আধিকারিকেরা। কিন্তু তখনই রাজীব কুমারের বাড়িতে ঢুকতেই সেই কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কর্তাদের বাধা দেওয়া হয় বলে অভিযোগ ওঠে কলকাতা পুলিশের বিরুদ্ধে।

সিবিআইয়ের পক্ষ থেকে অভিযোগ করা হয় যে, তদন্তে সহযোগিতা করার বদলে তাদের বেশ কয়েকজন আধিকারিককে থানায় নিয়ে গিয়ে হেনস্থা করা কলকাতা পুলিশ। যা আদালত অবমাননারই শামিল বলে দাবি করেন সিবিআই কর্তারা।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কেননা কেন্দ্রের এই তদন্তকারী সংস্থা আদালতের নির্দেশেই তদন্তে সুবিধার জন্য এই তৎকালীন কলকাতার পুলিশ কমিশনারকে জেরা করতে এসেছিল। ফলে সেই আদালতের নির্দেশ অমান্য করে তাদের যেভাবে কলকাতা পুলিশের পক্ষ থেকে হেনস্থা করা হয়েছে তা আদালত অবমাননার শামিল এই অভিযোগ করে শীর্ষ আদালতের দ্বারস্থ হন কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার কর্তাব্যক্তিরা।

জানা যায়, গত 5 ফেব্রুয়ারি এই ব্যাপারে দেশের শীর্ষ আদালতে কলকাতার তৎকালীন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার, রাজ্যের মুখ্য সচিব মলয় দে এবং ডিজি বীরেন্দ্রর বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার অভিযোগ করে সিবিআই। আর সেই মামলার শুনানি আজ অর্থ্যাৎ 20 ফেব্রুয়ারি হওয়ার কথা ছিল।

কিন্তু এই মামলায় ডিভিশন বেঞ্চের অন্যতম সদস্য বিচারপতি নাগেশ্বর রাও এর আগে রাজ্য সরকারের হয়ে মামলা লড়ার কারণে তিনি নিজেকে এদিন সেই মামলা থেকে সরিয়ে নেওয়ায় ফের সেই শুনানির দিন পিছিয়ে গেল। কিন্তু কবে হবে এই মামলার শুনানি?

সূত্রের খবর, আগামী 27 শে ফেব্রুয়ারি ওই মামলায় নতুন বেঞ্চ গঠনের পরই তার পরবর্তী শুনানি হবে। সবমিলিয়ে আদালত অবমাননার মামলায় আরও কিছুদিন সময় পেলেন রাজ্যের তিন প্রশাসনিক কর্তা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!