এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দেশের নিরাপত্তারক্ষীদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ করার দায় একমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর – প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ রাহুলের

দেশের নিরাপত্তারক্ষীদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ করার দায় একমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর – প্রধানমন্ত্রীকে কটাক্ষ রাহুলের


ভারত-পাক সীমান্তের জম্মু-কাশ্মীরে এখনও তীব্র উত্তেজনা রয়েছে। কিন্তু এই উত্তেজিতকর পরিস্থিতিতে প্রথমে ভারতবর্ষের সমস্ত রাজনৈতিক দল এককাট্টা হয়ে লড়বে বললেও যতদিন এগোচ্ছে ততই যেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের মধ্যে শোনা যাচ্ছে রাজনীতির সুর। প্রসঙ্গত, গত 14 ই ফেব্রুয়ারি পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন জইশ-ই-মহম্মদের নৃশংস হামলায় প্রাণ হারান জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় থাকা দেশের প্রায় 42 জওয়ান।

আর এরপরেই ভারতের পক্ষ থেকে দাবি তোলা হয় যে, পাকিস্তানের প্রতি এবার বদলা নিতেই হবে। আর সেইমত গত 26 শে ফেব্রুয়ারি ভোররাতে পাকিস্তানের একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেয় ভারতীয় সেনা। যা নিয়ে গোটা ভারতবাসীর তরফে সেই ভারতীয় বায়ুসেনাকে অভিনন্দন জানানো হয়।

কিন্তু বিরোধী দলগুলোর তরফে আদৌ পাকিস্তানে জঙ্গী ঘাঁটি গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে কিনা তা নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে প্রমাণ দাবি করা হয়। আর বিরোধী দলগুলোর এহেন আচরণে আশ্চর্য হয়ে যায় রাজনৈতিক মহলও। আর এই ব্যাপারে শনিবারই সেই বিরোধীদলকে খোঁচা দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী বলেন, “ভারতীয় বায়ুসেনার সাফল্য নিয়ে যে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে তা সত্যিই দুর্ভাগ্যের। সংকীর্ণ রাজনীতি করছে দেশের বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো।”

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রীর গলায় কংগ্রেসের বিরুদ্ধে রাফালে নিয়েও সুর চড়াতে দেখা যায়। যেখানে নরেন্দ্র মোদী বলেন, “প্রথমে পরিবারের স্বার্থ এবং পরে রাজনৈতিক স্বার্থে রাফালে কেনার বিরোধিতা করা হয়েছে।” আর এরপরই পাল্টা সেই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বিরুদ্ধে মুখ খুলে টুইটে সরব হন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী।

সূত্রের খবর, এদিন প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে টুইটারে তিনি লেখেন, “আপনার লজ্জা করে না! 30 হাজার কোটি টাকা চুরি করে আপনি আপনার বন্ধু অনিল আম্বানিকে দিয়েছেন। রাফায়েল জেট এদেশে আশায় যে বিলম্ব হয়েছে তার জন্য একমাত্র আপনিই দায়ী।” পাশাপাশি দেশের নিরাপত্তারক্ষীদের জীবন ঝুঁকিপূর্ণ করার দায় একমাত্র প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বলেও মন্তব্য করেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি।

সব মিলিয়ে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে প্রথমে জওয়ানদের রক্তের বিনিময়ে রাজনীতি করা হবে না বললেও এবার সেই বিরোধী রাজনৈতিক দল কংগ্রেসের গলাতেই রাজনীতির সুর আশায় হতবাক বিশেষজ্ঞ মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!