এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পাল্টাচ্ছে রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস? তৃণমূলে গিয়ে বাস্তব বোঝার নির্দেশ অনুগত দূতদের!

পাল্টাচ্ছে রাহুল গান্ধীর কংগ্রেস? তৃণমূলে গিয়ে বাস্তব বোঝার নির্দেশ অনুগত দূতদের!

বিরোধী দল হলেও  এরাজ্যে কংগ্রেসের সংগঠনের প্রায় নাস্তানাবুদ অবস্থা। প্রদেশ নেতৃত্বের তরফে বারেবারে রাজ্যে সংগঠনের হাল ফেরাতে কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের কাছে আবেদনও করেছেন অধীর চৌধুরী, আব্দুল মান্নানেরা। কিন্তু কাজের কাজ কিছুই হয়নি। একের পর এক দলীয় বিধায়ক, নেতারা হাত শিবির ছেড়ে যোগ দিয়েছেন রাজ্যের শাসকদল তৃনমূল শিবিরে। সামনেই লোকসভা নির্বাচন। সারা দেশে বিজেপি বিরোধী মহাজোটে তৃনমূল এবং কংগ্রেস এক থাকলেও রাজ্যে সেই তৃনমূলের কর্মীরা কংগ্রেস কর্মীদের ওপর সন্ত্রাস চালানোয় ঘাসফুলের সাথে কোনোরুপ সমঝোতা করতে নারাজ প্রদেশ কংগ্রেসের একাংশ।

কিন্তু আপরদিকে সাম্প্রদায়িক বিজেপিকে রুখতে সেই প্রদেশ কংগ্রেসেরই মালদহের গনি পরিবারে আবু হাসেম খান চৌধুরী এবং মৌসম বেনজির নুরেরা এবার পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠনে তৃনমূলের সাথেই সমঝোতা করেছে এবং ভবিষ্যতে এইভাবে চললে যে কংগ্রেসের ভালোই হবে সেই ব্যাপারেও মত দিয়েছেন গনি পরিবারের এই দুই সদস্য। ফলে একদিকে দলের অন্দরে ভবিষ্যত রাজনৈতিক রননীতি কে হবে তা নিয়ে যেমন জটিলতা চলছে ঠিক তেমনই একের পর এক নির্বাচনে শোচনীয় পরাজয়।

সূত্রের খবর, রাজ্যে কংগ্রেসের লড়াই ঠিক কার বিরুদ্ধে হবে সেই ব্যাপারে জানতে চেয়ে এআইসিসির গৌরব গগৈকে একটি চিঠিও দিয়েছেন অনুপম ঘোষ, ঋজু ঘোষালেরা। তাই এবার বাংলায় দলীয় সংগঠন কিভাবে চলবে তা সম্পর্কে কর্মীদের মতামত জানতে আগামী 7 থেকে 15 সেপ্টেম্বর এআইসিসির চার সদস্যকে রাজ্যের সমস্ত এলাকায় ঘুরে কর্মীদের মতামত নেওয়ার নির্দেশ দিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, এই কাজে গৌরব গগৈ ছাড়াও থাকবেন শরৎ রাউত, বি পি সিংহ এবং মহম্মদ জাওয়াদের মত নেতা। এ প্রসঙ্গে প্রদেশ কংগ্রেসের এক নেতা এদিন বলেন, “এখন থেকে দিল্লিতে ছুটতে হবে না। বাংলায় এসে দলের মাঠে ময়দানে খাটা কর্মীরা ঠিক কি চাইছেন তা জানতে রাজ্যের এলাকা ঘুরে কর্মীদের মতামত নেবে এআইসিসি।”  সব মিলিয়ে এখন নিজের অনুগত দূতদের পাঠিয়ে বাংলার সংগঠনে প্রান ফেরাতে কতটা সক্ষম হন রাহুল গান্ধী সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহল।

 

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!