এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বাংলায় ঘুরে দাঁড়াতে শীর্ষনেতৃত্ত্বকে বড়সড় নির্দেশ রাহুল গান্ধীর

বাংলায় ঘুরে দাঁড়াতে শীর্ষনেতৃত্ত্বকে বড়সড় নির্দেশ রাহুল গান্ধীর

এ রাজ্যে একের পর এক নির্বাচনী ভরাডুবিতে রাজনৈতিকভাবে কংগ্রেসের “ভাড়ে মা ভবানী দশা”। আর তার পরে “গোদের ওপর বিশফোড়া” হিসেবে লেগেই আছে দলীয় কোন্দল। তাই শুক্রবার দিল্লীতে রাজ্যে প্রদেশ নেতাদের নিয়ে এক বৈঠকে সেই কোন্দলই মেটানোর নির্দেশ দেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী। কিন্তু কার সাথে কার এই বিবাদ? যা মেটানোর নির্দেশ দিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি। সূত্রের খবর, বাংলার ভারপ্রাপ্ত এআইসিসি নেতা গৌরব গগৈ ও রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানের মধ্যেই মূলত এই গন্ডগোল। এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দুজনেই। রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানকে দেখে রাহুল গান্ধী বলেন, “গৌরবের সঙ্গে কি হয়েছে আপনার?”

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এরপরই গৌরব গগৈ ও আব্দুল মান্নান দুজনেই দুজনের বক্তব্য দলের সর্বভারতীয় সভাপতির কাছে তুলে ধরেন। জানা যায়, বাংলার পর্যবেক্ষক হিসাবে গৌরব গগৈ দ্বায়িত্ব পাওয়ার পরই আব্দুল মান্নানকে ফোন করলেও ব্যাস্ত থাকার কারনে ঠিকমত কথা বলতে পারেননি তিনি। এরপর গৌরব গগৈ রাজ্যে বৈঠক করতে এসেও বিরোধী দলনেতাকে ডাকেননি। তবে কদিন আগে ফের রাজ্যে এসে বৈঠকের জন্য বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নানকে ফোন করলে “লোকাল ট্রেনে আছি, কথা বলতে পারব না।” বলে গৌরবকে এড়িয়ে যান আব্দুল মান্নান। আর এই খবর দিল্লীর কানে পৌছোতেই এদিনের বঙ্গ নেতাদের নিয়ে এই বৈঠকে রাহুল গান্ধী বলেন, “এমন ছোটোখাটো ব্যাপারে বেশি মাথা ঘামাবেন না। একসাথে কাজ করুন।” একদিকে তাঁর প্রতি যদি অনাস্থা থাকে তবে তিনি তাঁর পদ থেকে সরে যেতেও প্রস্তুত বলে জানিয়ে দিয়েছেন বিরোধী দলনেতা আব্দুল মান্নান। তবে এ প্রসঙ্গে গৌরব গগৈ বলেন, “পরের বার কোলকাতায় গিয়ে পরিষদীয় নেতার সাথের সাথে অবশ্যই কথা বলব।” আর আব্দুল মান্নান বলেন, ” দলের সর্বভারতীয় সভাপতি যা জানতে চেয়েছে বলেছি।” রাজনৈতিক মহলের মতে, সামনে 2019। তাই এখন থেকেই বাংলায় নিজেদের শক্ত ভিত গড়তে না পারলে ভবিষ্যতে বঙ্গ কংগ্রেসের জন্য অন্ধকার অপেক্ষা করছে। আর তাই ক্ষয়িষ্নু সংগঠনকে ঘুরে দাঁড় করানোর বৈঠকে দলীয় নেতাদের লড়াই বন্ধের নির্দেশ দিলেন কংগ্রেসের সর্বভারতীয় সভাপতি রাহুল গান্ধী।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!