এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ছেলেধরা সন্দেহে গনপ্রহারে মৃত্যু দুই ইঞ্জিনিয়ারের,তদন্তের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

ছেলেধরা সন্দেহে গনপ্রহারে মৃত্যু দুই ইঞ্জিনিয়ারের,তদন্তের নির্দেশ মুখ্যমন্ত্রীর

পেশায় ব্যাবসায়ী বছর 29 এর নীলোৎপল দাস এবং বছর 30 এর অভিজিৎ নাথ সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারের কাজ করতেন।সম্প্রতি তাঁরা দুই বন্ধু মিলে পিকনিক করতে গিয়েছিলেন অসমের কার্বি আংলং জেলার কাঙথিলাঙসো গ্রামে।সূত্রে খবর,প্রকৃতিপ্রেমী এই দুই বন্ধু প্রকৃতির শব্দকে রেকর্ড করতেই এখানে গিয়েছিলেন।জানা যায়,তারা যখন ফিরছিল তখনই পথে কয়েকজন যুবক তাদের গাড়ি আটকে দেয়।এরপরই সেই যুবকেরা গ্রামবাসীদের ডেকে এনে দুই বন্ধুর গাড়ি ঘিরে ফেলে।গ্রামবাসীদের অভিযোগ,শিশু চুরির জন্য এই দুই সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ার গ্রামে ঢুকেছিলেন।এবং এরপরই এই দুই বন্ধু র ওপর তারা চড়াও হয়।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

সূত্রে খবর,এই অবস্থায় নীলোৎপল ও অভিজিৎ গ্রামবাসীদের বলেন যে তারা এই অসমেরই বাসিন্দা।এই অঞ্চলে তাঁরা ঘুরতে এসেছিলেন।কিন্তু এরপরঔ কিছু না শুনেই গ্রামের মানুষরা বেধরক মারতে শুরু করে এই দুই বন্ধুকে।সূত্রে খবর,বেধরক মারে যখন প্রায় মৃত্যুশয্যায় মাটিতে লুটিয়ে পড়ছে দুই যুবক,তখন ঘটনাস্থলে দেখা গেল পুলিশকে।

এরপরই ওই দুই যুবককে উদ্ধার করে হাসপাতালের উদ্দেশ্যে নিয়ে যাওয়া হয়।তবে হাসপাতালে পৌছোনের আগেই তাঁদের মৃত্যু হয়।ইতিমধ্যেই সোশাল মিডিয়ায় এই দুই সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারকে বেধরক মারের ভিডিও ক্লিপও প্রকাশ্যে আসে।পুলিশ সূত্রে খবর,এই ভিডিও দেখেই অভিযুক্তদের সন্ধানে মাঠে নামে পুলিশ।তবে এখনও এব্যাপারে কাউকেই গ্রেপ্তার করা যায়নি।

পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনতে গ্রামে পুলিশ পিকেটিং ও করা হয়েছে।মৃত দুই যুবকের পরিবারকে খবরও দেওয়া হয়েছে।ময়না তদন্তের রিপোর্ট হাতে পেলেই পরিবারের হাতে এই দুই যুবকের মৃতদেহ তুলে দেবে পুলিশ।এদিকে এই ঘটনা নিয়ে শুরু হয়েছে রাজনৈতিক তরজাও।এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করে অসমের বিরোধী দলনেতা দেবব্রত সইকিয়া বলেন,”একের পর এক খনপিটুনির ঘটনায় প্রকাশ হচ্ছে দেশে আইনশৃঙ্খলা বলে কিছুই নেই।”যদিও বা এইরুপ ঘটনা কানে আসার পরই রাজ্যের ডিজিপিকে দোষীদের গ্রেপ্তারেল নির্দেশ দিয়েছেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী সর্বানন্দ সোনওয়াল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!